চট্টগ্রাম শনিবার, ১৩ আগস্ট, ২০২২

সর্বশেষ:

২৭ মে, ২০২২ | ৮:৫২ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক 

ফেসবুকে সমালোচনার পর ঢেকে ফেলা স্মৃতিস্তম্ভ থেকে পোস্টার অপসারণ

প্রয়াত আখতারুজ্জামান চৌধুরী বাবু। মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক ও আওয়ামী লীগের নিবেদিতপ্রাণ। দুঃসময়ে আ.লীগকে সুসংগঠিত করায় তাঁর ছিল অসামান্য অবদান। তাঁর স্মৃতি রক্ষার্থে নির্মিত স্তম্ভ ও স্মৃতিস্মারক ব্যানার-পোস্টার ও লিফলেট সাঁটিয়ে ঢেকে দিয়েছেন তাঁরই দলের নেতাকর্মীরা।

দক্ষিণ জেলা যুবলীগের সম্মেলনকে ঘিরে শাহ আমানত সেতুর ওপারে কর্ণফুলীর মইজ্জ্যারটেক এলাকায় স্থাপিত ‘আখতারুজ্জামান চৌধুরী চত্বরকে’ পোস্টার-ব্যানারে ঢেকে ফেলা হয়েছে। পোস্টার-ব্যানারে ঢেকে ফেলা এ স্মৃতিস্তম্ভকে নিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভিডিওচিত্র প্রকাশ করেন এক ব্যক্তি। সেই ভিডিওচিত্র নজরে আসার পর পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন ও সৌন্দর্যবর্ধনের উদ্যোগ নেন চাতরি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আফতাব উদ্দিন চৌধুরী।

আগামীকাল শনিবার দক্ষিণ জেলা যুবলীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে পটিয়া উপজেলায়। এ পথ ধরে সম্মেলনে যোগ দেবেন দলের শীর্ষ নেতৃবৃন্দ। নেতৃবৃন্দের নজরে আনতে দলের সম্ভাব্য পদপ্রত্যাশীরা গুরুত্বপূর্ণ মোড় ও স্থাপনায় পোস্টার-ব্যানার সাঁটিয়ে ঢেকে ফেলেন।

চাতরি ইউপি চেয়ারম্যান আফতাব উদ্দিন চৌধুরী পূর্বকোণকে বলেন, ‘প্রয়াত আখতারুজ্জামান চৌধুরী ছিলেন আওয়ামী লীগের বটবৃক্ষ। তাঁর প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদনস্বরূপ এ স্মৃতিস্তম্ভ নির্মাণ করা হয়। কিন্তু পোস্টার-ব্যানার লাগিয়ে তা ঢেকে ফেলা হয়। তা দলের একজন মহৎপ্রাণ নেতার প্রতি অবমাননার শামিল। তা নজরে আসার সঙ্গে সঙ্গেই ইউনিয়ন পরিষদের গ্রামপুলিশ দিয়ে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন করা হয়। এবং তা যথাযথ সংরক্ষণ ও পোস্টার-ব্যানার যাতে না লাগানো হয়, সেই বিষয়ে সতর্ক ও তদারকির জন্য বলা হয়েছে।’

তিনি বলেন, মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক ও আওয়ামী লীগের দুঃসময়ের কাণ্ডারী একজন ব্যক্তির স্মৃতিস্তম্ভে পোস্টার-ব্যানার সাঁটানোর আগে নেতাকর্মীদের সতর্ক থাকা উচিত ছিল। আশা করছি, আগামীতে এ ধরনের নিন্দনীয় কাজ দলীয় নেতাকর্মীরা আর করবেন না।

 

পূর্বকোণ/সাফা/পারভেজ

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট