চট্টগ্রাম মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই, ২০২৪

সর্বশেষ:

রাজনীতিতে সম্পৃক্ততা থাকলে নির্বাচন পর্যবেক্ষক হতে পারবে না: ইসি

অনলাইন ডেস্ক

২ আগস্ট, ২০২৩ | ৮:১৬ অপরাহ্ণ

যারা রাজনীতির সঙ্গে সম্পৃক্ত তারা কেউ নির্বাচন পর্যবেক্ষক হতে পারবে না বলে জানিয়েছেন নির্বাচন কমিশনার (ইসি) মো. আলমগীর।

 

তিনি বলেছেন, বাংলাদেশর মানুষ কোনো না কোনো দল সমর্থন করবে। তবে কোনো দলের কমিটিতে আছে কি না, সেটা দেখতে হবে। আমাদের নীতিমালায় আছে বর্তমানে যদি রাজনীতির সঙ্গে সম্পৃক্ত থাকে তাহলে নির্বাচন পর্যবেক্ষক হতে পারবে না।

 

বুধবার (২ আগস্ট) দুপুরে নির্বাচন ভবনের নিজ দপ্তরে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন।

 

তিনি বলেন, আমরা আশা করছি না শুধু আহ্বানও জানিয়েছি যে, যত বেশি সংখ্যক আসতে চায় আমরা নির্বাচন কমিশনের পক্ষ থেকে আমন্ত্রণ জানাব। গত বছর পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে সমন্বয়হীনতা ছিল, অনেকেই ভিসা পাননি বলে আসতে পারেননি।

 

এবার ভিসা দেওয়ার জন্য ইসির কোনো উদ্যোগ থাকবে কি না, প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, এখানে সিস্টেমটা হলো কাউকে ভিসা দেওয়া হবে কি না সেটা রাষ্ট্রের ব্যাপার। তবে আমাদের পক্ষ থেকে উদারনীতি থাকবে যে, যত সংখ্যক তারা আসুক। ভিসাটা দেয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। আর বিদেশ থেকে আসতে হলে সেই ভিসা পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অ্যাম্বাসিগুলো আছে, হাইকমিশনগুলো আছে, সেখান থেকে প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে হয়। এতে দুইটা মন্ত্রণালয়ের সহযোগিতা লাগে। আমরা সহযোগিতার জন্য দুইটা মন্ত্রণালয়কেই চিঠি দেব, যে বিদেশি পর্যবেক্ষক আসবে তাদের ভিসা দেওয়ার বিষয়ে যেন সহযোগিতা করে। কিন্তু কাকে ভিসা দেবে, কাকে দেবে না সেটা সম্পূর্ণ নির্ভর করে তাদের ওপর।

 

‘সম্প্রতি একটি সংস্থা মিটিং করে গেল, তাদের সদস্যের মধ্যে দুজনের পরিচয়ই জানা যায়নি, দুইজন সাংবাদিক। যদি বিদেশ থেকে এ ধরনের লোক না আসে সে বিষয়ে কোনো পদক্ষেপ থাকবে কি না’, এমন প্রশ্নের জবাবে নির্বাচন কমিশনার বলেন, আমাদের বিদেশে কোনো অফিস নেই। আমরা দেশেরগুলোর খোঁজখবর নিতে পারি। যতখানি সম্ভব খোঁজ নিয়ে অনুমোদন দেই। তবে আন্তর্জাতিক সংস্থার কে আসল কে নকল সেটা আমাদের পক্ষে বলা সম্ভব না। এজন্য সেটা দেখার দায়িত্ব হলো পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের। যেসব দেশ থেকে আসবে আশা করা যায়, সেসব দেশের যারা বিশেষজ্ঞ রয়েছেন, সেটা নিশ্চিত হয়েই ভিসা দেবে। কোনো সংস্থাকে কিন্তু নাম ধরে ডেকে এনে দাওয়াত দেওয়া হয় না। আমরা সরাসরি বলি, আপনারা আসেন। আমরা যেটা চাইব সেটা হলো নির্বাচন পর্যবেক্ষণ করার যাদের অভিজ্ঞতা আছে এবং পৃথিবীর বিভিন্ন দেশের নির্বাচন যারা পর্যবেক্ষণ করেছেন, সেটা ব্যক্তি হোক আর সংস্থা হোক এই ধরনের যারা আছেন তারাই যেন আসেন। তারা আসলেই নির্বাচন গ্রহণযোগ্য হবে। এখন যাদের অভিজ্ঞতা নেই, তাদের বিষয়টা পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় দেখবে।

 

তিনি আরও বলেন, দেশীয় পর্যবেক্ষক ২১১ সংস্থা আবেদন করেছিল। এর মধ্যে ৯৫টি শর্টলিস্ট করা হয়েছে। এগুলোর মধ্যে অনেকের আবার অসম্পূর্ণ তথ্য আছে। যে কারণে এগুলো আরও যাচাই বাছাই করা হচ্ছে।

 

পূর্বকোণ/জেইউ/পারভেজ

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট