চট্টগ্রাম সোমবার, ১৮ অক্টোবর, ২০২১

সর্বশেষ:

২৬ জুলাই, ২০২১ | ১০:৫৫ অপরাহ্ণ

অনলাইন ডেস্ক

মাস্ক পরলে সংক্রমিত হওয়ার ঝুঁকি দুই শতাংশ

কোডিভ থেকে সুরক্ষায় আমাদের হাতে দুটি অস্ত্র রয়েছে। একটি মাস্ক, আরেকটি ভ্যাকসিন। লকডাউনে জীবিকা বা অন্য কোনো বিশেষ প্রয়োজনে কাউকে যদি বাইরে বের হতে হয়, তাহলে সর্বাবস্থায় মাস্ক পরে বের হতে হবে। এটা এখন বৈজ্ঞানিকভাবে প্রমাণিত যে, দুই প্রান্তে মাস্ক পরা থাকলে সংক্রমিত হওয়ার ঝুঁকি মাত্র দুই শতাংশ বা তার চেয়েও কম থাকে। এমনকি দুইজনের একজন কিংবা উভয়ের যদি কাশিও থাকে। 

আমাদের ভ্যাকসিনের সংকট রয়েছে। রাষ্ট্র চায়, ১৩-১৪ কোটি মানুষকে ভ্যাকসিন প্রদান করতে। কিন্তু আমাদের হাতে আছে দুই-তিন কোটি ভ্যাকসিন। সুতরাং কোভিডে অধিকমাত্রায় মৃত্যুঝুঁকিতে থাকা জনগোষ্ঠী অর্থাৎ বয়স্কদের আগে টিকাদান নিশ্চিত করতে হবে। তাদেরকে আগে সুরক্ষা বলয়ে নিয়ে আসতে হবে। তারপর পর্যায়ক্রমে ভ্যাকসিনের আওতায় আনতে হবে যুবক, তরুণদের।

এটা প্রমাণিত যে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডাব্লিউএইচও) কর্তৃক স্বীকৃত যে কোনো ভ্যাকসিনের দুই ডোজ গ্রহণকারী ব্যক্তি আক্রান্ত হলেও করোনায় মৃত্যুর আশঙ্কা ১ শতাংশেরও কম। সুতরাং দুই ডোজ ভ্যাকসিন নেওয়া মানুষ অন্তত কোভিডে মারা যাবে না। এ ব্যাপারে আমরা মোটা দাগে মানুষকে আশ্বস্ত করতে পারি। সুতরাং যেখানে যে ভ্যাকসিনই পাবেন, সেটাই গ্রহণ করুন। কারণ প্রতিটি ভ্যাকসিনের কার্যকারিতাই কাছাকাছি। প্রতিটি ভ্যাকসিনেই ৭০-৯০ শতাংশ কার্যকারিতা ক্ষমতা রয়েছে। আমাদের দেশে সচরাচর পাওয়া যাচ্ছে, যেমন: অক্সফোর্ড-এস্ট্রাজেনেকা, সিনোফার্মা, ফাইজার, মডার্না—প্রতিটিই করোনা থেকে সুরক্ষায় কার্যকর। -তথ্যসূত্র : মেডিভয়েস

পূর্বকোণ/আরআর/পারভেজ

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 1163 People

সম্পর্কিত পোস্ট