চট্টগ্রাম রবিবার, ২১ জুলাই, ২০২৪

সর্বশেষ:

বমু রিজার্ভ ফরেস্টের ৬ একর জায়গা দখলমুক্ত

লামা-আলীকদম সংবাদদাতা

৩ সেপ্টেম্বর, ২০২৩ | ৮:২২ অপরাহ্ণ

বান্দরবানের লামা বন বিভাগের সদর রেঞ্জের আওতাধীন ‘বমু ফরেস্ট রিজার্ভের’ দীর্ঘদিন ধরে বেদখলে থাকা ৬ একর জায়গা দখলমুক্ত করেছে বন বিভাগ।

 

রবিবার (৩ সেপ্টেম্বর) সকাল থেকে শুরু করে দুপুর পর্যন্ত লামা বন বিভাগের সহকারী বন সংরক্ষক মো. সাইফুল ইসলাম সংরক্ষিত বনাঞ্চলের জায়গা দলখমুক্ত করার অভিযানে নেতৃত্ব দেন।

 

তিনি বলেন, বমু রিজার্ভ ফরেস্টের অহিদ্দারঘোনা এলাকার পানিস্যামুখ নামক স্থানে বন বিভাগের সংরক্ষিত বনাঞ্চলের জায়গা নিয়ে দু’পক্ষ বিবাদে জড়িয়ে পড়লে আইন-শৃঙ্খলা অবনতি হওয়ার আশংকা দেখা দেয়। তাই আমরা সরকারি জায়গা দখলমুক্ত করে চারা রোপন করেছি। দখলমুক্ত করা ৬ একর জায়গায় আজ চিকরাশি, কাঞ্চনবাদি, অর্জুন, আকাশমনি প্রজাতির প্রায় ৩ হাজার দীর্ঘমেয়াদী বনজ গাছের চারা লাগানো হয়েছে। এছাড়া জবরদখল থেকে মুক্ত করে বিরোধীয় জায়গায় লাল পতাকা দিয়ে সাধারণ মানুষের প্রবেশাধিকার রহিত করা হয়েছে। বন বিভাগের জবরদখল করা জায়গা দখলমুক্ত করার অভিযান অব্যাহত থাকবে।

 

বন বিভাগ সূত্রে জানা যায়, বমু ফরেস্ট রিজার্ভ ২৫ এপ্রিল ১৯৩১ সালে কক্সবাজার উত্তর বন বিভাগের তত্ত্বাবধানে বমু রিজার্ভ ফরেস্ট সৃজিত হয়। ২০০৫ সালে বমু রিজার্ভ লামা বন বিভাগের কাছে হস্তান্তর করা হয়। সংরক্ষিত ও রক্ষিত মিলে এই রিজার্ভের মোট আয়তন ২০১৯.৭৮ একর। বিভিন্ন মূল্যবান গাছের মাদার ট্রি’র জন্য বমু রিজার্ভ বিখ্যাত। এখানে শতবর্ষী গর্জন, তেশল, চাপালিশ, বয়েরা বৈলআম ও রং গামারী গাছ আছে। এছাড়া ২৫০ একর জায়গা জুড়ে রয়েছে মূল্যবান আগর বাগান।

 

লামা সদর রেঞ্জ কর্মকর্তা একেএম আতা এলাহি বলেন, অভিযান চালিয়ে জবরদখলকৃত বনভূমি উদ্ধার করা হয়েছে। এ কাজে জনপ্রতিনিধি, সাংবাদিক, স্থানীয় লোকজন সহায়তা করেছে। দখলমুক্ত জায়গায় দীর্ঘমেয়াদী বনজ গাছের চারা লাগানো হয়েছে।

 

পূর্বকোণ/রফিক/জেইউ/পারভেজ

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট