চট্টগ্রাম সোমবার, ২২ জুলাই, ২০২৪

সর্বশেষ:

সীতাকুণ্ডে লাইনের পাশে অবৈধ স্থাপনা, ট্রেন আসতে দেখা যায় না বহু স্থানে

এক বছরে ট্রেনের ধাক্কায় ১২ মৃত্যু

সৌমিত্র চক্রবর্তী

২৯ আগস্ট, ২০২৩ | ১:২২ অপরাহ্ণ

চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডে এক বছরে ট্রেনের ধাক্কায় নিহত হয়েছেন ১২ জন। উপজেলার সলিমপুর থেকে বারৈয়াঢালা পর্যন্ত এলাকায় ৩৭ কিমি রেললাইনে এসব দুর্ঘটনা সংগঠিত হয়। সর্বশেষ গত রবিবার উপজেলার সলিমপুর ফকিরহাটে ৩ জন নিহত ও ৩ জন আহত হয়েছে। নিহত ব্যক্তিদের অসতর্কতার পাশাপাশি রেললাইনের দুপাশে গড়ে উঠা অবৈধ স্থাপনার কারণে প্রতিনিয়ত ঘটছে এসব দুর্ঘটনা।

 

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, বন্দরনগরী চট্টগ্রামের প্রবেশদ্বার সীতাকুণ্ড উপজেলায় শুধু গত এক বছরেই ট্রেনের ধাক্কায় নিহত হয়েছেন ১২ জন। যার মধ্যে সবচেয়ে আলোচিত ঘটনা ঘটেছে গত রবিবার। এদিন দুপুর ১২টার দিকে চট্টগ্রামমুখী সোনার বাংলা এক্সপ্রেস উপজেলার ফকিরহাট এলাকায় একটি পুলিশ ভ্যানকে ধাক্কা দিলে তিন জন পুলিশ কনস্টেবল নিহত ও দুই পুলিশসহ একজন ইউপি সদস্য গুরুতর আহত হন। এছাড়া গত বছরের ২৫ ফেব্রুয়ারি ট্রেনের ধাক্কায় এক অজ্ঞাত ব্যক্তি, ২৫ মার্চ এক আদিবাসী যুবক, ১১ এপ্রিল এক ছাত্র, ১১ মে আরও এক অজ্ঞাত পরিচয় ব্যক্তি, ১৭ জুন অজ্ঞাত পরিচয় এক নারী, ২৯ জুলাই এক কিশোর এবং ২০ আগস্ট এক নারী নিহত হন।

 

জিআরপি ফাঁড়ি ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, এসব দুর্ঘটনার বেশিরভাগই ঘটেছে নিহতদের অসচেতনতায়। পাশাপাশি রেললাইনের দুপাশে গড়ে উঠা অবৈধ স্থাপনার কারণে দুর্ঘটনা ঘটছে বলে তারা জানান। সর্বশেষ রবিবার দুর্ঘটনার বিষয়ে সীতাকু- থানার ওসি তোফায়েল আহমেদ বলেন, সলিমপুর ফকিরহাটে রেল লাইনের পাশে অবৈধ স্থাপনা থাকায় পুলিশের গাড়িটি লাইনে উঠার আগে ট্রেনকে দেখতে পায়নি।

 

তিনি আরও বলেন, উপজেলার আরো অনেক স্থানেই রেলের জায়গা অবৈধভাবে দখল করে রেখেছে বিভিন্ন চক্র। এগুলো উদ্ধার না হলে আরো দুর্ঘটনা ঘটবে। এদিকে বড় ট্রেন দুর্ঘটনার পর প্রতিবার তদন্ত কমিটি গঠন করে রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ। এবারও একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন রেলওয়ে পূর্বাঞ্চলের মহাব্যবস্থাপক মো. জাহাঙ্গীর হোসেন। তিনি বলেন, চার সদস্যের কমিটিকে ৭ দিনের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে। তবে দুর্ঘটনা এড়ানোর উপায় নিয়ে তাৎক্ষণিক কিছু জানাতে পারেননি তিনি।

 

পূর্বকোণ/আরডি

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট