চট্টগ্রাম বুধবার, ২৪ জুলাই, ২০২৪

সর্বশেষ:

ফসলি জমি ভরাট করে পাকা ঘর নির্মাণ

মাইজপাড়ায় জলাবদ্ধতার দুর্ভোগ

জাহেদুল আলম, রাউজান

২৫ আগস্ট, ২০২৩ | ৮:৩১ অপরাহ্ণ

রাউজানে ফসলি জমি ভরাট করে পাকা ঘর নির্মাণের কারণে এলাকার পানি নিষ্কাশনের পথ বন্ধ হয়ে গেছে। এতে সামান্য বৃষ্টিতেই জলাবদ্ধতায় আশ-পাশের মানুষকে ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে। এলাকার সাধারণ মানুষের বারবার বাধা প্রদান সত্ত্বেও ওই পাকা ঘরটির নির্মাণকাজ বন্ধ না করে শ্রমিক বৃদ্ধি করে দ্রুতগতিতে কাজটি এগিয়ে নেয়া হচ্ছে।

উপজেলার কদলপুর ইউনিয়নের ৯ নম্বর মাইজপাড়া এলাকার দুবাইপ্রবাসী নুরুল আলম নিয়ম-নীতির তোয়াক্কা না করে ফসলি জমিতে এই পাকা দালান গড়ে তুলছেন বলে অভিযোগ করেছেন স্থানীয় বাসিন্দারা। এলাকার ভুক্তভোগী জহির মিয়া বলেন, ‘দুবাইপ্রবাসী নুরুল আলম ফসলি জমিতে অবৈধভাবে পাকা ঘর নির্মাণ করতে গিয়ে আমার ঘরের পশ্চিম ও উত্তর পাশে (দুইপাশে) নালা বন্ধ করে দিয়েছে। এতে আমার ঘরটির তিন পাশে পানি জমে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হচ্ছে প্রতিনিয়ত। এতে আমার ঘরটি সম্পূর্ণ নষ্ট হয়ে গেছে। এখানে আর কেউ বসবাস করতে পারে না।

পানি চলাচলের পথ বন্ধ করে ফেলায় এলাকার অন্যান্য জায়গাগুলোতেও জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়েছে।’ এলাকার বাসিন্দা ইব্রাহিম করিম বলেন, ‘এলাকার মানুষের বাধা উপেক্ষা করে দাপট দেখিয়ে ফসলি জমিতে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি করে দুবাইপ্রবাসী নুরুল আলমের স্ত্রী ডলি আকতার পাকাঘর নির্মাণের কাজ করেই যাচ্ছে। এতে ভবিষ্যতে আমাদের ঘরসহ এলাকার মানুষের বাড়িঘরে পানি ঢোকার আশঙ্কা রয়েছে।’ তিনি আরো বলেন, ‘ওই জমির অদূরে তাদের বাড়ি থাকলেও ডলি আকতার পাকা বাড়ি নির্মাণ করছেন এলাকায় পানি চলাচলের পথ বন্ধ করে।’

নির্মাণাধীন বাড়ির গৃহকর্তা নুরুল আলমের স্ত্রী ডলি আকতার বলেন, ‘পানির পথ যারা চায়, তাদেরকে আপসে আসতে হবে। তাতেই তারা পানির পথ পেতে পারে।’ তিনি দাবি করেন, যে জায়গায় বাড়ি নির্মাণ করা হচ্ছে, তা ফসলি জমি নয়, এটি ভিটা।’

স্থানীয় ইউপি সদস্য আলী আকবর বলেন, ‘পাকা দালান নির্মাণ হলেও পানি যাওয়ার কোন পথ না রাখায় সেখানে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হচ্ছে, সেটা আমি নিজেও দেখেছি। তবে এ বিষয়ে এলাকাবাসী অভিযোগ দিলে যথাথথ ব্যবস্থা নেয়ার জন্য চেয়ারম্যানকে বলবো।’ এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আবদুস শিকদার বলেন, ‘এ বিষয়ে খতিয়ে দেখে দায়ীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

 

পূর্বকোণ/সাফা/পারভেজ

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট