চট্টগ্রাম শুক্রবার, ১৯ জুলাই, ২০২৪

সর্বশেষ:

টেকনাফে এনজিওকর্মী ও রোহিঙ্গাসহ ৬ জন অপহৃত

টেকনাফ সংবাদদাতা

২১ জুলাই, ২০২৩ | ৯:০৭ অপরাহ্ণ

টেকনাফে দুইজন রোহিঙ্গা শরণার্থী, এনজিওকর্মী ও দিনমজুরসহ ৬ জন অপহরণের শিকার হয়েছেন। শুক্রবার (২১ জুলাই) টেকনাফ মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোহাম্মদ জোবাইর সৈয়দ বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন. গত বুধবার থেকে তিনদিন নানা কৌশলে অপহরণকারী চক্রের সদস্যরা টেকনাফ উপজেলার বিভিন্ন স্থান থেকে তাদের পৃথকভাবে অপহরণ করে।
অপহৃতরা হলেন টেকনাফ উপজেলার হোয়াইক্যং ইউনিয়নের ৬ নম্বর ওয়ার্ড মিনাবাজারের জামাল হোসেনের ছেলে মোহাম্মদ ইয়াসিন আরফাত (২১), একই এলাকার নুর কামালের ছেলে মোহাম্মদ নুর (২২), খারাংখালি এলাকার সোনালীর ছেলে মোহাম্মদ ইব্রাহিম (৩০) ও লেদা ২৪ নম্বর ক্যাম্পের  আমির হোসনের ছেলে সৈয়দ হোসেন (৫০), শালবাগান ২৬ নম্বর ক্যাম্পের হাকিম আলীর ছেলে সাইদুল ইসলাম (১৮) ও টেকনাফ জাদিমুড়া নয়াপাড়ার তজিলুর ইসলামের ছেলে হাসান মিস্ত্রি (৫০)।
অপহৃত ভিকটিমের পরিবার ও ক্যাম্পের মাঝির সূত্রে জানা যায়, বুধবার (১৯ জুলাই) দুপুরের দিকে অজ্ঞাত একটি মোবাইল নম্বর থেকে দিনমজুর মোহাম্মদ ইয়াসিন আরফাত (২১) ও মোহাম্মদ নুর (২২)কে ফোন করে কাজের কথা বলে টেকনাফ নিয়ে যায়। অপহরণের একদিন পর তাদের বাড়িতে ফোন করে মুক্তিপণ দাবি করে আসছে। একইদিন খারাংখালি এলাকার মোহাম্মদ ইব্রাহিম (৩০) প্রধানমন্ত্রীর উপহারের মুজিব বর্ষের ঘরের বিষয়ে ইউএনও অফিসে যাওয়ার জন্য বাড়ি থেকে বের হয়ে বাড়িতে ফেরত আসেনি। পরে ২৪ ঘণ্টা পর অপহৃত ভিকটিমের মোবাইল থেকে বাড়িতে ফোন করে বলে আমার ওপর খুব মারধর ও নির্যাতন চালাচ্ছে। আমার জন্য টাকা পাঠাও। আরেক অপহৃত রোহিঙ্গা সৈয়দ হোসাইন কাজের উদ্দেশ্যে বাড়ি থেকে বের হলে সেও বাড়িতে আর ফেরত আসেনি। তার পরিবারের কাছে ফোন করে দুই লক্ষ টাকা মুক্তিপণ দাবি করা হচ্ছে। এ ঘটনার একদিন পর শুক্রবার (২১ জুলাই) বিকাল ৪টার দিকে সাইদুল ইসলাম (১৮) ও হাসান মিস্ত্রি (৫০) শালবাগান ২৬ ক্যাম্পের পাহাড় সংলগ্ন এ/৯ ব্লক ফকিরাবাদ নামক এলাকায় পাহাড়ের মাঝে অবস্থিত রোহিঙ্গা ক্যাম্পের পানি সাপ্লাই মেশিন মেরামত করতে যান। তিনি বেসরকারি সংস্থা এনজিও ফোরামের কর্মী। হঠাৎ সন্ত্রাসীরা জোর করে মারধর করে তাদেরকে পাহাড়ের ভেতর নিয়ে যায়।
২১ জুলাই রাত সোয়া ৮টায় টেকনাফ মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোহাম্মদ জোবাইর সৈয়দ বলেন, ‘অপহরণের বিষয়ে আমরা ভিকটিমদের উদ্ধারে কাজ করছি। এখনো আমিসহ পুলিশের একাধিক টিম পাহাড়ের ভেতর উদ্ধার অভিযানে রয়েছি’। 
পূর্বকোণ/কাশেম/আরআর/পারভেজ

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট