চট্টগ্রাম শুক্রবার, ১৯ জুলাই, ২০২৪

সর্বশেষ:

লোহাগাড়ায় শিক্ষার্থী ধর্ষণ মামলার ২ ধর্ষক কারাগারে

লোহাগাড়া সংবাদদাতা

৬ জুন, ২০২৩ | ১১:০৯ অপরাহ্ণ

চট্টগ্রামে লোহাগাড়ার ৮ম শ্রেণির শিক্ষার্থী ধর্ষণ মামলার ২ পলাতক ধর্ষককে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন মিয়া মোহাম্মদ জয়নুল আবেদীন উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা সদস্য ও সাবেক চুনতি ইউপি চেয়ারম্যান সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী এবং প্রধান শিক্ষক শওকত ইসলাম।

 

আজ মঙ্গলবার (৬ জুন) তারা আসামিদের কারাগারে পাঠানোর বিষয়টি নিশ্চিত বলে পূর্বকোণকে জানিয়েছেন।

 

প্রধান শিক্ষক শওকত ইসলাম জানান, আসামিরা দীর্ঘদিন গা ঢাকা দেয়ার পর আজ জামিনের জন্য আদালতে আত্মসমর্পণ করতে গেলে আদালত জামিন নামঞ্জুর করে তাদের কারাগারে প্রেরণ করেন।

 

আসামিরা হল, চুনতি ইউনিয়নের ফারাঙ্গা এলাকার পানত্রিশার মনডুলার চর এলাকার মৃত মোজাফফর আহমদের ছেলে আবদুল হাফেজ (৩০) ও একই এলাকার মৃত সৈয়দ আহমদের ছেলে জাহাঙ্গীর আলম (৩০)।

 

জানা যায়, ধর্ষিতা শিক্ষার্থী মিয়া মোহাম্মদ জয়নুল আবেদীন উচ্চ বিদ্যালয়ের ৮ম শ্রেণির ছাত্রী। তার মা ৩ জনকে আসামি করে থানায় একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন ঘটনার পরপরই। মামলাটি দীর্ঘদিন তদন্তের পর তদন্তকারী কর্মকর্তা আসামিদের বিরুদ্ধে চার্জ গঠন করেন। এর মধ্যে ২ আসামি দীর্ঘদিন পলাতক থাকার পর আজ আদালতে আত্মসমর্পণ করতে গেলে আদালত তাদের জামিন নামঞ্জুর করে আদালতে পাঠানোর নির্দেশ দেন। অপর আসামি এখনো পলাতক রয়েছে।

 

স্থানীয়রা জানিয়েছে, স্কুলে আসা যাওয়ার পথে ভিকটিমকে আসামিরা দীর্ঘদিন নানারকম কথা বলে উত্যক্ত করে আসছিল। আসামিদের কুপ্রস্তাবে রাজি না হলে ২০২২ সালের ৬ জুন স্কুলে আসার পথে আসামিরা সোনাইছড়ির উত্তরে পাহাড়ি যাতায়াত সড়কে ভিকটিমকে ধারালো ছুরি দেখিয়ে ভয়-ভীতি প্রদর্শন করে। ওই সময় মূল আসামি আবদুল হাফেজ শিক্ষার্থীকে জোরপূর্বক পাহাড়ের জঙ্গলের ভেতর নিয়ে ধর্ষণ করে। একই সময় আসামিরা তাকে ধমক দিয়ে ঘটনা সম্পর্কে কাউকে না বলার জন্য হুমকি দেয়। অন্যতায় তাকে প্রাণে হত্যা করবে মর্মে সাবধান করে দেয়। পরে ভিকটিম ঘটনা সম্পর্কে তার মাকে বললে মা স্থানীয়দের পরামর্শে থানায় ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন। আসামিরা দীর্ঘদিন গা ঢাকা দিয়ে আত্মগোপন করায় পুলিশ তাদেরকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি।

 

পূর্বকোণ/মনির/জেইউ/পারভেজ

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট