চট্টগ্রাম বৃহষ্পতিবার, ০৮ জুন, ২০২৩

৮ মে, ২০২৩ | ১১:৪৯ পূর্বাহ্ণ

সৈয়দ মাহফুজ-উন নবী খোকন, সাতকানিয়া

সীমান্তরক্ষায় ঝাঁপিয়ে পড়ার প্রত্যয় লাকি ও সুহেলের

মানিকগঞ্জ সদর থানার লাকি আক্তার। খামারি বাবা, গৃহিণী মায়ের ঘরে এইচএসসি’র গণ্ডি চুকিয়ে ভর্তি হয়েছেন অনার্স প্রথম বর্ষে। এরমধ্যেই বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ বিজিবিতে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি দেখে আগ্রহ জন্মে যোগ দেয়ার, সীমান্ত রক্ষায় কাজ করার। অনলাইনে আবেদন করে নিয়োগ পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হন নারায়ণগঞ্জ ৬২ বিজিবি থেকে। এরপর ২০২২ সালের ২০ নভেম্বর রিক্রুট হিসেবে যাত্রা শুরু হয় লাকি আক্তারের। সীমান্ত রক্ষায় কাজ করার আগ্রহ নিয়ে বিজিবিতে যোগ দেওয়া লাকি আক্তার আজ থেকে শুরু করেছেন নবীন সৈনিক জীবন। তার নতুন এ যাত্রার শুরুতেই পুরস্কারের ঝুলিতে উঠলো শারীরিক উৎকর্ষতায় সেরা সৈনিকের পুরস্কার। নারীদের মধ্যে শারীরিক উৎকর্ষতায় শ্রেষ্ঠ হয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামালের হাত থেকে পুরস্কার গ্রহণ করেছেন তিনি।
লাকি আক্তার বলেন, দেশের জন্য, দেশের সীমান্ত রক্ষায় জীবনবাজি রেখে কাজ করে যেতে চাই। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মহোদয়ের হাত থেকে পুরস্কার প্রাপ্তি আমার জন্য সৌভাগ্যের। আমি এটিকে স্মরণ রেখে আরও বহুদূর এগিয়ে যেতে চাই। একইভাবে দেশমাতৃকার সেবার ব্রত নিয়ে বিজিবিতে যোগ দিয়েছেন ময়মনসিংহের সুহেল মিয়া। কৃষক গিয়াস উদ্দীনের ছেলে রিক্রুট হন ময়মনসিংহ বিজিবি ৩৯ থেকে। দীর্ঘ ছয় মাস প্রশিক্ষণ শেষে সব বিষয়ে শ্রেষ্ঠ পুরস্কার তার ঝুলিতে। হাতেজিয়া ডিগ্রি কলেজ থেকে এইচএসসি পাস করে অনার্স প্রথম বর্ষে পড়ছেন তিনি। সুহেল মিয়া বলেন, আজ থেকে সৈনিক জীবনে পদার্পণ করলাম। যখন যেখানে আমার উপর দায়িত্ব অর্পিত হবে আমি পিছ-পা হব না, দেশ মাতৃকার সেবায় ঝাঁপিয়ে পড়বো। বিশেষ করে সীমান্ত রক্ষা, মাদক চোরচালান বন্ধে আমি কাজ করবো।

 

 

পূর্বকোণ/এ

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট