চট্টগ্রাম শনিবার, ২০ জুলাই, ২০২৪

সর্বশেষ:

মহানগর বিএনপির কমিটি বিলুপ্ত

নতুন কমিটি গঠনে তোড়জোড়

নিজস্ব প্রতিবেদক

১৫ জুন, ২০২৪ | ১১:০৫ পূর্বাহ্ণ

কমিটি ঘোষণার সাড়ে তিন বছর পর বিলুপ্ত করা হয়েছে চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির আহ্বায়ক কমিটি। গত বৃহস্পতিবার (১৩ জুন) রাত সোয়া ১২টার দিকে বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল চট্টগ্রাম মহানগর আহ্বায়ক কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণা করেন। আহ্বায়ক কমিটির নাম পরে ঘোষণা করা হবে বলে দলের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।

 

বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক মাহবুবের রহমান শামীম বলেন, ‘মেয়াদ শেষ হয়েছে। তাই চট্টগ্রাম মহানগর আহ্বায়ক কমিটি বিলুপ্ত করা হয়েছে।’

 

বিএনপির কেন্দ্রীয় ভাইস চেয়ারম্যান মীর মোহাম্মদ নাসির উদ্দিন দৈনিক পূর্বকোণকে বলেন, ‘নতুন কমিটি করার জন্যে আহ্বায়ক কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণা করা হয়েছে। খুব দ্রুততার সাথে কেন্দ্র থেকে নতুন কমিটি ঘোষণা দেওয়া হবে।’

 

এদিকে আহ্বায়ক কমিটি বিলুপ্তের পর নতুন কমিটিতে আসতে দলের নেতাদের মধ্যে তোড়তোড় শুরু হয়েছে। এ নিয়ে অনেকে কেন্দ্রের সাথে যোগাযোগ করে যাচ্ছেন বলে বিএনপির একটি সূত্র জানিয়েছে।

 

২০২০ সালের ২৩ ডিসেম্বর চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির আহŸায়ক কমিটি ঘোষণা করেন দলের কেন্দ্রীয় কমিটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। ৩৯ সদস্যের এ কমিটিতে মহানগরে সাবেক সভাপতি ডা. শাহাদাত হোসেনকে আহবায়ক ও সাবেক সাধারণ সম্পাদক আবুল হাশেম বক্করকে সদস্য সচিব করা হয়েছিল। কমিটির নেতৃবৃন্দকে দ্রুততম সময়ে নগরীর থানা ও ওয়ার্ড কমিটি পুনর্গঠনের নির্দেশনা দেয় কেন্দ্র। কিন্তু কয়েক দফা উদ্যোগ নিলেও তা সম্ভব হয়নি। ২০২১ সালের অক্টোবরে পুনর্গঠন প্রক্রিয়ার শেষ পর্যায়ে এসে কেন্দ্রের নির্দেশে তা স্থগিত করা হয়।

 

বিএনপি সূত্র জানায়, আংশিক আহ্বায়ক কমিটি দিয়ে সাংগঠনিক কার্যক্রম চালানোর কারণে দলের মধ্যে নতুন নেতৃত্ব তেমন একটা উঠে আসেনি। তাছাড়া দলের মধ্যে যারা সক্রিয় নেতা ছিলেন তারাও দীর্ঘদিন ধরে আহ্বায়ক কমিটির শুধুমাত্র ‘সদস্য’ হিসেবে পরিচয় দিতে পারতেন, কোনো পদ-পদবি পরিচয় দিতে পারতেন না। এ নিয়ে তাদের মধ্যেও ছিল হতাশা।

 

সূত্র জানায়, নতুন একটি কমিটি হয় দুই বছর মেয়াদের। কিন্তু মূল কমিটি গঠনের আগে ঘোষণা দেওয়া হয় আহ্বায়ক কমিটি। কয়েক মাস মেয়াদের এ আহ্বায়ক কমিটিকে কাজ করতে হয় বছরের পর বছর। এ অবস্থায় কমিটির ভিতরে-বাইরে এক ধরনের হতাশা ছিল।

পূর্বকোণ/এসএ

শেয়ার করুন