চট্টগ্রাম রবিবার, ২১ জুলাই, ২০২৪

সর্বশেষ:

সাউথ এশিয়ান স্কুলে বিজ্ঞান অলিম্পিয়াড ও বিজ্ঞান মেলা

বিজ্ঞপ্তি

২২ সেপ্টেম্বর, ২০২৩ | ১:৩১ অপরাহ্ণ

সামাজিক ও সাংস্কৃতিক দায়বদ্ধতা থেকে বিজ্ঞানমুখী প্রজন্ম গড়ে তোলার লক্ষ্যে প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকেই প্রতিবছর বিজ্ঞান মেলার আয়োজন করে আসছে নগরীর প্রথম ও পূর্ণাঙ্গ ডিজিটাল স্কুল সাউথ এশিয়ান।

বৃহস্পতিবার (২১ সেপ্টেম্বর) স্কুল ক্যাম্পাসে ক্ষুদে বিজ্ঞানিরা তাদের তৈরি নানা প্রকল্প নিয়ে হাজির হয়েছিল উৎসবমূখর এই মেলায়।

তাদের তৈরি বৈদ্যুতিক পাওয়ার প্ল্যান্ট, ইলেট্রনিক স্যানিটাইজার, ভূমিকম্প সংকেত যন্ত্র, ইলেকট্রিসিটি জেনারেটর উইথ রেইন ওয়াটার, ভলকানো, থ্রী ডি হলোগ্রাম, ডিজিটাল সিটি, ফায়ার ফাইটিং রোবট ইত্যাদি উপস্থিত সুধীজনদের অবাক করে।

বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সৈয়দ লকিতুল্লার সভাপতিত্বে পুরস্কার বিতরণী সভার উদ্বোধন করেন চট্টগ্রাম সরকারী শিক্ষক প্রশিক্ষণ মহাবিদ্যালয়ের প্রফেসর ড. শামসুদ্দিন শিশির, প্রধান অতিথি ছিলেন নগরীর ১৫নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর গিয়াস উদ্দীন, প্রধান বক্তা ছিলেন সাংবাদিক নেতা রিয়াজ হায়দার চৌধুরী। বিশেষ অতিথি ছিলেন শিক্ষক প্রশিক্ষক আবদুল খালেক, বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক সালেহ উদ্দীন, একাডেমিক কোঅর্ডিনেটর এবং বিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষিকাবৃন্দ।

বিদ্যালয়ের শিক্ষিকা শামীমা নাসরিনের সঞ্চালনায় প্রধান অতিথি বলেন, ‘বিজ্ঞান এবং প্রযুক্তি শিক্ষার বিবেচনায় আমরা নির্দিষ্ট লক্ষ্যে পৌঁছতে পারিনি। বিভিন্ন কারণে বিজ্ঞান ও গণিত শিক্ষায় ছাত্ররা আগ্রহ হারাচ্ছে। ফলে বিজ্ঞানের ভবিষ্যৎ নিয়ে বাংলাদেশ অত্যন্ত ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় রয়েছে। তাই সরকারের রূপকল্প বাস্তবায়নে এখন থেকে প্রত্যেক শিক্ষার্থীকে বিজ্ঞানমনস্ক করে তুলতে পারলে তারা একদিন খ্যাতনামা বিজ্ঞানী হয়ে দেশের উন্নয়নে এগিয়ে আসবে।’

প্রধান শিক্ষক বলেন, ‘প্রযুক্তির ধারা অব্যাহত রাখতে এবং সরকারের রূপকল্প ২০৪১ বাস্তবায়নে শিক্ষাক্ষেত্রে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির ব্যবহার বাড়তে হবে। সেজন্য আমরা প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে স্কুলে নিয়মিত এ মেলার আয়োজন করে চলেছি।

মেলা শেষে সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি বিজ্ঞান অলিম্পিয়াড বিজয়ী এবং বিজ্ঞান মেলার উদ্ভাবকরা পুরস্কার এবং সনদপত্র তুলে দেন।

 

 

পূর্বকোণ/এসি

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট