চট্টগ্রাম সোমবার, ২২ জুলাই, ২০২৪

সর্বশেষ:

শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর : রানওয়ে প্রকল্পের কাজ শেষ হচ্ছে ডিসেম্বরে

নিজস্ব প্রতিবেদক

২৪ জুলাই, ২০২৩ | ১১:২৩ পূর্বাহ্ণ

চলতি বছরেই শেষ হতে যাচ্ছে চট্টগ্রাম শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের রানওয়ে ও টেক্সিওয়ে শক্তি বৃদ্ধিকরণ প্রকল্পের কাজ। ইতোমধ্যে প্রকল্পটির ৮৩ শতাংশ কাজ শেষ হয়েছে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা।

 

তবে প্রকল্পের আওতায় রানওয়ের কাজ পুরোপুরি শেষ হয়েছে জানিয়ে প্রকল্প সংশ্লিষ্টরা জানান,  এখন কেবল লাইটিং সিস্টেম ও বিদ্যুতায়নসহ ফিনিশিং বাকি রয়েছে। যা আগামী কয়েক মাসের মধ্যেই শেষ করা সম্ভব। এর ফলে আরও সক্ষমতা বাড়বে দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম এ বিমানবন্দরের।

 

এদিকে প্রকল্পের খোঁজ খবর নিতে চট্টগ্রাম শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর পরিদর্শনে আসেন বেসামরিক বিমান পরিবহণ ও পর্যটনমন্ত্রী মো. মাহবুব আলী। গতকাল রবিবার সকালে তিনি রানওয়ে ও টেক্সিওয়ে শক্তি বৃদ্ধি প্রকল্প এলাকা ঘুরে দেখেন। পাশাপাশি প্রকল্প সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের সাথে এ সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে আলাপ আলোচনা করেন। একইসঙ্গে প্রকল্পের অগ্রগতি নিয়েও বেশ কিছু পরামর্শ ও নির্দেশনা দেন তিনি।

 

জানতে চাইলে শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের পরিচালক উইং কমান্ডার তাসলিম আহমেদ বলেন, সকালে বিমানবন্দরের রানওয়ে ও টেক্সিওয়ে শক্তি বৃদ্ধিকরণ প্রকল্প পরিদর্শন করেন মন্ত্রী। এ সময় তিনি বেশ কিছু পরামর্শ ও নির্দেশ দিয়েছেন। আগামী ডিসেম্বরের মধ্যেই কাজ শেষ করতে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। ইতোমধ্যে প্রকল্পের প্রায় ৮৩ শতাংশ কাজ শেষ। সংশ্লিষ্ট বিভাগের পক্ষ থেকেও জানানো হয়েছে চলতি বছরের মধ্যেই কাজ শেষ হয়ে যাবে। ফলে বিমানবন্দর আরও বেশি শক্তিশালী হবে।

 

জানা যায়, ২০১৯ সালে শুরু হয় ৪৭২ কোটি টাকার রানওয়ে ও টেক্সিওয়ে শক্তি বৃদ্ধিকরণ প্রকল্পের কাজ। ২০২২ সালের ৩১ ডিসেম্বর প্রকল্পটির কাজ শেষ হবার কথা ছিল। কিন্তু করোনা মহামারিসহ অন্যান্য কিছু কারণে কাজের গতিতে স্থবিরতা ছিল বহুদিন। ফলে সঠিক সময়ে কাজ শেষ করা সম্ভব হয়নি। যদিও করোনার ধাক্কা কাটিয়ে প্রকল্পের কাজে গতি এসেছে। ইতোমধ্যে রানওয়ের কাজ শেষ হয়েছে। বাকি রয়েছে লাইটিং সিস্টেমসহ সামান্য কিছু কাজ।

 

প্রকল্প সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন, লাইটিং সিস্টেমসহ প্রকল্পটি বাস্তবায়ন হলে কুয়াশাসহ রাতের বেলায় ফ্লাইট অবতরণে বিদ্যমান কিছু সীমাবদ্ধতার অবসান ঘটবে। ফলে আরও কম ভিজিবিলিটিতে বিমান অবতরণ করতে সক্ষম হবে এ বিমানবন্দরে।

 

পূর্বকোণ/মাহমুদ

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট