চট্টগ্রাম বুধবার, ২৪ জুলাই, ২০২৪

সর্বশেষ:

পরিদর্শন শেষে সিডিএ চেয়ারম্যান

নভেম্বরের শুরুতেই চালু হচ্ছে এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে

নিজস্ব প্রতিবেদক

২৩ জুলাই, ২০২৩ | ১১:২৬ পূর্বাহ্ণ

চলতি বছরের নভেম্বরের প্রথম সপ্তাহে চালু হবে নগরীর বৃহৎ ফ্লাইওভার এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে। ইতোমধ্যে প্রকল্পের ৭ কিলোমিটার সড়কের কার্পেটিংসহ প্রায় শতভাগ কাজ শেষ হয়েছে। মূল ফ্লাইওভার চালু হলে ১৫-২০ মিনিটের মধ্যে লালখান বাজার থেকে পতেঙ্গা পৌঁছে যাবে মানুষ। এই ফ্লাইওভার ব্যবহার করে প্রবাসীরা ভোগান্তি ছাড়াই বিমানবন্দরে পৌঁছাতে পারবেন।

 

গতকাল (শনিবার) দুপুরে পতেঙ্গা এলাকায় এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে পরিদর্শন শেষে চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (সিডিএ) চেয়ারম্যান এম জহিরুল আলম দোভাষ সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন।

 

প্রধানমন্ত্রী এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে উদ্বোধন করবেন জানিয়ে সিডিএ চেয়ারম্যান বলেন, নভেম্বরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মূল ফ্লাইওভার উদ্বোধন করবেন। উদ্বোধনের পর পরই ফ্লাইওভারটি যান চলাচলের জন্য উন্মুক্ত করে দেয়া হবে। নগরীর যানজট কমাতে এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে বলে জানান তিনি।

 

প্রকল্পের অগ্রগতির কথা তুলে ধরে এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ের প্রকল্প পরিচালক মো. মাহফুজুর রহমান বলেন, বর্তমানে প্রকল্পের ৮০ শতাংশ কাজ শেষ হয়েছে। বাকি কাজগুলো দ্রুত সময়ের মধ্যে শেষ করার জন্য আমরা সর্বোচ্চ চেষ্টা করে যাচ্ছি। ফ্লাইওভার নির্মাণে অনেক বাধা অতিক্রম করতে হয়েছে। বর্তমানে সব বাধা কাটিয়ে কাজ দ্রুত এগিয়ে যাচ্ছে।

 

নগরীর বিভিন্ন পয়েন্টে ফ্লাইওভারে উঠা-নামার জন্য ১৪টি র‌্যাম্প নির্মাণ করা হবে জানিয়ে প্রকল্প পরিচালক বলেন, মূল ফ্লাইওভারের সাথে ১৪টি র‌্যাম্প থাকবে। এসব র‌্যাম্পের মাধ্যমে বিভিন্ন পয়েন্টে মানুষ ফ্লাইওভারে উঠা-নামা করতে পারবে। বর্তমানে আমাদের লক্ষ্য হচ্ছে মূল ফ্লাইওভার চালু করা। মূল ফ্লাইওভার চালু হলে আমরা র‌্যাম্প নির্মাণের কাজ করবো। মানুষের ভোগান্তির কথা ভেবে আমরা এখন র‌্যাম্পের কাজ করছি না।

 

এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে পরিদর্শনের সময় উপস্থিত ছিলেন সিডিএ’র প্রধান প্রকৌশলী কাজী হাসান বিন শামস, মাক্সের প্রজেক্ট ম্যানেজার মনির হোসেন, পরামর্শক প্রতিষ্ঠানের টিম লিডার মো. কাশেম প্রমুখ ।

 

উল্লেখ্য, বিমানবন্দর কেন্দ্রিক যানজট নিরসনে চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (সিডিএ) এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে নির্মাণের উদ্যোগ গ্রহণ করে। তিন হাজার ২৫০ কোটি টাকা ব্যয়ে লালখান বাজার থেকে বিমানবন্দর পর্যন্ত এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে নির্মাণ প্রকল্পটি ২০১৭ সালের ১১ জুলাই একনেকে অনুমোদন পায়। পরবর্তীতে এক হাজার ৪৮ কোটি টাকা বৃদ্ধি পেয়ে চার হাজার ২৯৮ কোটি টাকা করা হয়। ২০১৯ বছরের ফেব্রুয়ারিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ের নির্মাণ কাজ উদ্বোধন করেন।

 

পূর্বকোণ/মাহমুদ

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট