চট্টগ্রাম মঙ্গলবার, ২২ অক্টোবর, ২০১৯

সর্বশেষ:

৬ আগস্ট, ২০১৯ | ১১:১৭ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক

কিছু ভাঙলেই খুন্তির ছ্যাঁকা গৃহকর্মীকে, ব্যাংক কর্মকর্তার স্ত্রী আটক

১২ বছরের অনাথ শিশু ইয়াছমিন আকতার। গ্রামের বাড়ি কক্সবাজারের চকরিয়া থানাধীন ডুলাহাজরা সাফারি পার্ক এলাকায়। বাবা-মা হারানোর পর দু’বেলা খাওয়ার আশায় গৃহকর্মী হিসেবে কাজ নেন চট্টগ্রামের লালখান বাজার এলাকার এক ব্যাংক কর্মকর্তার বাসায়। তবে খাবারের বদলে প্রতিদিন নির্যাতন সহ্য করতে হত অনাথ শিশু ইয়াছমিনকে। কাজের সময় হাত থেকে পড়ে কিছু ভাঙলে কিংবা কাজ পছন্দ না হলে ইয়াছমিনের ছোট্ট শরীরে খুন্তি দিয়ে ছ্যাঁকা দিত গৃহকত্রী আরফা আক্তার (২৮)। পাশাপাশি শরীরে ঢেলে দিত গরম পানি। 

আজ মঙ্গলবার গৃহকত্রী আরফা আক্তারকে আটকের পর পূর্বকোণকে এ তথ্য জানান নগরীর খুলশী থানার এসআই (উপ-পরিদর্শক) খাজা এনাম এলাহী।

তিনি বলেন, ‘থানা এলাকায় মোবাইল ডিউটি করাকালীন আমাকে থানা থেকে জানানো হয়, লালখান বাজারের চাঁনমারি এলাকায়  কামার পাড় নামের একটি বহুতল ভবনের ৮ তলার ‘ই এইট’ ফ্লাটে এক গৃহকর্মীকে নির্যাতন করেছে গৃহকত্রী। এ খবর  পেয়েই ঘটনাস্থলে যাই। কিন্তু পুলিশ আসার খবর পেয়ে ভেতর থেকে দরজা বন্ধ করে রাখায় ওই ফ্লাটে ঢুকতে আমাদের এক ঘণ্টা সময় লাগে। পরে ভবনের দায়িত্বরত ব্যক্তিদের সহযোগিতায় ফ্লাটের দরজা খুলে নির্যাতনের শিকার গৃহকর্মী উদ্ধার করে গৃহকত্রী আরফা আক্তারকে (২৮)  আটক করি। উদ্ধারকালীন সময় গৃহকর্মী ইয়াছমিন আক্তারের শরীরের বিভিন্ন অংশে আঘাতের চিহ্ন পাওয়া যায়। ধারণা করা হচ্ছে খুুন্তি দিয়ে ছ্যাঁকা দেয়ার পাশাপাশি বেত দিয়ে আঘাত ও গরম পানি দিয়ে ঝলসে দেয়া হয়েছে গৃহকর্মী ইয়াছমিন আক্তারের শরীরের বিভিন্ন অংশ।’

নির্যাতনের খবর পুলিশ কিভাবে পেলো জানতে চাইলে এই পুলিশ কর্মকর্তা বলেন, আটক হওয়া গৃহকত্রী আরফা আক্তারের বাসায় ইয়াছমিন আক্তারের পাশাপাশি তানিয়া আক্তার নামে আরো এক গৃহকর্মী কাজ করতো। কিন্তু তানিয়া ইয়াছমিনের মত তাদের বাসায় থেকে কাজ করতেন না। একদিন তানিয়া ইয়াছমিনের শরীরে আঘাতের চিহ্ন দেখে জানতে চায়, কেন তাকে মারা হয়েছে এবং কে মেরেছে? পরে ইয়াছমিন তানিয়াকে বিষয়টি খুলে বলে। ইয়াছমিনকে এ নির্যাতনের হাত থেকে বাঁচাতে তানিয়া স্থানীয়দের বিষয়টি জানায়। পরে স্থানীয়রা থানায় বিষয়টি অবহিত করলে পুলিশ অভিযুক্ত গৃহকত্রীকে আটক করে। একইসঙ্গে গৃহকর্মী ইয়াছমিনকে উদ্ধার করে। তার বিরুদ্ধে থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলেও জানান তিনি।

নির্যাতনের দায়ে আটক হওয়া গৃহকত্রী আরফা আক্তার (২৮) লালখান বাজারের চাঁনমারি এলাকার বাসিন্দা বখতিয়ারের স্ত্রী। তার স্বামী বখতিয়ার চট্টগ্রামের ব্র্যাক ব্যাংকের একটি শাখায় কর্মরত আছেন বলে জানা যায়।

পূর্বকোণ/আল-আমিন

The Post Viewed By: 64372 People

সম্পর্কিত পোস্ট