চট্টগ্রাম শুক্রবার, ২৫ সেপ্টেম্বর, ২০২০

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার অর্থায়ন স্থগিত করলেন ট্রাম্প

১৫ এপ্রিল, ২০২০ | ১১:৫৯ পূর্বাহ্ণ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার অর্থায়ন স্থগিত করলেন ট্রাম্প

করোনা মহামারির মধ্যেই বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) মার্কিন অর্থায়ন স্থগিত করার নির্দেশ দিলেন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। এর আগে দীর্ঘদিন ধরে সংস্থাটির প্রধানের বিরুদ্ধে নানা বিষোদগার করার পর অবশেষে এই পদক্ষেপ নিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট।

করোনাভাইরাস প্রাদুর্ভাবের সময় সংস্থাটি তাদের ‘প্রাথমিক দায়িত্ব পালন করতে ব্যর্থ’ হয়েছে বলে অভিযোগ তুলে তিনি অর্থায়ন স্থগিত করার নির্দেশ দেন।

চীনে ভাইরাস প্রাদুর্ভাব শুরু হওয়ার পর জাতিসংঘের এই সংস্থাটির অব্যবস্থাপনার সমালোচনা করার পাশাপাশি তারা সত্য ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা করেছে বলেও অভিযোগ তুলেছিলেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প।

এর আগে তিনি ডব্লিউএইচও’র প্রধান ড. টেড্রস অ্যাডহানম গেব্রেইয়েসুসের বিরুদ্ধে চীনের প্রতি পক্ষপাতমূলক আচরণের অভিযোগ তুলেছিলেন।

এদিকে জাতিসংঘ মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেস মার্কিন প্রেসিডেন্টের এই সিদ্ধান্তের প্রতিক্রিয়ায় বলেছেন, এখন বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার অর্থায়ন কমানোর সঠিক সময় নয়।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট তার নিজের দেশের করোনাভাইরাস প্রাদুর্ভাব সামলানোর বিষয়টি নিয়ে সমালোচিত হলেও হোয়াইট হাউজে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, ‘বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা তাদের প্রাথমিক দায়িত্ব পালনে ব্যর্থ হয়েছে এবং তাদের জবাবদিহিতার আওতায় আনতে হবে।’

এককভাবে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার তহবিলে সবচেয়ে বড় অঙ্কের অর্থায়ন করে থাকে যুক্তরাষ্ট্র। গত বছর এই তহবিলে যুক্তরাষ্ট্র দিয়েছে ৪০ কোটি ডলার, যা ছিল সংস্থাটির বার্ষিক বাজেটের প্রায় ১৫%।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার ওয়েবসাইটের তথ্য অনুযায়ী, ২০১৮-১৯ সালে সেখানে চীনের অবদান ছিল ৭.৬ কোটি ডলার এবং স্বপ্রনোদিত অনুদান ১ কোটি ডলার।

বিশ্বব্যাপী করোনাভাইরাস প্রাদুর্ভাব মোকাবেলার লক্ষ্যে মার্চে সাড়ে ৬৭ কোটি ডলারের আবেদন করেছে সংস্থাটি। এছাড়া সামনে ডব্লিউএইচও আরও ১০০ কোটি ডলারের আবেদন করতে যাচ্ছে বলে জানা গেছে।

প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের অভিযোগ, চীনের উহানে যখন করোনাভাইরাস প্রাদুর্ভাব শুরু হলো, তখন ডব্লিউএইচও এর গুরুত্ব সঠিকভাবে অনুধাবন করতে ব্যর্থ হয়েছে।

তিনি বলেন, ‘ডব্লিউএইচও যদি বিশেষজ্ঞদের দিয়ে চীনের পরিস্থিতি যাচাই করতো এবং চীনের অস্বচ্ছতা প্রকাশ করে দিতো, তাহলে প্রাদুর্ভাব উৎসতেই নিয়ন্ত্রণ করা যেতো, মৃত্যুও অনেক কম হতো। কিন্তু তা না করে সংস্থাটি চীন সরকারের কার্যক্রমকে সমর্থন দিয়েছে।’

এর আগে করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে চীনের পক্ষ নেয়ায় বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা প্রধানের পদত্যাগ দাবি করেছিলেন মার্কিন রিপাবলিকান সিনেটর মার্থা ম্যাকশ্যালি। এসময় তিনি করোনা ব্যবস্থাপনায় চীনের পদক্ষেপেরও তীব্র সমালোচনা করেন। সূত্র:বিবিসি

 

পূর্বকোণ/পিআর

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 372 People

সম্পর্কিত পোস্ট