চট্টগ্রাম শনিবার, ২০ জুলাই, ২০২৪

সর্বশেষ:

দলের পক্ষ থেকে সমর্থকদের কছে ক্ষমা চাইলেন অধিনায়ক শান্ত

স্পোর্টস ডেস্ক

২৫ জুন, ২০২৪ | ৪:৪৪ অপরাহ্ণ

টি টোয়েন্টি আসরে এবার প্রথম সেরা আটে খেলল বাংলাদেশ। বোলারদের নৈপুণ্যে তিন ম্যাচ জিতে সুপার এইটে উঠেছিল বাংলাদেশ। ব্যাটিং বিভাগ ছিল খুবই নড়বড়ে। তারপরও বাংলাদেশের সামনে সুযোগ এসেছিল সেমিফাইনালে যাওয়ার। কিন্তু ব্যাটিং ব্যর্থতা মাথায় নিয়েই শেষ ম্যাচ হেরে টুর্নামেন্ট শেষ করল তারা।

 

মঙ্গলবার (২৫ জুন) আফগানদের কাছে ৮ রানের এই হারে বিশ্বকাপ থেকে বিদায় নিশ্চিত হয়েছে বাংলাদেশের। হতাশায় ভরা এই বিশ্বকাপে নিজেদের সামগ্রিক পারফরম্যান্স নিয়ে সমর্থকদের কাছে ক্ষমা চাইলেন নাজমুল হোসেন শান্ত। টুর্নামেন্ট থেকে বিদায়ের পর ব্যাটিং ব্যর্থতা মেনে নিয়ে কয়েকবার ‘সরি’ বললেন বাংলাদেশ অধিনায়ক।

 

সুপার এইটের প্রথম দুই ম্যাচ হারলেও আফগানিস্তান ম্যাচে বাংলাদেশের সামনে ছিল সেমি-ফাইনালে ওঠার সুবর্ণ সুযোগ। সেন্ট ভিনসেন্টে মঙ্গলবার বোলারদের নৈপুণ্যে আফগানদের ১১৫ রানে থামায় তারা। পরে ১২.১ ওভারে এই রান তাড়া করতে পারলেই অস্ট্রেলিয়া ও আফগানিস্তানকে টপকে তারাই পেত সেরা চারের টিকেট।

 

নাজমুল হোসেন শান্ত বলেন, ‘সব মিলিয়ে টুর্নামেন্ট নিয়ে বলবো, দল হিসেবে পুরো বাংলাদেশের সমর্থকদের হতাশ করেছি। যারা আমাদের খেলা দেখেন, সব সময় আমাদের সমর্থন করেন, তাদের আমরা হতাশ করেছি। আমি দলের পক্ষ থেকে ক্ষমাপ্রার্থী।’

 

ব্যাটিং ব্যর্থতার কথা স্বীকার করে শান্ত বলেছেন, ‘আমরা ব্যাটিং গ্রুপ হিসেবে দেশের মানুষকে ভালো কিছু দিতে পারিনি। এটার জন্য আমরা ক্ষমাপ্রার্থী। সামনের দিকে আমাদের এটাই চেষ্টা থাকবে, কীভাবে এখান থেকে বের হয়ে আসতে পারি।’

 

সমর্থকদের প্রত্যাশার প্রতিফলন ঘটাতে না পারলেও তাদের দিক থেকে চেষ্টার কোনও ত্রুটি ছিল না বলে জানান বাংলাদেশের অধিনায়ক, ‘ইতিবাচক দিক অবশ্যই বোলাররা খুবই ভালো বোলিং করেছে। রিশাদ (হোসেন) এরকম একটা প্রতিযোগিতায় এসে সবগুলা ম্যাচে ভালো বোলিং করেছে। তো বেশ কিছু ইতিবাচক দিকও ছিল। তবে ব্যাটিংয়ের দিক থেকে আমরা সমর্থকদের হতাশ করেছি। দেশের মানুষকে বলতে গেলে কষ্ট দিয়েছি। তবে এটাও আমি বলতে চাই চেষ্টার কমতি ছিল না। শতভাগ দিয়ে সবাই চেষ্টা করেছে। সবাই নিজের কাজে সৎ ছিল। তবে দিন শেষে আমরা পারিনি। তাই এটার জন্য ক্ষমা চাইছি।’

 

আফগানদের কাছে হারটা মেনে নিতে পারছেন না শান্ত। ৮ রানের এই হার বাংলাদেশের অধিনায়ককে ভীষণ পোড়াচ্ছে, ‘হার অনেক হতাশার এবং অনেক কষ্টেরও। এই ম্যাচ খেলতে আসার আগে সবারই পরিকল্পনা ছিল ম্যাচটা আগে আমরা জিতবো। কিন্তু যদি সে রকম পরিস্থিতি হয়, ওই সুযোগটা আমরা নেবো (সেমিফাইনালের সমীকরণ)। যেটা আমাদের হাতে ছিল, সেটা নিতে পারিনি। পুরো ব্যাটিং গ্রুপই বাজে বাজে সিদ্ধান্ত নিয়েছি।’

পূর্বকোণ/পিআর

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট