চট্টগ্রাম শনিবার, ২০ জুলাই, ২০২৪

সর্বশেষ:

বিএনপি ভোট নয় জনগণের ভাগ্য নিয়ে ছিনিমিনি খেলতে চায় : প্রধানমন্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক

১ সেপ্টেম্বর, ২০২৩ | ৭:৩৬ অপরাহ্ণ

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, বিএনপি ভোট করতে আসে না। তারা জনগণের ভাগ্য নিয়ে ছিনিমিনি খেলতে চায়। বিএনপি নাকি গণতন্ত্রের কথা বলে। যাদের জন্মই সেনা স্বৈরশাসকের হাতে, তারাই নাকি আবার গণতন্ত্র উদ্ধার করবে। মানুষ তাদের আর ভোট দেয় না। কেননা তারা ভোট চোর, জঙ্গি, লুটেরা।

 

শুক্রবার বিকেলে ঐতিহাসিক সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে ছাত্রলীগ আয়োজিত ছাত্রসমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

শেখ হাসিনা বলেন, অশিক্ষিতদের হাতে দেশ পড়লে দেশের অগ্রযাত্রা হতে পারে না। খালেদা জিয়া দেশকে দুর্নীতিতে পরপর পাঁচ বার চ্যাম্পিয়ন করেছিলো। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে ছিলো অস্ত্রের ঝনঝনানি। সারাদেশ ছিলো জঙ্গি, সন্ত্রাসীদের। তাদের কাজ বিভ্রান্তি ছড়ানো। সর্বজনীন পেনশন স্কিম চালু করেছি মানুষের জন্য। অথচ এটা নিয়েও বিএনপি বিভ্রান্তি ছড়াচ্ছে। নিজেরা কিছু করতে পারে না, আর আমরা মানুষের জন্য করতে গেলে সেটা নিয়ে বিভ্রান্ত করছে মানুষকে। সর্বজনীন পেনশন স্ক্রিম নিয়ে বিএনপির বিভ্রান্তিতে কেউ যেন কান না দেয়।

 

নিজের নয়, দেশের মানুষের ভাগ্য গড়তে এসেছি মন্তব্য করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রেখে দেশকে এগিয়ে নিয়ে যেতে হবে। এখন অনেক আন্তর্জাতিক সংস্থা দেখি মানবাধিকারের কথা বলে। কিন্তু ১৫ আগস্টের পর তো আমরা বিচার চাইতে পারিনি। তবে কোনো বাধা আমাকে আটকাতে পারেনি। আমি মৃত্যুকে ভয় করিনি। মৃত্যুঝুঁকি নিয়ে দেশে ফিরেছি। দেশে ফেরার পর সারাদেশ ঘুরেছি। দেখতে চেয়েছি বাবা-মার রক্ত নিয়ে তারা মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করতে পেরেছে কি না। ১৯৭৫ এর পর যে ক্ষমতা ক্যান্টনমেন্টে বন্দি করা হয়েছিলো, আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় এসে জনগণের ক্ষমতা জনগণের হাতে ফিরিয়ে দিয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, যারা এখন অন্ধ, দেশের উন্নয়ন দেখে না, আসলে তাদের মনের দরজাই অন্ধকার। যারা দেশের উন্নয়ন দেখে না তারা অপশক্তির পদলেহনকারি। দেশকে স্মার্ট বাংলাদেশ হিসেবে গড়ে তোলা হচ্ছে। ২০৪১ সালের মধ্যে বাংলাদেশ হবে স্মার্ট, আধুনিক প্রযুক্তি সম্পন্ন জ্ঞানভিত্তিক দেশ।

 

পূর্বকোণ/রাজীব/পারভেজ

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট