চট্টগ্রাম সোমবার, ২২ জুলাই, ২০২৪

সর্বশেষ:

বিমানের ককপিটের গ্লাসে ফাটল, চট্টগ্রাম-আবুধাবি ফ্লাইট উড্ডয়নের দু’ঘণ্টা পর ঢাকা ফেরত

ইউএই প্রতিনিধি

২৬ জুন, ২০২৪ | ১২:১৩ পূর্বাহ্ণ

বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স বিমানের ফ্লাইট নম্বর বিজি-১২৭ ১৩৮ জন যাত্রী নিয়ে চট্টগ্রাম থেকে আবুধাবি যাওয়ার কথা থাকলেও যান্ত্রিক ত্রুটির কারণে উড্ডয়নের দুই ঘণ্টা পর ভারতের আকাশসীমা থেকে বাংলাদেশে ফিরেে আসে কোনরকম বিপদ ছাড়াই।

 

সোমবার (২৪ জুন) রাত ৯টা ৪০ মিনিটে চট্টগ্রাম থেকে রওনা হয় ফ্লাইটটি।

 

জানা যায়, যাত্রীরা প্রাণে রক্ষা পায়। এয়ারক্রাফটটি ছিল বোয়িং ৭৩৭-৮০০ বিমান। এটি চট্টগ্রাম থেকে উড্ডয়নের পর কলকাতার আকাশ সীমায় পৌঁছালে ককপিটের বাম পাশের গ্লাস ফেটে বিকট আওয়াজের সৃষ্টি হয়। এতে পাইলট বিমানটি নিয়ে অগ্রসর হওয়া নিরাপদ মনে না করায় তা দু ঘণ্টা জ্বালানি নিঃশেষে ঢাকা-কলকাতার আকাশে ওড়াওড়ির পর শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করে। বিমানটিকে পরীক্ষা-নিরীক্ষার জন্য এয়ার হ্যাঙ্গারে পাঠিয়ে দেয়া হয় এবং আরেকটি ফ্লাইটে যাত্রীদের ঢাকা থেকে আবুধাবি পাঠানো হয়।

 

বাংলাদেশ সময় ৩টা ৫ মিনিটে বিকল্প ফ্লাইটটি শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে আবুধাবির উদ্দেশ্য রওনা হয়। এবং স্থানীয় সময় ভোর ৫টা ৪০ মিনিটে আবুধাবির শেখ যায়েদ ইন্টারন্যাশনাল এয়ারপোর্টে অবতরণ করে।

 

এদিকে এই যান্ত্রিক সমস্যার কারণে মূল ফ্লাইট পরিত্যক্ত হবার পর বিকল্প ফ্লাইটটি নির্ধারিত সময়ের প্রায় ৫ ঘণ্টা বিলম্বে (বিজি ৩২৮ নম্বর ফ্লাইট) সোমবার স্থানীয় সময় সকাল ৭:১০টায় ১৪৬ জন যাত্রী নিয়ে ঢাকার উদ্দেশ্যে আবুধাবি ত্যাগ করে বলে বিমানের আবুধাবি সেলস অফিসে কর্মরত সেলস এক্সিকিউটিভ এস এম মোর্শেদ পূর্বকোণকে জানান।

 

এ বিলম্বের কারণে আবুধাবি এয়ারপোর্টেও যাত্রীদের মধ্যে অসন্তুষ দেখা দেয়।

 

বিমানের যাত্রী চট্টগ্রামের বোয়ালখালী প্রবাসী আবুধাবির মেডিক্লিনিক আল নূর হাসপাতালের স্টোর অফিসার সৈয়দ জয়নাল আবেদীন চৌধুরী পূর্বকোণকে জানান, উড্ডয়নের ৪০-৪৫ মিনিটের মধ্যে যাত্রীদের জানানো হয় যান্ত্রিক সমস্যার কারণে তাদের ঢাকা ফিরে যেতে হচ্ছে। অন্যদিকে জ্বালানি নিঃশেষ করার জন্য বিমান ঢাকা ও কলকাতার আকাশ সীমায় ওড়াওড়ি করতে থাকে এবং যাত্রীদের মধ্যে উত্তেজনা প্রশমনে নৈশভোজ বিতরণ করা হয়।

 

এ ধরনের সমস্যায় ফ্লাইটের জন্য কোন রিস্ক ফ্যাক্টর আছে কি না সে প্রশ্নের জবাবে বিমানের সেলস এক্সিকিউটিভ এস এম মোর্শেদ বলেন, অবশ্যই আছে সেজন্যই তো মধ্যাকাশ থেকে বিমানটি ফিরিয়ে নেয়া হয়েছে ঢাকায়।

 

এ ব্যাপারে বিমানের ভারপ্রাপ্ত রিজিওনাল ম্যানেজার এবং আবুধাবির স্টেশন ম্যানেজারের সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করেও তাদের পাওয়া যায়নি।

 

 

 

পূর্বকোণ/বাপ্পি/জেইউ/পারভেজ

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট