চট্টগ্রাম মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই, ২০২৪

সর্বশেষ:

সুবিধাবঞ্চিতদের এক লাখ টাকা ঈদ সালামি দিলেন সিএমপি কমিশনার

অনলাইন ডেস্ক

১৮ জুন, ২০২৪ | ৯:০২ অপরাহ্ণ

ধনী-দরিদ্র সবার জন্য দিনব্যাপী ঈদ উৎসবের আয়োজন করেছে চট্রগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশ ও বিদ্যানন্দ। কর্মসূচিতে ছিল চট্রগ্রামের ঐতিহ্যবাহী মেজবান, শিশুদের জন্য বিভিন্ন রাইডস, মায়েদের জন্য খেলাধুলা ও সাংস্কৃতিক আয়োজন এবং গণসালামি!

 

মঙ্গলবার ( ১৮ জুন) ঈদের দ্বিতীয় দিন নগরীর বাকলিয়ার অভিজাত রাজবাড়ি কনভেনশন সেন্টারে এই আয়োজন করা হয়। সকাল ১১ টায় এর উদ্বোধন করেন চট্রগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার কৃষ্ণ পদ রায়।  সেখানে নগরীর ছিন্নমূল ও নিম্ন আয়ের প্রায় ১০০০ মানুষ অংশগ্রহণ করেন। তাদের বেশিরভাগ শিশু,মহিলা ও বৃদ্ধ। ঈদের আগে বিদ্যানন্দের একদল ভলান্টিয়ার তাদের ঘরে ঘরে গিয়ে দাওয়াত করে আসে।

 

২০০০ ছিন্নমূল মানুষের জন্য মেজবানের পাশাপাশি বিভিন্ন পরিবারে ঈদ উপহার হিসেবে পুষ্টিকর খাবারের ঝুড়ি ও নতুন কাপড় বিতরণ করেন সিএমপি কমিশনার। এছাড়াও তিনি শিশু ও বয়স্কদের মাঝে ঈদ সালামি বিতরণ করেন। পরে বিদ্যানন্দের মাধ্যমে ছিন্নমূলদের মাঝে বিতরনের জন্য তিনি ১ লক্ষ টাকা ঈদ সালামি প্রদান করেন।

 

পরে তিনি ছিন্নমূল শিশুদের সাথে এক টেবিলে আহার করেন এবং সবার শেষে বিভিন্ন খেলাধুলায় অংশগ্রহণ করেন ও গণমানুষের সাথে ঈদ শুভেচ্ছা বিনিময় করেন।

 

প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন, “বিভিন্ন উৎসবের আনন্দ সুবিধাবঞ্চিতদের মাঝে ছড়িয়ে দিতে বিদ্যানন্দ যে সকল উদ্যোগ গ্রহন করে তার অংশীদার হতে পেরে সিএমপি পরিবার খুবই আনন্দিত”।

 

এ আয়োজনের ব্যাপারে বিদ্যানন্দ ফাউন্ডেশনের বোর্ড সদস্য জামাল উদ্দিন বলেন, “ধনী-গরীবের বৈষম্য দূর করার জন্য আমরা প্রতি বছর এ ধরনের আয়োজন করে থাকি। ছিন্নমূল মানুষকে সাধারণত ত্রাণ প্রদান/দান করা হয়, কিন্তু তাদের কখনো দাওয়াত করে বাসায় অথবা অভিজাত কমিউনিটি সেন্টারে খাওয়ানো হয় না। বৈষম্য শুধু আর্থিক হয় তা না,মনের বৈষম্য বা চিন্তার বৈষম্যই সবচেয়ে বড় বৈষম্য। এই আয়োজনের মাধ্যমে আমরা সেটি ভাংগতে চেয়েছি”।

 

বাস্তুহারা বস্তি থেকে আসা ফাতেমা বিবি বলেন, “এরকম এত সুন্দর এসি কমিনিউটি সেন্টারে আমি কখনো প্রবেশের সুযোগ পাইনি, এতো সুন্দর আয়োজনে সম্মান করে কেউ কখনো খাওয়ায়নি, আমি খুব খুশি”।

 

অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন ডিসি (হেড কোয়ার্টারস) আব্দুল ওয়ারেশসহ সিএমপি ও বিদ্যানন্দের বিভিন্ন পযায়ের কর্মকর্তাবৃন্দ।

 

 

পূর্বকোণ/আরআর/পারভেজ

শেয়ার করুন