চট্টগ্রাম সোমবার, ২১ অক্টোবর, ২০১৯

সর্বশেষ:

২২ আগস্ট, ২০১৯ | ২:৪১ অপরাহ্ণ

কর্ণফুলী সংবাদদাতা

প্রতারণার অভিযোগ বৈদ্যকে পিটিয়ে পুলিশে দিল জনতা

কর্ণফুলী উপজেলায় মাটির নিচ থেকে সোনার হাড়ি তুলে দেওয়া হবে আশ্বাসে গত কয়েক মাসে এক নারীর কাছ থেকে এক লাখ ২০ হাজার টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগে বৈদ্যকে পিটিয়ে পুলিশে দিয়েছে জনতা। গতকাল বুধবার বিকেল উপজেলার বড় উঠান ইউনিয়নের দৌলতপুর গ্রামের ১ নম্বর ওয়ার্ডস্থ ভূট্টাইয়া কলোনী থেকে থেকে তাকে আটক করা হয়। গ্রেপ্তার সিরাজুল ইসলাম প্রকাশ রানা বৈদ্য কক্সবাজার জেলার মহেশখালী সৈয়দ চেয়ারম্যানের বাড়ির মৃত কবির হোসেন পুত্র। এলাকায় তিনি রানা বৈদ্য নামে পরিচিত।

স্থানীয়রা জানান, সিরাজুল ইসলাম রানা বৈদ্যের বাড়ী মহেশখালী গোরকঘাটা হলেও দীর্ঘ দিন ধরে কর্ণফুলী উপজেলার ফাজিলখারহাট এলাকায় ‘আমার মায়ের আসন’ নাম জিন ধরানো, পাগলামি ভালো করা ও জাদু কাটার নামে প্রতারণা করে আসছিলেন।

অভিযোগে জানা গেছে, আনোয়ারা উপজেলার বারশত ইউনিয়নের বোয়ালিয়া গ্রামের মফজল আহমেদের স্ত্রী নুর নাহার বেগমের কাছ থেকে গত এপ্রিল থেকে এ পর্যন্ত বিশ দফায় ছয় হাজার করে এক লাখ বিশ হাজার টাকা হাতিয়ে নেন মোহাম্মদ সিরাজুল ইসলাম নামের এক ব্যক্তি। মাটির নিচ থেকে স্বর্ণের হাড়ি তুলে দেওয়া হবে ওই আশ্বাসে টাকাগুলো হাতিয়ে নেন সিরাজ। বার বার টাকা নিয়েও স্বর্ণের হাড়ির খোঁজ দিতে না পারায় বিষয়ে জানতে চাইলে বৈদ্য রানা জানান, চুক্তিমোতাবেক আরও ১ লাখ না দেয়ায় স্বর্ণের কলস তামা হয়ে গেছে।

এদিকে, এ ঘটনা জানাজানি হলে স্বর্ণের হাড়ি নিয়ে রানা বৈদ্যের প্রতারণার বিষয় বুঝতে পেরে গতকাল বুধবার আবারও টাকা দেওয়া হবে ওই কৌশলে স্থানীয়দের সহায়তা রানা বৈদ্যকে আটক করে পুলিশে দেন নুর নাহারের লোকজন।

এ ব্যাপারে কর্ণফুলী থানার ওসি (তদন্ত) মো. জোবাইর সৈয়দ বলেন, প্রতারণার অভিযোগে বৈদ্য রানাকে আটক করে থানায় আনা হয়েছে। প্রতারণার মাধ্যমে আদায়কৃত টাকা ভুক্তভোগীকে ফেরত দেয়ার চেষ্টা করা হচ্ছে। এ বিষয়ে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

পূর্বকোণ/পলাশ

The Post Viewed By: 361 People

সম্পর্কিত পোস্ট