চট্টগ্রাম বৃহষ্পতিবার, ২০ জুন, ২০২৪

সর্বশেষ:

হাটহাজারীতে অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন নিয়ে শঙ্কিত প্রার্থীরা

হাটহাজারী সংবাদদাতা

১৯ মে, ২০২৪ | ১২:৫৫ অপরাহ্ণ

২১ মে দ্বিতীয় ধাপে অনুষ্ঠিত হবে হাটহাজারী উপজেলা পরিষদ নির্বাচন। এই নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ হবে কি না তা নিয়ে হেভিওয়েট প্রার্থীদের মধ্যে অনেকে শঙ্কিত। এর মধ্যে উপজেলার ১০৬টি কেন্দ্রের এক-তৃতীয়ংশ ভোটকেন্দ্র ঝুঁকিপূর্ণ বলেও তারা দাবি করছে প্রার্থীরা। তাদের ধারণা- নির্বাচনের দিন নির্দিষ্ট কেন্দ্রে বহিরাগত সন্ত্রাসী আগ্নেয়াস্ত্রসহ ভোটকেন্দ্রে প্রবেশ করে অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচনকে বাধাগ্রস্ত করবে। ফলে ভোটের পরিবেশ নষ্ট হওয়ার পাশাপাশি ভোটাররা তাদের ভোট দেওয়ার অধিকার হারাবে। তাছাড়া কোন কোন প্রার্থীর লোকজন অন্য প্রার্থীর নেতাকর্মী ও সমর্থকদের নানানভাবে ভয়ভীতি প্রদর্শনের অভিযোগ উঠেছে। যদিও সংশ্লিষ্ট প্রশাসন বলছে- সুষ্ঠু নির্বাচনের সকল প্রকার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।

 

এদিকে শনিবার (১৮ মে) সন্ধ্যায় ২১ মে অনুষ্ঠিতব্য হাটহাজারী উপজেলা পরিষদ নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ হওয়া নিয়ে শঙ্কা প্রকাশ করে সংবাদ সম্মেলন করেছেন ঘোড়া প্রতীকে চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী সাবেক ছাত্রলীগ নেতা ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. সোহরাব হোসেন চৌধুরী নোমান। তিনি তার নির্বাচনী প্রধান কার্যালয় ফতেপুর জোবরাস্থ ছালেহ মঞ্জিলে অনুষ্ঠিত উক্ত সংবাদ সম্মেলনে উপজেলা পরিষদ নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ করার জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানান সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের প্রতি।

 

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, কয়েকদিন ধরে দুই প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীর উশৃঙ্খলকর্মীরা বিভিন্ন ইউনিয়ন ও পৌরসভা এলাকায় ভোটকেন্দ্রে দায়িত্বপ্রাপ্ত আমার কর্মী-সমর্থকদের নির্বাচনী দায়িত্বপালন না করার জন্য হুমকি দিচ্ছে। পাশাপাশি পুলিশি ভয়-ভীতি প্রদর্শন করে নির্বাচনী এলাকা ত্যাগের হুমকিও দেওয়া হচ্ছে। এছাড়া নির্বাচনী এলাকার বাইরের বিভিন্ন পেশাদার সন্ত্রাসী গোষ্ঠীসহ নানা লোকজনকে নির্বাচনের দিন বিভিন্ন ভোটকেন্দ্রে নিয়ে আসার জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছে।

 

তিনি আরও বলেন, প্রতিদ্বন্দ্বী দুই প্রার্থী চট্টগ্রামসহ হাটহাজারীর আশেপাশের বিভিন্ন এলাকায় গোপন বৈঠক করে টাকার বিনিময়ে ভোটারদের প্রভাবিত করছে এবং আগ্নেয়াস্ত্র সংগ্রহ করছে। এরমধ্যে বহিরাগত সন্ত্রাসী বাহিনী দিয়ে প্রায় ৩২টি ভোটকেন্দ্র জোরপূর্বক দখল করার পরিকল্পনার গুঞ্জন ইতিমধ্যে হাটহাজারীর সর্বত্র ছড়িয়ে পড়েছে। তাছাড়া প্রভাবশালী দুই প্রার্থী বিভিন্ন উপর মহলে সহযোগিতায় যে কোন প্রকারে নির্বাচনী ফলাফল তাদের অনুকূলে নেওয়ার জন্য নানা রূপে ষড়যন্ত্র এবং প্রস্তুতিতে লিপ্ত রয়েছে।

 

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও সহকারী রিটানিং কর্মকর্তা এবিএম মশিউজ্জামান বলেন, নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ করতে প্রয়োজনীয় সব ধরণের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে।

 

যেসব ভোটকেন্দ্র ঝুঁকিপূর্ণ: হাটহাজারী পৌরসভার সন্দীপ পাড়া প্রাথমিক বিদ্যালয়, উপজেলার ১ নম্বর ফরহাদাবাদ ইউনিয়নের উত্তর পশ্চিম উদালিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও উদালিয়া নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়, নাজিরহাট কলেজিয়েট উচ্চ বিদ্যালয়, ফরহাদাবাদ কোরানিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ফরহাদাবাদ বংশাল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ২ নম্বর ধলই ইউনিয়নে ফেন্দাই চৌধুরী নুরানী তা’লিমুল কুরআন মাদ্রাসা, ৩ নম্বর মির্জাপুর ইউনিয়নে মির্জাপুর উচ্চ বিদ্যালয়, মির্জাপুর পাহাড়তলী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, মির্জাপুর বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়, মির্জাপুর ইউনিয়ন পরিষদ, ৪ নম্বর গুমানমর্দন ইউনিয়নে উত্তর ছাদেক নগর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, পূর্ব গুমানমর্দ্দন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, বালুখালী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, দক্ষিণ গুমানমর্দ্দন মাস্টারপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ৮ নম্বর মেখল ইউনিয়নে রহিমপুর জানআলী চৌধুরী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়, ৯ নম্বর গড়দুয়ারা ইউনিয়নে পশ্চিম গড়দুয়ারা ও পূর্ব মেখল সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়, ১০ নম্বর উত্তর মাদার্শা ইউনিয়নে উত্তর মাদার্শা উচ্চ বিদ্যালয়, উত্তর মাদার্শা নুতন হাট সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, বাড়ীঘোনা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ১১ নম্বর ফতেপুর ইউনিয়নে জোবরা পিপি স্কুল এন্ড কলেজ, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ল্যাবরেটরি স্কুল এন্ড কলেজ, নীপবন শিশু বিদ্যালয়, ফতেপুর কুলালপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ফতেপুর লতিফপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ১২ নম্বর চিকনদণ্ডী ইউনিয়ন পরিষদ, চিকনদণ্ডী কাটাখালী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ১৩ নম্বর দক্ষিণ মাদার্শা ইউনিয়নে ফতেয়াবাদ বটতলী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, মোজাফফরাবাদ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ১৪ নম্বর শিকারপুর ইউনিয়নে কুয়াইশ বুড়িশ্চর সম্মিলনী উচ্চ বিদ্যালয় এবং ১৫ নম্বর বুড়িশ্চর ইউনিয়নে উত্তর বুড়িশ্চর রশিদীয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, দক্ষিণ বুড়িশ্চর ওসমানিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও ছাফা মোতালেব কলেজিয়েট হাই স্কুল।

 

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন হাটহাজারী উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি সুলতানুল আলম চৌধুরী, এস এম মোরশেদুল আলম চৌধুরী, শহীদুল আলম চৌধুরী, সদস্য মোহাম্মদ শাহজাহান চৌধুরী, যুগ্ম সম্পাদক মো. আবু বক্কর সিদ্দিকী, শফিকুল আলম হেলাল, প্রদান সমন্বয়কারী নির্বাচন পরিচালনা কমিটি শাহনেওয়াজ চৌধুরীর মানিক, সাংগঠনিক সম্পাদক মনজুর হোসেন চৌধুরী মাসুদ, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক অ্যাডভোকেট মোস্তফা আনোয়ার ঝন্টু, চট্টগ্রাম উত্তর জেলা কৃষক লীগের যুগ্ম সম্পাদক লোকমান চৌধুরী, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক নুরুল আলম, শ্রম বিষয়ক সম্পাদক মো. হারুনুর রশিদ, সদস্য মুশফিকুর রহমান সাদী, শেখ খোরশেদুজ্জামান, উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মোহাম্মদ রাসেল, সোহরাওয়ার্দী চৌধুরী, গিয়াস উদ্দিন মানিক, ফতেপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক তসলিম হায়দার, মেখল ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার মহিবুল হক ও ফতেপুর ইউনিয়নের সাংগঠনিক সম্পাদক শাহেদুল আলম প্রমুখ।

পূর্বকোণ/পিআর/এএইচ

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট