চট্টগ্রাম শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী, ২০২৪

সর্বশেষ:

আনোয়ারায় মাদ্রাসা শিক্ষার্থীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

আনোয়ারা সংবাদদাতা

১৯ জানুয়ারি, ২০২৪ | ৮:৩২ অপরাহ্ণ

চট্টগ্রামের আনোয়ারায় একটি প্রাইভেট মাদ্রাসার শিক্ষকের কক্ষ থেকে মুহাম্মদ ওমাইর নামে ১০ বছরের এক শিশু শিক্ষার্থীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করা হয়েছে।

 

শুক্রবার (১৯ জানুয়ারি) সকাল ১০টায় উপজেলার বারশত ইউনিয়নের কালিবাড়ি এলাকায় ‘দারুত তাহফিজ বালক-বালিকা মডেল মাদ্রাসা’ নামের একটি মাদ্রাসায় এ ঘটনা ঘটে।

 

শিশু ওমাইর উপজেলার বটতলী ইউনিয়নের আইরমঙ্গল মাইজপাড়া মোহাম্মদ ছৈয়দের ছেলে। সে ওই মাদ্রাসার হেফজ বিভাগের ছাত্র। ঘটনার পর বিকাল ৩টায় পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে প্রেরণ করেন। থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা দায়ের করা হয়েছে।

 

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, চারতলা বিল্ডিংয়ের দ্বিতীয় ও তৃতীয় তলা ভাড়া নিয়ে তিনজন হুজুর বালক-বালিকা নাম দিয়ে মাদ্রাসাটিতে শিক্ষা কার্যক্রম চালাচ্ছে, দ্বিতীয় তলায় বালিকা তৃতীয় তলায় বালক শিক্ষার্থীরা রয়েছে। এ সময় ছেলের মরদেহ জড়িয়ে ধরে তার মা আহাজারি করছে।

 

জানা যায়, বারশত ইউনিয়নের কালিবাড়ি এলাকার একটি বিল্ডিংয়ের দুই তলা ভাড়া নিয়ে ‘দারুত তাহফিজ বালক-বালিকা মডেল মাদ্রাসা’ নাম দিয়ে হাফেজ আবদুর রহমান মাদ্রাসার শিক্ষা কার্যক্রম চালু করে। মাদ্রাসায় তিনজন শিক্ষক রয়েছে। এতে ৮৫ জন শিক্ষার্থী হেফজ ও নাজারা বিভাগে আবাসিকে থাকে। মাদ্রাসার একটি কক্ষে পরিচালক আবদুর রহমান স-পরিবারে থাকেন। শুক্রবার সকাল ৭টায় ওমাইর সহপাঠীদের বলে সে বাড়িতে মায়ের কাছে যেতে চাইলেও বড় হুজুর যেতে দিচ্ছে না। তাই সে মরে যাবে। কিন্তু কথাটি সহপাঠীরা কাউকে জানাইনি। সকাল ১০টায় শিক্ষক এমরানের কক্ষ থেকে ঝুলন্ত অবস্থায় তার লাশ উদ্ধার করা হয়। মাদ্রাসার পরিচালকের দাবি এ সময় ওই কক্ষে কেউ ছিল না। তবে পরিবার জানিয়েছে, সকাল ১০টায় ঘটনা ঘটলেও বিকাল ৩নটায় তাদেরকে ঘটনা জানানো হয়।

 

মাদ্রাসার পরিচালক হাফেজ আবদুর রহমান বলেন, এক সপ্তাহ আগে ওমাইর মাদ্রাসাটিতে ভর্তি হয়। সকালে সে সবার সাথে নাস্তা করেছে। এরপর ১০টার দিকে মাদ্রাসার শিক্ষকের কক্ষের জানালার সাথে তার ঝুলন্ত লাশ দেখতে পায়। এ সময় ওই কক্ষে কেউ ছিল না, পরে আমি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ও পুলিশকে খবর দি।

 

আনোয়ারা থানার পুলিশ পরিদর্শক (ওসি তদন্ত) মহিউদ্দিন আহমেদ বলেন, বারশত ইউনিয়নের একটি প্রাইভেট মাদ্রাসা থেকে এক শিশুর লাশ উদ্ধার করা হয়, প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে শিশুটি আত্মহত্যা করেছে। মাদ্রাসা থেকে সিসিটিভির একটি ভিডিও ফোটেজও পাওয়া গেছে, লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে প্রেরণ করা হল। এ ব্যাপারে একটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছে।

 

 

পূর্বকোণ/সুমন/জেইউ/পারভেজ

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট