চট্টগ্রাম শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী, ২০২৪

সর্বশেষ:

এবার ফলন ৮ হাজার ১৪০ হেক্টর জমিতে

মহেশখালীতে আমন ঘরে তোলার আয়োজন

নিজস্ব সংবাদদাতা 

৩০ নভেম্বর, ২০২৩ | ৬:০৫ অপরাহ্ণ

উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নে শুরু হয়েছে আমন ধান কাটা। এতে ব্যস্ত সময় পার করছেন কৃষাণ-কৃষাণীরা। চলতি মৌসুমে রোপা আমন ধানের ফলনও হয়েছে ভালো।

উপজেলা কৃষি অধিদপ্তর সূত্রে জানা গেছে, চলতি মৌসুমে উপজেলায় ৮ হাজার ১৪০ হেক্টর জমিতে আমন ধানের চাষ হয়েছে। বিভিন্ন ইউনিয়নে আমন ক্ষেত ঘুরে দেখা যায়, মাঠে ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছে কেটে রাখা সোনালি ধান। ধান কেটে আঁটি বেঁধে সপ্তাহখানেক খোলা মাঠে ফেলে রাখছেন কৃষক। পরে কৃষক ধানের সঙ্গে খড় শুকিয়ে তা বাড়িতে নিয়ে যাচ্ছেন। মাঠ থেকে ধান তোলার সঙ্গে আলু চাষের জন্য জমিতে ফেলা হচ্ছে গোবর সার।

চলতি আমন মৌসুমে বর্ষার পানি পর্যাপ্ত ছিল। ধান কাটা-মাড়াইয়ে বিঘাপ্রতি খরচ হচ্ছে কৃষকের ৪ থেকে সাড়ে ৪ হাজার টাকা। যদি ধানের দাম সরকার বাড়ায়, তাহলে লাভের মুখ আরও দেখবেন বলছেন আমন চাষিরা।

উপজেলার কালারমারছড়ার মারাক্ষা ঘোনা গ্রামের কৃষক ওসমান গণি বলেন, এবার আমি এক কানি জমিতে আমন চাষ করেছি। আশানুরূপ ফলন হয়েছে। বর্ষার পানির উপর নির্ভর করে আমন ধান চাষ করা হয়। আমন মৌসুমে বর্ষার পানি পর্যাপ্ত পাইছি। আল্লাহতায়ালার রহমতে ফলনও ভালো হয়েছে।’

ধান কাটা শ্রমিকরা জানান, ধান কাটার সময় এবার বর্ষা নেই। ফলে মাঠেও কোনো পানি নেই। আমাদের ধান কাটতে কোনো অসুবিধা হচ্ছে না। আমরা ৫ জন একসঙ্গে ধান কাটছি। দিনে দেড় থেকে দুই বিঘা জমির ধান কাটতে পারছি।

উপজেলা উপসহকারী কৃষি অফিসার সৌরভ বলেন, উপজেলায় ৮ হাজার ১৪০ হেক্টর জমিতে আমন ধান চাষ হয়েছে। ফলন অনেক ভালো হয়েছে। আশা করছি, কৃষক তাদের কাঙ্ক্ষিত ফলন সময়মতো ঘরে তুলবেন।

পূর্বকোণ/সাফা

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট