চট্টগ্রাম মঙ্গলবার, ২৫ জুন, ২০২৪

সর্বশেষ:

বান্দরবানে নির্মিত হল ৫০০ ফুট দীর্ঘ দৃষ্টিনন্দন টানেল

বান্দরবান প্রতিনিধি

২৭ অক্টোবর, ২০২৩ | ২:৩৭ অপরাহ্ণ

বান্দরবানে এবার তৈরি হল দৃষ্টিনন্দল টানেল। শহরের বাসস্টেশন এলাকায় দুই পাহাড়ের মাঝখানে নির্মিত ৫২০ দৈর্ঘ্য ও ২৫ ফুট প্রস্তের এই টানেল ইতিমধ্যে সবার দৃষ্টি কেড়েছে। শহরের মূল বাস স্টেশন ও হাফেজ ঘোনার নতুন বাস স্টেশনকে সংযুক্ত করেছে টানেলটি। টানেলটির কারণে জেলা শহরে যোগাযোগ ব্যবস্থা যেমন উন্নতি হয়েছে।
অপরদিকে, পর্যটকদের জন্য আকর্ষণীয় স্থানে পরিণত হয়েছে টানেলটি। ১১ কোটি টাকা ব্যয়ে পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ড এই টানেলটি নির্মাণ করেছে। দুই পাহাড়ের মাঝখানে এই টানেলটি নির্মাণ করতে প্রায় চার বছর সময় লেগেছে। উদ্বোধনের পর শুক্রবার থেকে এটি যান চলাচলের জন্য উন্মুক্ত করে দেওয়া হয়েছে। এখন সহজেই শহরের বাস স্টেশন থেকে হাফেজ ঘোনা হয়ে চিম্বুক সড়ক পথে যাতায়াত করা যাবে এই টানেল দিয়ে।

শুক্রবার সকালে পার্বত্য মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে টানেলটির উদ্বোধন করেন। এ সময় তার সাথে উন্নয়ন বোর্ডের ভাইস চেয়ারম্যান মো. হারুনুর রশিদ, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. শাহ আলম, পৌরমেয়র মোহাম্মদ শামসুল ইসলাম, জেলা পরিষদের সদস্য লক্ষ্মীপদ দাস, পরিবহন নেতা আব্দুল কুদ্দুস, ঝন্টু দাশসহ অন্যান্যরা উপস্থিত ছিলেন।

উদ্বোধন শেষে পার্বত্য মন্ত্রী বীর বাহাদুর সাংবাদিকদের বলেন, নতুন টানেলটি এলাকার অর্থনৈতিক ও যোগাযোগ ব্যবস্থার ক্ষেত্রে ব্যাপক পরিবর্তন আনবে। বিশেষ করে পরিবেশ রক্ষা করে এই টানেলটি নির্মাণ করা হয়েছে। টানেলটির ভেতরের দেয়ালে চিত্রের মাধ্যমে নতুন প্রজন্মের জন্য মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস ও সরকারের উন্নয়নের চিত্র তুলে ধরা হবে।

উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. ইয়াসির আরাফাত জানান, বর্ষা মৌসুমে বিভিন্ন সময়ের পাহাড় ধ্বসের কারণে টানেলটি নির্মাণে বিলম্ব হয়েছে। তবে নানা কৌশল অবলম্বন করে পাহাড় ধ্বস ঠেকিয়ে অবশেষে টানেলটি নির্মাণ করা হয়েছে। কর্ণফুলী নদীর তলদেশ নির্মিত টানেলের পর এটিই বাংলাদেশে সড়ক পথের অন্যতম টানেল। যা এলাকার পর্যটন শিল্পকে আরো গতিশীল করবে। এদিকে, মন্ত্রী রুমা বাস টার্মিনাল ভবনসহ জেলা পরিষদের বিভিন্ন প্রকল্প উদ্বোধন করেন।

পূর্বকোণ/মিনারুল হক/এএইচ

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট