চট্টগ্রাম বৃহষ্পতিবার, ১৩ জুন, ২০২৪

সর্বশেষ:

পরিবারের স্বচ্ছলতা আনতে ওমান গিয়ে লাশ হল রাউজানের আবছার

রাউজান সংবাদদাতা

১০ অক্টোবর, ২০২৩ | ৭:১৫ অপরাহ্ণ

পরিবারের একমাত্র সন্তান নুরুল আবছার (৫০)। মা-বাবা, স্ত্রী, ৩ মেয়ে, ১ কনিষ্ঠ ছেলে সন্তানসহ ৮ জনের সংসারের ভার ছিল তার কাঁধে। স্বজনদের অভাব ঘুচিয়ে স্বচ্ছলতা আনতে তিনি দেশে মাছের ব্যবসা ছেড়ে ১১ মাস আগে যান মধ্যেপ্রাচ্যের ওমানে। ভবনে রং লাগানোর কাজ নেয় আবছার। সেখানে ৫ তলা ভবনে রং লাগাতে গিয়ে অসাবধানবশত নিচে পড়ে যান।

 

সোমবার (৯ অক্টোবর) সন্ধ্যা ৬টার দিকে হাসপাতালে মারা যান তিনি।

 

মৃত নুরুল আবছার রাউজান সদর ইউনিয়নের ৭ নম্বর ওয়ার্ডের সমশের নগর এলাকার মমতাজুল হকের একমাত্র ছেলে। তার আকস্মিক মৃত্যুর খবরে পরিবারের সদস্যের মাথায় যেন আকাশ ভেঙ্গে পড়ে। শোকাভিভূত হয়ে পড়েছেন প্রতিবেশী ও স্বজনরা।

 

আবছারের মা হাছিনা বেগম বলেন, ‘গতকাল সোমবার সে দেশের বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে ওমানের মোবালা ছানাইয়া নামক স্থানে ৫ তলা একটি ভবনে রং লাগানোর কাজ করছিল ছেলে আবছার। সেখান থেকে সে অসাবধানবশত নিচে পড়ে যায়। সেখানকার পুলিশ তাকে হাসপাতালে নিয়ে গেলে সন্ধ্যা ৬টার দিকে আবছার মারা যান। ছেলের মৃত্যুর খবরটি পাই আমরা সন্ধ্যার পর।

 

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে ইউপি চেয়ারমান বিএম জসিম উদ্দিন হিরু বলেন, ঘটনা শুনে আমি ইউপি সদস্যকে মরহুমের বাড়িতে পাঠিয়েছি। ঘটনাটি খুবই দুঃখজনক।

 

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, মৃত দরিদ্র আবছার ফকিরহাট ও নাতোয়ান বাগিছা বাজারে মাছ বিক্রি করত। আর্থিক অবস্থার উন্নয়ন করতে বিভিন্ন ধার-দেনা করে ১১ মাস আগে ওমানে যান। পরিবারের একমাত্র ছেলে সন্তান এবং একমাত্র উপার্জনক্ষম ব্যক্তি ছিল আবছার। তাকে হারিয়ে তার পবিবার এখন দিশেহারা হয়ে পড়েছেন। মা-বাবা, স্ত্রী, ৪ সন্তান এখন যেন নিরুপায়। তার মরদেহ আনার জন্য আকুতি জানিয়েছেন নিহতের মা, বাবা ও স্বজনরা।

 

পূর্বকোণ/জাহেদ/জেইউ/পারভেজ

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট