চট্টগ্রাম সোমবার, ২০ মে, ২০২৪

সর্বশেষ:

চট্টগ্রামের বোয়ালখালী-কাপ্তাই রাস্তার মাথা

টোকেনের নামে প্রকাশ্যে চাঁদাবাজি

বোয়ালখালী সংবাদদাতা

৬ জুলাই, ২০২৩ | ১২:৩১ অপরাহ্ণ

নগরীর কাপ্তাই রাস্তার মাথা থেকে যাত্রী নিয়ে বোয়ালখালীর উদ্দেশ্যে রওনা দেন সিএনজি ট্যাক্সিচালক মো. জসিম উদ্দিন। কালুরঘাট সেতুর পশ্চিম প্রান্তে পৌঁছালে পড়েন টোকেনবাজি চক্রের খপ্পড়ে। জোরজবরদস্তি করে কেড়ে নেয় চালকের টাকা।

 

গতকাল সোমবার সকাল ১১টার দিকে কালুরঘাট সেতুর পশ্চিম পাড়ে দুই যুবক জসিমের ট্যাক্সি আটকে টাকা কেড়ে নেয়। ট্যাক্সিচালক ও যাত্রীরা জানান, কাপ্তাই রাস্তা মাথা থেকে রওনা হয়ে ট্যাক্সিটি সেতুর কাছাকাছি এলাকায় পৌঁছায়। সেখানে ওঁৎ পেতে ছিল টোকেনবাজরা। টোকেনবাজি চক্রের দুইজন জুয়েল ও মোরশেদ ট্যাক্সি আটকে চালকের দুই পাশে উঠে পড়েন। টোকেন আছে কিনা জানতে চান চালকের কাছে। টোকেন নেই বলার সঙ্গে সঙ্গেই গাড়ির চাবি কেড়ে নেন তারা। চালকের সঙ্গে ধস্তাধস্তি শুরু করলে ছিনতাইকারী ভেবে যাত্রীরা ভয়ে হইচই করতে থাকে। এসময় চালকের পকেট থেকে টাকা কেড়ে নিয়ে চাবি ফিরিয়ে দেন।

 

ট্যাক্সিচালক জসিম উদ্দিন বলেন, বোয়ালখালী থেকে কাপ্তাই রাস্তার মাথা যাতায়াত করতে তিনটি টোকেন নিতে হয়। পুলিশের নামে এসব টোকেন বিক্রি করা হয়। টোকেনের নামে প্রকাশ্য চাঁদাবাজি বলে দাবি করেন চালক ও যাত্রীরা। দীর্ঘদিন ধরে তা চলে আসলেও প্রশাসন এ বিষয়ে কোন ব্যবস্থা নিচ্ছে না। টোকেনের নামে এই চাঁদাবাজির ভার বহন করতে হচ্ছে যাত্রীদের। বিভিন্ন স্থানের যাত্রীদের ট্যাক্সি ভাড়ায় বাড়তি টাকা গুণতে হচ্ছে।

 

জসিম উদ্দিন বোয়ালখালীর পশ্চিম কধুরখীল কাজির বাড়ির মৃত অলি খানের ছেলে। তিনি জানান, বোয়ালখালী ও কাপ্তাই রাস্তার মাথা এলাকায় চলাচল করতে দুটি টোকেন নিতে হয়। প্রতিটি টোকেনের মূল্য ৯ শত টাকা। মোরশেদ আর জুয়েল হলেন টোকেন বিক্রেতা। কালুরঘাট খেজুরতলা এলাকা থেকে কালুরঘাট সেতুর পশ্চিম প্রান্ত পর্যন্ত ট্যাক্সি চেক করে মোরশেদ আর জুয়েল। এ লাইনের টোকেন বাণিজ্য নিয়ন্ত্রণ করেন আনোয়ার ও তার ভাই আকবর। বোয়ালখালী পৌরসভার এক কাউন্সিলরের নেতৃত্বে চলে আসছে এই টোকেনবাজি।

 

এ বিষয়ে টোকেন বিক্রেতা মোরশেদ জানান, গত এক বছর ধরে গ্রাম-১৪-০৫১৫ নাম্বারের গাড়িটি (জসিম) টোকেন ছাড়াই চলছিল। ফলে বুধবার টোকেন চেকের সময় গাড়িটি ধরা হয়েছিল। টাকা কেড়ে নেওয়ার বিষয়ে মোরশেদ বলেন, আমরা টাকা কেড়ে নিইনি। গাড়িটির চালক টোকেনের জন্য ৫শত টাকা জমা দিয়েছেন। এ বিষয়ে বোয়ালখালী থানায় অভিযোগ দায়ের করার জন্য থানা যান বলে জানা যায়।

 

বোয়ালখালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবদুর রাজ্জাক বলেন, ঘটনাস্থল কালুরঘাট সেতু ওপারে হওয়ায় চান্দগাঁও থানায় অভিযোগ দায়ের করার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

পূর্বকোণ/এসি

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট