চট্টগ্রাম মঙ্গলবার, ২৮ মে, ২০২৪

সর্বশেষ:

অল্প বৃষ্টিতেই চাতরী চৌমুহনী সড়কে জলাবদ্ধতার দুর্ভোগ

১১ জুন, ২০২৩ | ৫:২০ অপরাহ্ণ

আনোয়ারা উপজেলার প্রাণকেন্দ্র চাতরী চৌমুহনী বাজার রাস্তায় অল্প বৃষ্টিতেই সৃষ্টি হয় জলাবদ্ধতা। এতে যান চলাচলে বিঘ্ন ঘটে। পথচারীদের ভোগান্তি পৌঁছায় চরমে। গত শুক্রবার বিকালে সামান্য বৃষ্টি হওয়ায় রাস্তায় পানি জমে যায়।

বাজারে গিয়ে দেখা যায়, রাস্তায় জলাবদ্ধতার কারণে চলাচলে বেগ পেতে হচ্ছে ইজিবাইক, মোটরসাইকেল, সিএনজিচালিত অটোরিকশা চালকদের। পানি নিষ্কাশনের কোনো নালা নেই। সড়কে বৃষ্টির পানি জমে রয়েছে। এতে ভোগান্তিতে পড়েছে সাধারণ মানুষ।

স্থানীয়দের অভিযোগ, একটু বৃষ্টি হলেই রাস্তায় পানি আর কাদা জমে চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়ে। বাজারে পানি নিষ্কাশনের জন্য দেওয়া নালাগুলো আবর্জনায় ভরে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়। এমন অবস্থার কারণে সাধারণ মানুষ প্রবেশ করতে চান না বাজারে। পানি নিষ্কাশনের ব্যবস্থা করা হলে বাজারের ক্রেতা, ব্যবসায়ী ও পথচারীরা এ ভোগান্তি থেকে মুক্তি পাবেন।

উপজেলা প্রকৌশলী অফিস সূত্রে জানা যায়, চাতরী চৌমুহনী বাজারের পানি নিষ্কাশন ও উন্নয়নের জন্য ২০১৮-২০১৯ অর্থবছরে উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে ৬০ লাখ টাকার উন্নয়নকাজ করেছে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল বিভাগ। এ প্রকল্পের অধীনে বাজারের পানি নিষ্কাশনে ড্রেন তৈরির কাজে ২০ লাখ এবং ফুটপাত ও গোল চত্বর তৈরিতে ব্যয় হয় ৪০ লাখ টাকা। কিন্তু টানেল নির্মাণ কাজে ভারী যানবাহন চলাচলের কারণে এসব ড্রেন ভেঙে যায়। এতে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হচ্ছে।

বাজারের ব্যবসায়ী নাছির উদ্দিন বলেন, বর্ষার শুরুতে সামান্য বৃষ্টিতে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়েছে। ভারী বর্ষায় এখানে চলাচলে সমস্যায় পড়তে হবে।

চাতরী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আফতাব উদ্দিন চৌধুরী সোহেল বলেন, বাজারের ড্রেনগুলো কয়েকবার পরিষ্কার করা হলেও ব্যবসায়ীরা ড্রেনে আবর্জনা ফেলার কারণেই এই জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হচ্ছে।

চট্টগ্রাম দক্ষিণ সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী সুমন সিংহ বলেন, চাতরী চৌমুহনী-কর্ণফুলী ড্রাইডক স্পেশাল সড়ক সংস্কারে ৯০ লাখ টাকার কাজ চলছে। এই সংস্কার প্রকল্পে সড়কের চৌমুহনী বাজার এলাকার পানি নিষ্কাশনের ড্রেন নির্মাণ বা সংস্কারের জন্য আপাতত কোন বরাদ্দ নেই। তবে মানুষের কষ্ট লাঘবে বিষয়টি গুরুত্ব দিয়ে নতুন বরাদ্দের জন্য চেষ্টা করব।

 

পূর্বকোণ/সাফা/পারভেজ

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট