চট্টগ্রাম মঙ্গলবার, ১৮ জুন, ২০২৪

চকরিয়ায় আম পাড়তে গিয়ে প্রাণ গেল ফল ব্যবসায়ীর

চকরিয়া-পেকুয়া প্রতিনিধি

১৪ মে, ২০২৩ | ৪:০৬ অপরাহ্ণ

কক্সবাজারের চকরিয়ায় বন্যহাতির আক্রমণে নুরুন্নবী (৪০) নামের এক ফল ব্যবসায়ী নিহত হয়েছেন। প্রবল ঘূর্ণিঝড় মোখার অগ্রভাগের অগ্রগতিকালে রবিবার (১৪ মে) ভোররাত পৌনে ৪টার দিকে উপজেলার কাকারা ইউনিয়নের পাহাড়ি গ্রাম বার আউলিয়া নগরের চামেলি পাড়ায় এ ঘটনা ঘটে।

 

নিহত নুরুন্নবী চিরিঙ্গা ইউনিয়নের ৯ নম্বর ওয়ার্ডের চরণদ্বীপ এলাকার মৃত আকবর আহমেদের ছেলে।

 

গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি ও হালকা বাতাস শুরু হয়। ওইসময় গাছ থেকে আম পাড়তে গিয়ে তার মৃত্যু হয়। এসময় অতর্কিত একটি দলছুট বন্যহাতি আক্রমণ করে।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন কাকারা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সাহাব উদ্দিন। তিনি বলেন, ‘নিহত নুরুন্নবী চিরিঙ্গা ইউনিয়নের চরণদ্বীপ এলাকার স্থায়ী বাসিন্দা। তিনি কাকারার চামেলি পাড়ায় খামার বাড়ি নির্মাণপূর্বক আমসহ বিভিন্ন গাছের বাগান সৃজন করেন। ঘূর্ণিঝড় মোখা প্রবল বেগে আঘাত হানতে পারে শঙ্কায় আগেভাগেই বাগান থেকে আম পেড়ে নিচ্ছিলেন নুরুন্নবী। ওই সময় বন্যহাতির আক্রমণে তিনি মারা যান। তার মরদেহ ভোরেই স্থায়ী বাড়ি চরণদ্বীপে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। তার স্থায়ী ও অস্থায়ী ঘরে পৃথক দুটি সংসার রয়েছে।’

 

বন্য হাতির আক্রমণে ফল ব্যবসায়ী নিহত হওয়ার ঘটনাটি নলবিলা বনবিট কর্তৃপক্ষ সরেজমিন গেলেও চকরিয়া থানায় সাধারণ ডায়েরি দুপুর পর্যন্ত করেনি। জিডি ও বনবিভাগের প্রতিবেদনের ভিত্তিতে বন্যহাতির আক্রমণের শিকার ব্যক্তির পরিবার সরকার থেকে ক্ষতিপূরণ পেয়ে থাকে।

 

চকরিয়া থানার অপারেশন অফিসার রাজিব সরকার বলেন, ‘রবিবার দুপুর ২টা পর্যন্ত থানায় কেউ লিখিতভাবে বন্যহাতির আক্রমণে নিহতের ঘটনা জানায় নি।’

 

নুরুন্নবীকে সকাল ১১টায় নামাজের জানাজা শেষে সামাজিক কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন চিরিঙ্গা ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান আলহাজ্ব জসিম উদ্দিন।

 

উল্লেখ্য, চকরিয়ার পাহাড়ি গ্রামগুলোতে প্রায়শই বন্যহাতির আক্রমণের ঘটনা ঘটে। এতে হতাহতের পাশাপাশি ক্ষেতখামার ও বসতঘর ভাংচুর হয়।

পূর্বকোণ/পিআর/এএইচ

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট