চট্টগ্রাম মঙ্গলবার, ২১ মে, ২০২৪

সর্বশেষ:

ঘূর্ণিঝড় মোখায় সম্ভাব্য ক্ষতি এড়াতে ধান কাটায় ব্যস্ত চাষিরা

পটিয়া সংবাদদাতা

১২ মে, ২০২৩ | ৯:২৮ অপরাহ্ণ

ঘূর্ণিঝড় মোখায় সম্ভাব্য ক্ষতি এড়াতে ক্ষেতের ধান তাড়াহুড়ো করে কেটে ঘরে তুলছেন পটিয়ার কৃষকরা। মোখার প্রভাবে ফসলের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতির আশঙ্কা তৈরি হওয়ায় কৃষকদের করণীয় বিষয়ে নির্দেশনা দিয়েছে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর। এতে পাকা ধান (৮০ শতাংশ), পরিপক্ব আম ও অন্যান্য সংগ্রহ উপযোগী ফসল দ্রুত সংগ্রহ করার জন্য কৃষকদের পরামর্শ প্রদানের জন্য কৃষি কর্মকর্তাদের চিটি প্রেরণ করা হয়েছে।

 

ফসলের ক্ষতির শঙ্কায় কৃষি অফিসের পরামর্শে আগেভাগেই ক্ষেতের ধান কাটা শুরু হলেও শ্রমিক সংকটের কারনে বেগ পেতে হচ্ছে কৃষকদের। শ্রমিক সংকটের ফলে কৃষকদের সমস্যা সমাধানে পটিয়ার সংসদ সদস্য ও হুইপ সামশুল হক চৌধুরী তার নিজস্ব অর্থায়নে কৃষি অফিসের মাধ্যমে আধুনিক হারভেস্টার মেশিন প্রদান করেছেন। এটি ব্যবহার করে কৃষকদের ধান কেটে দেওয়া হচ্ছে।

 

পটিয়া উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানা গেছে, চলতি বোরো মৌসুমে উপজেলার ৪ হাজার ৭শ হেক্টর জমিতে বোরো ধান আবাদের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়। তবে সেই লক্ষ্যমাত্রা ছাড়িয়ে এ বছর ২৫ ভাগ অতিরিক্ত ধানের আবাদ হয়েছে উপজেলায়। ইতোমধ্যে উপজেলার ৮৫ ভাগ ধান কাটা হয়েছে।

 

উপজেলার কুসুমপুরা ইউনিয়নের হরিনখাইন এলাকার ধান চাষী বজলুল বারী বলেন, এ বছর তিনি দুই একর জমিতে বোরো ধান চাষ করেছেন। ঘূর্ণিঝড়ের ক্ষয়ক্ষতির আশঙ্কা তৈরি হওয়ায় দ্রুত ধান কেটে ফেলেছেন।

 

ধলঘাট ইউনিয়নের চাষি ফজল করিম জানান, কৃষি অফিস থেকে বলা হয়েছে দ্রুত সময়ের মধ্যে ধান কেটে ফেলতে। এ জন্য শ্রমিক দিয়ে দ্রুত ধান কাটা শুরু করেছি। যদিও দুইদিনের মধ্যে সব ধান ঘরে তুলতে হবে এ জন্য তাড়াহুড়ো করতে হচ্ছে।

 

ভাটিখাইন ইউনিয়নের করল গ্রামের চাষি মোহাম্মদ ইসমাইল জানান, অল্প সময়ে ধান কাটার জন্য বলা হলেও শ্রমিক সংকটের কারনে ধান কাটায় বেগ পেতে হচ্ছে। খবর পেয়েছি পটিয়া কৃষি অফিসে আমাদের এমপি মহোদয় (সংসদ সদস্য) আধুনিক হারভেস্টার মেশিন দিয়েছেন। এটি নিয়ে শুধুমাত্র তেল ও চালকের মজুরী দিয়ে আমার ১ একর জমির ধান কেটে দ্রুত সময়ে ঘরে তুলতে পেরেছি।

 

এ ব্যাপারে পটিয়া উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ কল্পনা রহমান বলেন, ঝড়ে যেন কৃষকদের ফসলের কোনো ক্ষতি না হয় সেজন্য দ্রুত ধান কাটার নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। ইতোমধ্যে উপজেলার ৮৫ ভাগ ধান কাটা হয়েছে। আগামী দুই দিনের মধ্যে একশ ভাগ ধান কাটা সম্পন্ন হবে বলে আশা করছি।

অন্যদিকে উপজেলায় শ্রমিক সংকটের ফলে কৃষকদের সমস্যা সমাধানে পটিয়ার সংসদ সদস্য যে হারভেস্টার মেশিন প্রদান করেছেন তা দিয়েও কৃষকদের ধান কেটে দেওয়া হচ্ছে।

 

 

পূর্বকোণ/জেইউ/পারভেজ

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট