চট্টগ্রাম শনিবার, ২৫ মে, ২০২৪

সর্বশেষ:

সেন্টমার্টিনে মুষলধারে বৃষ্টি, বাড়ল পানির উচ্চতাও

অনলাইন ডেস্ক

১৪ মে, ২০২৩ | ১:২৬ অপরাহ্ণ

ঘূর্ণিঝড় মোখার অগ্রভাগের প্রভাবে কক্সবাজারের সেন্টমার্টিনে ঝড়ো বাতাস বইতে শুরু করেছে। এছাড়া ঘূর্ণিঝড়টি উপকূলের দিকে অগ্রসর হওয়ায় সেন্টমার্টিনে মুষলধারে বৃষ্টি হচ্ছে।

রবিবার (১৪ মে) ভোর থেকে সেন্টমার্টিনের দ্বীপে বাতাসের গতিবেগ বেড়েছে। সঙ্গে গুড়ি গুড়ি বৃষ্টি ও পানির উচ্চতাও বৃদ্ধি পেয়েছে।

সেন্টমার্টিনের বাসিন্দা আব্দুল মালেক বলেন, মহাবিপদ সংকেত ১০ থেকে এখন ১১! বাতাস বেড়েই চলেছে। জোয়ার আসা শুরু করেছে। সাগর খুবই উত্তাল। হালকা হালকা বৃষ্টি হচ্ছে। বাতাসের গতি উত্তর-পূর্ব দিক। মাঝেমাঝে দিক পরিবর্তন হচ্ছে। আতঙ্কিত হয়ে আছে দ্বীপের প্রতিটি মানুষ। দ্বীপের অধিকাংশ মানুষ আশ্রয়কেন্দ্রে। বিদ্যুৎ না থাকার কারণে অনেকের মোবাইল ফোন বন্ধ হয়ে গেছে। সবকিছুরই ফয়সালা একমাত্র আল্লাহ তায়ালার। আল্লাহ সবাইকে হেফাজত করুক। আমিন।

সেন্টমার্টিন ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মুজিবুর রহমান জানান, এ মুহূর্তে সেন্টমার্টিন দ্বীপে স্বাভাবিক দিনের চেয়ে পানির উচ্চতা দুই থেকে তিন ফুট বৃদ্ধি পেয়েছে। তবে আতঙ্কের কোনো কারণ নেই। নৌবাহিনী প্রস্তুতি গ্রহণ করেছে।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে সেখানকার বর্তমান পরিস্থিতি নিয়ে প্রকাশিত একটি ভিডিওতে দেখা যায়, ভোর থেকে সেখানে বৃষ্টি হচ্ছে। সকালে ঘূর্ণিঝড়ের তেমন প্রভাব না থাকায় অনেকেই আশ্রয়কেন্দ্র থেকে বের হয়েছেন। কেউ কেউ নিজ বাড়ি যাচ্ছেন আবার অনেকেই বাইরের পরিস্থিতি দেখছেন।

সেন্টমার্টিন ইউনিয়ন পরিষদের উল্টো দিকে অবস্থিত এ আশ্রয়কেন্দ্রে এক হাজারের বেশি মানুষ রাতে অবস্থান করেছেন বলে ভিডিওতে জানানো হয়।

ভিডিওতে বলতে শোনা যায়, রাতে সবার মধ্যে যে ধরনের ভয় আতঙ্ক কাজ করেছিল দিনের আলোতে সেটা অনেকটা কমে গেছে।

ভিডিওতে বেশ কয়েকজনকে মালামালসহ ফিরে যেতে দেখা গেছে। তবে, অনেকেই পানি আনতে আশ্রয়কেন্দ্র থেকে বের হয়েছেন। অনেকেই বিশ্বাস করছেন না যে বড় ধরনের কোনো ঘূর্ণিঝড় সেন্টমার্টিনে আঘাত হানতে যাচ্ছে।

পূর্বকোণ/এএইচ

শেয়ার করুন