চট্টগ্রাম মঙ্গলবার, ২৫ জুন, ২০২৪

সর্বশেষ:

এসএসবিএইচ স্কুলের বিজ্ঞান মেলায় আবুল বাশার

বিশ্ব এখন চতুর্থ শিল্প  বিপ্লবের দ্বারপ্রান্তে

বিজ্ঞপ্তি

২৫ অক্টোবর, ২০২৩ | ১১:৪৩ পূর্বাহ্ণ

চট্টগ্রামের ইংলিশ মিডিয়াম (ন্যাশনাল কারিকুলাম) বিদ্যাপীঠ স্কুল অব সায়েন্স, বিজিনেস এন্ড হিউমেনিটিজ (SSBH) ক্যাম্পাসে সম্প্রতি ক্ষুদে বিজ্ঞানীদের নানা প্রকল্প নিয়ে উৎসবমুখর পরিবেশে অনুষ্ঠিত হলো বিজ্ঞানমেলা ২০২৩।

তাদের তৈরি রামপুর পারমাণবিক বৈদ্যুতিক পাওয়ার প্ল্যান্ট, ভূমিকম্প সংকেত যন্ত্র, ইলেকট্রিসিটি জেনারেটর উইথ রেইন ওয়াটার, ভলকানো, থ্রি ডি হলোগ্রাম, ডিজিটাল সিটি, আরডুইনো রোবট কার, স্মার্ট ব্রীজ, রিয়েলিটিভিটি থিওরি, লাই ডিটেক্টর, সোলার কার, স্মার্ট জেব্রা ক্রসিং, জলবায়ু পরিবর্তনে পরিবেশের ক্ষতি, ডিজিটাল ট্রাফিক সিস্টেম, কৃত্রিম বৃষ্টি ইত্যাদি উপস্থিত সুধীজনদের অবাক করে।

বিদ্যালয়ের পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি বিশিষ্ট ভাষা প্রশিক্ষক মেহরাব মাসুকের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বিজ্ঞানমেলার উদ্বোধন করেন চট্টগ্রাম মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষাবোর্ড এর উপ-বিদ্যালয় পরিদর্শক মো. আবুল বাশার। বিশেষ অতিথি ছিলেন কলেজ অব সায়েন্স, বিজিনেস এন্ড হিউমেনিটিজ (CSBH) এর অধ্যক্ষ প্রফেসর সুহাস চন্দ্র, এসএসবিএইচ’র অধ্যক্ষ শেখ মো. আব্দুস সেলিম এবং প্রধান শিক্ষক মমতাজ বেগম। এছাড়া বিদ্যালয়ের ছাত্রছাত্রী, শিক্ষক-শিক্ষিকা এবং অভিভাবকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি মো. আবুল বাসার বলেন, বিজ্ঞান এবং প্রযুক্তি শিক্ষার বিবেচনায় আমরা নির্দিষ্ট লক্ষ্যে পৌঁছতে পারিনি। বিভিন্ন কারণে বিজ্ঞান ও গণিত শিক্ষায় ছাত্ররা আগ্রহ হারাচ্ছে। ফলে বিজ্ঞানের ভবিষ্যৎ নিয়ে বাংলাদেশ ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় রয়েছে। তাই সরকারের রূপকল্প ২০৪১ বাস্তবায়নে এখন থেকে প্রত্যেক শিক্ষার্থীকে বিজ্ঞানমনস্ক করে তুলতে পারলে তারা একদিন খ্যাতনামা বিজ্ঞানী হয়ে দেশের উন্নয়নে অবদান রাখতে পারবে। নুতন কারিকুলামে সরকার উদ্ভাবনী ও প্রায়োগিক জ্ঞানকেই গুরুত্ব দিয়েছেন। এ ক্ষেত্রে আজকের এই বিজ্ঞানমেলা অবশ্যই ইতিবাচক ভূমিকা রাখবে।

সভাপতির বক্তব্যে মেহরাব মাসুক বলেন, ‘স্টিম ইঞ্জিন থেকে শুরু করে বিদ্যুৎ উৎপাদনে ঘটে বিজ্ঞান আবিষ্কারের জগতে প্রথম বিপ্লব। ক্রমান্বয়ে ইন্টারনেটের মাধ্যমে আসে তৃতীয় শিল্প বিপ্লব। রোবট ও কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার আবিষ্কারে বিশ্ব এখন চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের দ্বারপ্রান্তে। তাই এই নুতন জগতের সাথে আমাদের প্রজন্মদের পরিচয় করিয়ে দিতেই আমাদের এই আয়োজন। ইতোমধ্যে আমরা চট্টগ্রামে প্রথমবারের মত স্কুল পর্যায়ে রোবোটিক্স কোর্স চালু করেছি। জাতির জনক শেখ মুজিবর রহমান আমাদের সোনার বাংলাদেশের স্বপ্ন দেখিয়েছিলেন, আর তার সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা স্মার্ট বাংলাদেশের ভিত্তি রচনা করেছেন। তাই সেই লক্ষ্যে ভবিষ্যত প্রজন্মকে সাথে নিয়ে আমাদের এগিয়ে যেতে হবে।’

মেলা শেষে সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি এবং বিশেষ অতিথিদের হাত থেকে বিজয়ী উদ্ভাবকরা পুরস্কার এবং সনদপত্র গ্রহণ করে। 

 

পূর্বকোণ/এসি

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট