চট্টগ্রাম রবিবার, ২৭ নভেম্বর, ২০২২

২২ নভেম্বর, ২০২২ | ১১:৩৫ পূর্বাহ্ণ

রবিউল আলম ছোটন, পটিয়া

মেরিন ড্রাইভের আদলে পটিয়ায় ১২শ কোটি টাকার মেগা প্রকল্প

পটিয়ায় জলাবদ্ধতারোধ, বন্যা নিয়ন্ত্রণ, নিষ্কাশন ও সেচ প্রকল্পের পাউবো’র ১১শ ৫৮কোটি টাকার কাজ শুরু হচ্ছে। আগামী ৩০ নভেম্বর পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী কর্নেল (অব.) জাহিদ ফারুক পটিয়ায় প্রকল্পের কাজ শুভ উদ্বোধন করবেন। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন জাতীয় সংসদের হুইপ ও পটিয়া আসনের সংসদ সদস্য সামশুল হক চৌধুরী। গত রবিবার বিকেলে উপজেলার হাবিলাসদ্বীপ ইউনিয়নে প্রকল্পের স্থান পরিদর্শনকালে সাংবাদিকদের এ তথ্য নিশ্চিত করে বলেন, প্রায় ১২ শ কোটি টাকার এ মেগা প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হলে পটিয়ার চেহারা পাল্টে যাবে। এটি পটিয়া উপজেলার জন্য বড় একটি প্রকল্প। বিশাল এলাকাজুড়ে কয়েক লাখ মানুষ উপকৃত হবে এই প্রকল্পে।

 

তিনি বলেন, পটিয়া হচ্ছে একটি দ্বীপের মতো। বন্যা রোধ ও জলাবদ্ধতা থেকে রক্ষার জন্য পটিয়ার মানুষকে প্রধানমন্ত্রী মেগা প্রকল্পটি উপহার হিসেবে দিয়েছেন। এটির ফলে কয়েক লাখ মানুষ বন্যা ও জলাবদ্ধতা থেকে রক্ষা পাবে। পটিয়া পৌরসভাসহ আশিয়া, হাবিলাসদ্বীপ, ধলঘাট, বড়লিয়া, দক্ষিণ ভূর্ষি, জঙ্গলখাইন, কোলাগাঁও, ভাটিখাইন, ছনহরা, কচুয়াই, হাইদগাঁও, কেলিশহরসহ ১২ ইউনিয়নের কয়েক লাখ মানুষ উপকৃত হবে। এছাড়াও চাষাবাদের আওতায় আসবে অনাবাদী হাজার হাজার হেক্টর ফসলি জমি।

 

প্রকল্পের স্থান পরিদর্শনকালে হুইপের সাথে ছিলেন, পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মাহবুবুর রহমান, উপ-সহকারী প্রকৌশলী অপু দেব, হাবিলাসদ্বীপ ইউপি চেয়ারম্যান ফৌজুল কবির কুমার, উপজেলা আ. লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক নুরুর রশিদ চৌধুরী এজাজ, হাবিলাসদ্বীপ ইউনিয়ন আ. লীগের সভাপতি মৃদুল নন্দী, সাধারণ সম্পাদক মো. আবছার, কোলাগাঁও ইউনিয়ন আ. লীগের সাধারণ সম্পাদক বদিউল আলম তুষার।

 

প্রকল্পে ২৫ দশমিক ৫১০ কিলোমিটার বাঁধ নির্মাণ করা হবে। এরমধ্যে শিকলবাহা, চাঁনখালী ও বোয়ালখালী খালের ডান তীরে ২২ দশমিক ২০০ কিলোমিটার। চাঁনখালী খালের বাম তীরে ৩ দশমিক ৩১০ কিলোমিটার বাঁধ নির্মাণ করা হবে। এছাড়াও ১১টি খালের ৩০ দশমিক ২০০ কিলোমিটার খাল পুনঃখনন করা হবে। ২ দশমিক ৯৫০ কিলোমিটার নদী-খালের তীর সংরক্ষণ করা হবে। ২৬টি খালে রেগুলেটর বসানো হবে। রেগুলেটর নির্মাণ করার মাধ্যমে শুষ্ক মৌসুমে প্রায় ৩ হাজার ২০০ হেক্টর জমি সেচ সুবিধার আওতায় আসবে। ৪ দশমিক ১০০ কিলোমিটার ফ্লাডওয়াল নির্মাণ করা হবে। চাঁনখালী খালের ডান তীরে ২ হাজার ৩৫০ মিটার, বাম তীরে ৮৫০ মিটার এবং বোয়ালখালী খালের ডান তীরে ৯০০ মিটার।

 

এর মাধ্যমে বর্ষায় বন্যা ও জলাবদ্ধতা থেকে ১৩ হাজার ৫০০ হেক্টর জমির ফসল রক্ষা করা হবে। প্রকল্পে একটি সেতুও নির্মাণ করা হবে। খানমোহনা এবং ধলঘাট স্টেশনের মধ্যে সংযোগ স্থাপন এবং যোগাযোগ ব্যবস্থায় চাঁনখালী খালের উপর এই সেতু নির্মাণ করা হবে। প্রকল্প বাস্তবায়নে ৫৮ দশমিক ৯২৮ হেক্টর জমি অধিগ্রহণ করা হবে। এরমধ্যে ২৫ দশমিক ৫১০ কিলোমিটার নতুন বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধ নির্মাণের জন্য ভূমি অধিগ্রহণ করা হবে। প্রকল্পে বাঁধের ঢাল সংরক্ষণ, দুই পাশে ওয়ার্কওয়ে নির্মাণ, খালের তীরের যানবাহন চলাচল উপযোগী সড়ক করা হবে।

 

পূর্বকোণ/আর

শেয়ার করুন