চট্টগ্রাম রবিবার, ১৬ জুন, ২০২৪

৩ বছরের শিশু জারার পাহাড় জয়

পূর্বকোণ ডেস্ক

১৮ জানুয়ারি, ২০২১ | ১১:৫৭ অপরাহ্ণ

বান্দরবানের মারায়ন তং পাহাড়ের উচ্চতা এক হাজার ৬০ ফুট। আর সেই উচ্চতা পাড়ি দিয়ে জয় করল ৩ বছরের শিশু সাবিলা মোস্তাফিজ জারা। পায়ে হেটে পাবনার চাটমোহরের এই শিশু সবাইকে অবাক করে দিয়েছে। সম্প্রতি বাবা-মায়ের সঙ্গে বেড়াতে গিয়ে কারও কোলে না উঠে নিজেই হেঁটে খাড়া পাহাড়টিতে ওঠা-নামা করেছে সে।

এদিকে জারার পায়ে হেঁটে পাহাড়ে ওঠা-নামার বিষয়টিতে বিস্ময় প্রকাশ করেছেন বান্দরবানের পর্যটক গাইডরাও। তারা জানান, এর আগে এত কম বয়সী শিশু পায়ে হেঁটে কখনও পাহাড়ে ওঠেনি। জারা’র এমন কৃতিত্বে একইসাথে খুশি ও গর্বিত তার মা-বাবা এবং আত্মীয়-স্বজনরা।

ফ্রিল্যান্স ওয়েবসাইট ডেভেলপার মুস্তাফিজুর রহমান ও সাদিয়া ইসলাম ইলা দম্পতির একমাত্র সন্তান জারা। তারা পাবনার চাটমোহর পৌর সদরের চৌধুরীপাড়া মহল্লার বাসিন্দা। ভ্রমণপিপাসু বাবা-মায়ের মুখে বিভিন্ন সময়ে পাহাড় আর সমুদ্রে ঘোরাঘুরির গল্প শুনে তিন বছরের জারা আধো আধো কথায় বাবা-মায়ের কাছে আবদার করত পাহাড়-সমুদ্র দেখার।

গত ৫ জানুয়ারি মেয়ের আবদার রাখতে চাটমোহর থেকে বান্দরবানের উদ্দেশ্যে রওনা হন বাবা-মা। ৬ জানুয়ারি দুপুরে আলীকদম উপজেলার আবাসিক এলাকার মিরিঞ্জা রেঞ্জে পৌঁছায়। বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে এক হাজার ৬৬০ ফুট উচ্চতার মারায়ন তং পাহাড়ে ওঠা শুরু করেন তারা। তাদের সঙ্গী তিন বছরের মেয়ে জারাকে কোলে নিয়ে পাহাড়ে ওঠার জন‌্য পর্যটক গাইড ভাড়া করা হয়। কিন্তু জারা কারও কোলে না উঠে নিজের পায়ে হেঁটে মারায়ন তং পাহাড়ের চূড়ায় পৌঁছায়। খাড়া এই পাহাড়ে উঠতে তাদের সময় লাগে ১ ঘণ্টা ৪৩ মিনিট। এতটা পথ ও সময় যেখানে উঠতে বড়রাই যেখানে হাঁপিয়ে ওঠেন, সেখানে ৩ বছরের মেয়ের হেঁটে পাহাড়ে ওঠায় হতবাক বাবা-মা।

জারার বাবা মুস্তাফিজুর রহমান বলেন, ‘জারা হেঁটে উঠবে তা ভাবতে পারিনি। তাকে কোলে নিয়ে উঠতে হবে ভেবে গাইডও ভাড়া করেছিলাম। কিন্তু কোলে নিলেই কান্নাকাটি শুরু করছিল সে। পরে আমাদের সাথে হেঁটেই পাহাড়ে ওঠে সে। শুধু হেঁটে পাহাড়ের চূড়ায় ওঠাই নয়, নামার সময়েও নিজেই হেঁটে নিচে নেমেছে জারা।’

তিনি মেয়ের কৃতিত্বটুকু রেকর্ড রাখাসহ স্বীকৃতি দিতে দাবি জানিয়ে বলেন, ‘পাহাড় থেকে নামার পর তারা গাইড ও স্থানীয় বিভিন্ন মানুষের সাথে কথা বলে জানতে পেরেছি- এর আগে এত কম বয়সে কোনো শিশু পাহাড়ে হেঁটে উঠতে পারেনি। তবে এর বাইরে যদি কারও কোনো তথ্য জানা থাকে, তাহলে সেটা দেখতে পারেন।

বান্দরবানের আলীকদম উপজেলার পর্যটক গাইড ইয়াসিন আলী, জামাল হোসেন ও মুন্না হোসেন জানান, তিন বছরের শিশু জারা হেঁটে মারায়ন তং পাহাড়ে উঠেছে এটা সত্য। তারা সবসময় শিশুটির সঙ্গে ছিলেন। শিশু জারার এমন মনোবল দেখে তারাও বিস্মিত। এর আগে তিন বা চার বছর বয়সী কোনো শিশুকে তারা পায়ে হেঁটে পাহাড়ে উঠতে দেখেননি বা শোনেননি। এর আগে সাত বছর বয়সী এক শিশু পাহাড়ে উঠলেও মাঝপথে তাকে কোলে নিয়ে উঠতে হয়েছিল।

পূর্বকোণ/আরপি

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট