চট্টগ্রাম বৃহষ্পতিবার, ১৮ এপ্রিল, ২০২৪

সর্বশেষ:

আজ থেকে বিশ্বঝুড়ে ক্রিকেট উন্মাদনা

১০ দেশ, লক্ষ্য এক ট্রফি

হুমায়ুন কবির কিরণ

৫ অক্টোবর, ২০২৩ | ১২:০৮ অপরাহ্ণ

অপেক্ষার পালা শেষ, আর মাত্র কয়েক ঘণ্টা পরই ভারতের আহমেদাবাদে নিউজিল্যান্ড ও ইংল্যান্ডের মধ্যকার ম্যাচ দিয়ে শুরু হচ্ছে ১৩তম ক্রিকেট বিশ্বকাপ। তবে শুরুর আগেই ধাক্কা খেলো এবারের আসর। আয়োজকরা গতকাল জমকালো উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের ঘোষণা দিয়ে রাখলেও প্রকৃত অর্থে ১০ দলের অধিনায়কদের নিয়ে ফটোসেশন ও প্রশ্নোত্তর পর্ব ছাড়া আর কিছুই হয়নি। ক্রিকেট ভক্তদের নজর অবশ্য নিশ্চিতভাবেই থাকছে আজ দুপুরের পরের সময়টার দিকে। কারণ বেলা আড়াইটায় গতবারের ফাইনালিস্ট দু’দল নিউজিল্যান্ড ও ইংল্যান্ড মুখোমুখি হবে। জিটিভি ও স্টার স্পোর্টস ম্যাচ সরাসরি সম্প্রচার করবে।

 

উপমহাদেশে ক্রিকেট উন্মাদনা বরাবরই বাড়তি মাত্রা যোগ করে। বিশ^কাপের মতো আসরে সেই উত্তাপ আরও বেড়ে যায়। এই বাংলাদেশে স্কোয়াড ঘোষণা নিয়ে জল গড়িয়েছে বহুদূর। অভিজ্ঞতা ও তরুণ্যের মিশেলে বাংলাদেশ দল সমালোচকদের আস্থা কুড়াতে না পারলেও সাকিব আল হাসানদের সামর্থ্য আছে ভালো কিছু করার। অন্তত প্রথম দুটি ম্যাচে, ৭ অক্টোবর আফগানিস্তান ও ১০ অক্টোবর ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে ফলাফল নিজেদের অনূকুলে আনতে পারলে টাইগারদের বিশ^কাপ মিশনের চেহারাই পাল্টে যাবে। এবারের আসরে ৪৫ দিনে ১০টি ভিন্ন ভেন্যুতে ৪৮টি ম্যাচে ১০টি দেশ অংশ নিবে। ভারত প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির নামে প্রতিষ্ঠিত ১ লাখ ৩০ হাজার ধারণক্ষমতা সম্পন্ন এ স্টেডিয়ামেই ১৯ নভেম্বর ফাইনাল অনুষ্ঠিত  হবে। একই ভেন্যুতে ১৪ অক্টোবর টুর্নামেন্টের সবচেয়ে আকর্ষণীয় ম্যাচে ভারত-পাকিস্তান মুখোমুখি হবে।

 

১৯৮৩ সালে প্রথমবার বিশ্বকাপের শিরোপা জয় করেছিল ভারত। এরপর  ২০১১ সালে ঘরের মাঠে দ্বিতীয় শিরোপা জিতেছিল মহেন্দ্র সিং ধোনির  নেতৃত্বাধীন  টিম ইন্ডিয়া। ওয়নডে ফরম্যাটে ১৩ হাজার রানের মালিক বিরাট কোহলিকে নিয়ে ভারত এবারও নিজেদের মাটিতে শিরোপা জয়ের অন্যতম ফেবারিট হিসেবেই মাঠে নামবে। ১৯৯২ সালের চ্যাম্পিয়ন পাকিস্তান আগের বিশ^কাপগুলোতে সাতবার ভারতের কাছে পরাজিত হয়েছে। যদিও ওয়ানডে ব্যাটিং র‌্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষে থাকা অধিনায়ক বাবর আজমের নেতৃত্বে বদলে যাওয়া পাকিস্তান তাদের আক্রমণাত্মক বোলিং বিভাগ নিয়েও এবার বেশ আশাবাদী। ৫৮’রও বেশি ব্যাটিং গড় নিয়ে কোহলির থেকেও এগিয়ে আছেন বাবর। প্রস্তুতি ম্যাচে অবশ্য দুটিতেই পরাজিত হয়ে বাবর আজমের দল।

 

বর্তমান চ্যাম্পিয়ন ইংল্যান্ড চার বছর আগে লর্ডসে দারুন উত্তেজনাপূর্ণ ফাইনালে নিউজিল্যান্ডকে সুপার ওভারে পরাজিত করে শিরোপা জয় করেছিল। এবারের আসরই ক্যারিয়ারের শেষ বিশ^কাপ হতে যাচ্ছে বাংলাদেশের অধিনায়ক সাকিব আল হাসানের জন্য। ওয়ানডে অলরাউন্ডার র‌্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষস্থানে থাকা সাকিবের উপর ভর করেই বাংলাদেশ গত কয়েক বছর নিজেদের এগিয়ে নিয়ে গেছে। বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার ৩৬ বছর বয়সী সাকিব ওয়ানডেতে নয়টি সেঞ্চুরি ও ৫৫টি হাফ সেঞ্চুরিসহ ৭ হাজারেরও উপর রান করেছেন, উইকেট দখল করেছেন ৩০৮টি। আফগানিস্তানের বিপক্ষে শনিবার নিজেদের প্রথম ম্যাচেই উজ্জীবিত বাংলাদেশ নিজেদের প্রমাণ করতে মুখিয়ে আছে।

 

ওদিকে বিশ্বকাপে সর্বাধিক পাঁচবারের চ্যাম্পিয়ন অস্ট্রেলিয়ার অভিজ্ঞ ব্যাটার ডেভিড ওয়ার্নারকে নিয়ে দারুন আত্মবিশ্বাসী। ওয়ানডেতে ৬৩০০ রানের বেশি সংগ্রহ করা ওয়ার্নারের সাম্প্রতিক ফর্ম অজিদের বাড়তি অনুপ্রেরণা দিচ্ছে। বিশ^কাপে চোকার্স হিসেবে পরিচিত দক্ষিণ আফ্রিকা এবার সেই তকমা থেকে বেরিয়ে আসতে চায়। ১৯৯২, ১৯৯৯, ২০১১ ও ২০১৫ সালের বিশ^কাপের সেমিফাইনালে উঠেও ফাইনালের টিকিট পায়নি তারা। বৃষ্টি আইনের অঙ্ক মেলাতে ভুল করা, ল্যান্স ক্লুজনারের ভুল সিদ্ধান্তে অ্যালান ডোনাল্ডের রান আউট হওয়া বা হার্শেল গিবসের সহজ ক্যাচ ফেলে দেয়া- এসব ঘটনায় চোকার্স খ্যাতি পায় দক্ষিণ আফ্রিকা। স্পিন নির্ভর আফগানিস্তান ভারতীয় উইকেটের সহায়তা নিয়ে এগিয়ে যেতে চায়। রশিদ খান, মোহাম্মদ নবী, মুজিব উর রহমান ও নুর আহমেদ আফগানদের আত্মবিশ্বাস যোগাচ্ছে। আইপিএল’র খেলার অভিজ্ঞতা কাজে লাগিয়ে এই স্পিনাররাই আফগানিস্তানকে নতুনভাবে বিশ্বকাপে মর্যাদা দিতে চায়।

 

১৯৯৬ সালে ফেবারিটদের পিছনে ফেলে শিরোপা জয় করে পুরো বিশ্বকে তাক লাগিয়ে দিয়েছিল শ্রীলংকা। কিন্তু পরিবর্তিত সময় পার করে আবারো বিশ্বকাপে ঘুড়ে দাঁড়ানোর চেষ্টা করছে দাসুন সানাকার দল। শীর্ষ সারির দলগুলোর বাইরে  বাছাই পর্ব থেকে উঠে একমাত্র দল হিসেবে এবার বিশ্বকাপে মাঠে নামবে নেদারল্যান্ড। দুইবারের চ্যাম্পিয়ন ওয়েস্ট ইন্ডিজকে বাছাইপর্বে বিদায় করে দিয়ে ভারতের টিকিট নিশ্চিত করা নেদারল্যান্ডকে কিছুটা হলেও সমীহ করতে হবে প্রতিপক্ষ দলগুলোকে।

পূর্বকোণ/পিআর 

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট