চট্টগ্রাম বৃহষ্পতিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারী, ২০২৪

পয়েন্টের খোঁজে দ. আফ্রিকা-পাকিস্তান

স্পোর্টস ডেস্ক

২৩ জুন, ২০১৯ | ১:৫৮ পূর্বাহ্ণ

হারের ধাক্কা জ্বালা ধরেছে ক্রিকেটারদের মনে। এই জ্বালাই এ বার ঘুরে দাঁড় করাবে টিম পাকিস্তানকে। দেখাবে সেমিফাইনালে যাওয়ার স্বপ্ন। এমনই মনে করছেন পাকিস্তান ক্রিকেটার মোহাম্মদ হাফিজ। আর সে লক্ষ্যেই দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে মাঠে নামছে সরফরাজ বাহিনী। বিশ্বকাপে দুই দলেরই দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে। দুই দলই জিতেছে মাত্র ১ ম্যাচ, ড্র করেছে আরও এক। সব মিলিয়ে তিন পয়েন্ট নিয়ে বিশ্বকাপের পয়েন্ট টেবিলে শেষদিকে জায়গা হাতরাচ্ছে দক্ষিণ আফ্রিকা-পাকিস্তান। এমন অবস্থায় আজ সুপার সান ডে-তে একে অন্যের মুখোমুখি। ওভালে পয়েন্টের খোঁজে ডুপ্লেসিস-সরফরাজরা মাঠে নামাবে বাংলাদেশ সময় বিকাল সাড়ে তিনটায়।
দুই দলের পয়েন্ট সমান কিন্তু পাকিস্তান ৫টি ম্যাচ খেললেও প্রোটিয়ারার একটি ম্যাচ বেশী খেলছে। এজন্য শেষ তিন ম্যাচে জয় ছাড়া অন্য কোনো পথ খোলা নেই দক্ষিণ আফ্রিকার। একটি ম্যাচ হারলেই তাদের বিদায় নিশ্চিত হয়ে যাবে। এমন সমীকরণ জানেন দক্ষিণ আফ্রিকার অধিনায়ক ফাফ ডু প্লেসিস। তিনি বলেছেন, ‘আমাদের দেয়ালে পিঠ ঠেকে গেছে। জয় ছাড়া অন্য কিছু ভাবার সুযোগই নেই। পাকিস্তানের বিপক্ষে জয়ের জন্যই মাঠে নামব আমরা।’ দক্ষিণ আফ্রিকা যতটা বিপদে আছে, পাকিস্তান ততটা না। তারপরও পাকিস্তানের সেমিতে যাবার পথ কঠিনই বটে। সেই পথকে সহজ করতে হলে বাকি চার ম্যাচেই জিততে হবে তাদের। তিন ম্যাচ জিতলেও আশা থাকবে। তবে অনেক সমীকরণের উপর নির্ভর করতে হবে পাকিস্তানকে। পাকিস্তান দলের অন্যতম সিনিয়র ক্রিকেটার হাফিজ বলেছেন, ‘লিগ টেবিলে যখন আমাদের টিমকে নয় নম্বরে দেখি, তখন প্রবল যন্ত্রণা হয়।’ হাফিজের কথায়, ‘আমরা এখনও পর্যন্ত টিম হয়ে খেলতে পারিনি। ব্যক্তিগত দক্ষতা কিছু ক্ষেত্রে দেখাতে পারলেও টিমগেম না থাকলে জেতা সম্ভব নয়।’ এই পরিস্থিতি থেকেও পাকিস্তানের পক্ষে ঘুরে দাঁড়ানো সম্ভব। মনে করছেন হাফিজ, ‘ভারতের কাছে হারের পর আমরা অনেকটা সময় পেয়েছি। তার মধ্যে আমরা ভুলগুলো নিয়ে আলোচনা করেছি। দক্ষিণ আফ্রিকা ম্যাচে আমরা ঘুরে দাঁড়াবই।’
বিশ্বকাপে মোট চারবার একে অন্যের মুখোমুখি হয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকা-পাকিস্তান। চার সাক্ষাতে তিনবার ম্যাচ জিতেছে প্রোটিয়ারা। একবার মাত্র ম্যাচ জিতেছে পাকিস্তান। আজ দক্ষিণ আফ্রিকা দলে এন্ডিলে ফেহেলুকওয়ার বদলে জায়গা করে নিতে পারেন জে পি ডুমিনি। পাকিস্তান দলে একাধিক পরিবর্তন হতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে। ফর্মের ধারে কাছে নেই হাসান আলি। তাঁর বদলে খেলতে পারেন শাহিন আফ্রিদি বা মোহম্মদ হাসনাইন। ভারতের বিরুদ্ধে শেষ ম্যাচে শূন্য রানে আউট হন শোয়েব। বিশ্বকাপে সেভাবে রানের ছন্দে নেই, তাই তার বদলে দলে আসতে পারেন আসিফ আলি। আমির-ওয়াহাবের সুইং, বাবর আজমের ব্যাটিং পাক দলের শক্তি হলেও দুর্বলতা হচ্ছে ওপেনিংয়ে বড় রান নেই, ব্যাটিংয়ের ছন্দে নেই ক্রিকেটাররা। দক্ষিণ আফ্রিকার শক্তি তাহির- রাবাদার বোলিং, ব্যাটে আমলা ও মিডল অর্ডারে ছন্দে থাকা ডুসেন। তবে দলের দুর্বলতা ফিল্ডিং এবং এর কারণেই নিউজল্যান্ডের বিরুদ্ধে শেষ ম্যাচে হেরেছে প্রোটিয়ারা।
ওয়ানডেতে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে পাকিস্তানের জয়ের রেকর্ড ভালো নয়। এখন পর্যন্ত ৭৮ ম্যাচে মুখোমুখি হয়েছে দুই দল। এর মধ্যে ৫০টিতে জিতেছে প্রোটিয়ারা। ২৭টি ম্যাচে জয় পাকিস্তানের। চলতি বছরের শুরুতে দক্ষিণ আফ্রিকার মাটিতে পাঁচ ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ খেলেছে পাকিস্তান। দুর্দান্ত লড়াইয়ের পর শেষ ম্যাচ হেরে সিরিজ হাতছাড়া করে পাকিস্তান।

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট