চট্টগ্রাম রবিবার, ২১ এপ্রিল, ২০২৪

বাংলাদেশের স্বপ্ন ছোঁয়ার ছক

স্পোর্টস ডেস্ক

২০ জুন, ২০১৯ | ২:০৪ পূর্বাহ্ণ

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে ৭ উইকেটে রেকর্ড চেজ করে জয়ের পর অনেকেই বলছেন, ১৭ জুন বাংলাদেশ নিজেদের ইতিহাসে সেরা ম্যাচটি খেললো। মজার ব্যাপার ক্রিকেট এমনই, সেরাটা প্রতিদিনই ছাপিয়ে যায়। ১৭ জুন যারা উৎসবের উপলক্ষ এনে দিলেন সেই টাইগাররা আজকের আগে পর্যন্ত ক’টা দিন কাটিয়েছেন আড্ডা-গল্পে আর অজি বধের পরিকল্পনায়। সেখানে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে মধুমাখা জয়ের আনন্দ ছিল, তার চেয়ে বেশি ছিল সেমিফাইনালে যাওয়ার ছক কষার আলোচনা। আজ নটিংহামের ট্রেন্টব্রিজে বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ যে পয়েন্ট টেবিলের দুয়ে থাকা অস্ট্রেলিয়া। সেমিফাইনালে যাওয়ার জন্য পরের চার ম্যাচেই লক্ষ্য জয়। অন্যতম ফেভারিট অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ম্যাচ দিয়েই সেই জয়ের শুরুটা করতে চায় বাংলাদেশ। পেছন থেকে আত্মবিশ্বাসের রসদ দিচ্ছে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে বিশাল জয়। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে বাংলাদেশের জয়টা প্রত্যাশিত ছিল। কিন্তু যেভাবে দাপট দেখিয়ে জিতেছে বাংলাদেশ সেটি আত্মবিশ্বাস আরও বাড়িয়ে দিচ্ছে। বিশ্বকাপে কঠিনতম ম্যাচের মধ্যে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে একটি হতে যাচ্ছে। তবে দলের আত্মবিশ্বাস তুঙ্গে, সঙ্গে রয়েছে সেমিফাইনালে খেলার ক্ষুধা। দেশসেরা ওপেনার তামিম ইকবালের অন্যতম পছন্দের দেশ ইংল্যান্ড। আলাদা করে বললে নটিংহাম শহরটা তার দারুণ পছন্দ। সেখানে অস্ট্রেলিয়াকে হারাতে পারলে তার চেয়ে তৃপ্তিদায়ক তামিমের কাছে আর কি-ই বা হতে পারে। টনটন ছাড়ার সময় এই বাঁ-হাতি ওপেনার বলেন, ‘ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হারানোর তুলনায় অস্ট্রেলিয়াকে হারানো অনেক কঠিন। তবে অসম্ভব নয়। আমাদের বিশ্বাস রাখতে হবে। এরপর মাঠে দেখা যাবে।’ এই বিশ্বকাপে বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব নতুন করে ব্যাটিং ঝলক দেখিয়ে চলেছেন। বিশ্বকাপে প্রথম চার ইনিংসে পঞ্চাশোর্ধ্ব রান পার করা চতুর্থ ক্রিকেটার সাকিব। দ্রুততম সময়ে আড়াইশ’ উইকেট ও ছয় হাজার রানের মাইলফলকও স্পর্শ করেছেন তিনি। বিশ্বকাপে নিজেদের দু’শতম ম্যাচ খেলেছেন। বিশ্বকাপে এরই মধ্যে বাংলাদেশের সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহকও তিনি (৩৮৪)। ওডিআইতে ২০তমবার হয়েছেন ম্যাচসেরা। বাংলাদেশের হয়ে যা সর্বোচ্চ। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ তামিম ইকবাল (১৪)। ক্যারিবীয়দের বিপক্ষে মুগ্ধতা ছড়ানো ম্যাচসেরা ইনিংস খেলার পর অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে শক্তিশালী পেস বোলিং আক্রমণও বড় কিছু মনে হচ্ছে না সাকিবের কাছে। অজি চ্যালেঞ্জের জন্য প্রস্তুত বাংলাদেশ। সাকিব বলেন, ‘গত চার ম্যাচেই আমরা সেরাদের কাতারে থাকা পেস বোলারদের খেলেছি। সব ম্যাচেই আমাদের প্রতিপক্ষে অন্তত এমন দু’জন বোলার ছিল, যারা ১৪০ কিলোমিটার ছাড়ানো গতিতে বল করে। আমরা যথেষ্টই ভালো মানিয়ে নিয়েছি। আমাদের দুর্ভাবনা নেই। ইংল্যান্ড-ওয়েস্ট ইন্ডিজকে খেলেছি। ১৪০-১৫০ কিলোমিটার গতিতে বল করা পেসার ছিল দু’দলেই। আমাদের এখন মৌলিক বিষয়গুলো ঠিক রাখতে হবে। দল হিসেবে আমরা সব চ্যালেঞ্জের জবাব দিতে প্রস্তুত আছি।’ টনটনের সুখস্মৃতি নিয়ে মঙ্গলবার নটিংহামে পৌছেছে বাংলাদেশ দল। সেমিফাইনালের পথে সেখানে আজ আরও কঠিন বাধা পেরোতে হবে বাংলাদেশকে। এবার প্রতিপক্ষ শক্তিশালী অস্ট্রেলিয়া। অ্যারন ফিঞ্চদের হারাতে পারলেই বাংলাদেশের স্বপ্নের সেমিফাইনাল যাত্রা আরও জ্বলজ্বল করবে।

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট