চট্টগ্রাম রবিবার, ২৬ মে, ২০২৪

সর্বশেষ:

প্রাথমিকের শ্রেণি কার্যক্রম মর্নিং শিফট করুন

মিতা পোদ্দার

২০ এপ্রিল, ২০২৪ | ১১:২৬ অপরাহ্ণ

তীব্র তাপপ্রবাহে জনজীবন অতীষ্ঠ। গরম যেন উপচে পড়ছে দিনকে দিন। ঠিক এমন সময় বিদ্যালয়মুখী হতে হবে শিক্ষার্থীদের। যা শিক্ষার্থীদের জন্য যাতায়াত ও ক্লাস করা খুবই কষ্টকর। বিশেষ করে স্কুল পর্যায়ের শিশু শিক্ষার্থীরা বেশি ঝুঁকিতে পড়বে। বাসায় থেকে শিশুরা অসুস্থ হয়ে পড়ছে। সেখানে গরমে স্কুলে যাওয়া-আসা ও দীর্ঘ সময় ক্লাস সম্ভব নয়। শুধুমাত্র এক সপ্তাহ বন্ধ রাখলেই যে গরম শেষ হয়ে যাবে তাও কিন্তু নয়। এই গরম জুলাই আগস্টে গিয়ে আরও ভয়ঙ্কর রূপ ধারণ করতে পারে। যা শিখন ক্ষেত্রে দারুণ প্রভাব ফেলবে।

 

বিগত কয়েক বছরের অভিজ্ঞতা থেকে বলা যায়, প্রচন্ড গরমে শিক্ষার্থীরা স্কুলে আসতে চায় না। অনুপস্থিতি বেশি থাকে। কিছু শিক্ষার্থী এলেও বেশির ভাগ অনুপস্থিত থাকে। এতে করে শিক্ষাক্রমের উদ্দেশ্য ব্যাহত হয়। আবার বেশিরভাগ স্কুলের শ্রেণিকক্ষে গরমে স্বস্তিতে বসে ক্লাস করারও ব্যবস্থা নেই। শহর ও গ্রাম সব জায়গায় চলছে লোডশেডিং। ফলে স্কুলে এসে কোনো শিক্ষার্থী অসুস্থ হয়ে পড়লে অভিভাবকরা ভয়-আতঙ্কে সন্তানদের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে পাঠানো বন্ধ করে দেন।

 

শুধু তাই নয় প্রচন্ড গরমে শিশুদের বিভিন্ন ভয়াবহ রোগ হওয়াসহ নানা রকম সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়। এমতাবস্থায় শিক্ষা কার্যক্রম অটুট রাখার জন্য শিক্ষার্থীদের মর্নিং শিফট (সাময়িকভাবে) চালু করার জন্য শিক্ষামন্ত্রণালয় এবং মাননীয় শিক্ষামন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করছি। যা শিক্ষার্থীদের শিখন পরিবেশ কিছুটা হলেও স্বস্তির মধ্যে কাটবে।

 

শুধুমাত্র একসপ্তাহ বন্ধ রাখলেই শিশুরা গরমের প্রকোপ থেকে রক্ষা পাবে তা কিন্তু নয়। প্রতিকূল পরিবেশকে মোকাবিলা করে নিত্যকার্যক্রমকে চালিয়ে নেওয়াই জ্ঞানী ব্যক্তিদের কাজ। আমরা যেমন করোনা মোকাবিলা করতে শিক্ষা কার্যক্রমকে যেভাবেই হোক চালিয়ে নেওয়ার ব্যবস্থা করেছি ঠিক তেমনি তীব্র তাপদাহ থেকেও আমরা নিজেদের বাঁচাতে সক্ষম হব। বিষয়টি সবার নজরে নেওয়া অতীব গুরুত্বপূর্ণ।

 

 

পূর্বকোণ/জেইউ/পারভেজ

শেয়ার করুন