চট্টগ্রাম সোমবার, ২০ মে, ২০২৪

সর্বশেষ:

‘চাহিদা অনুযায়ী বিদ্যুৎ পাওয়া জনগণের বৈধ অধিকার’

৫ জুন, ২০২৩ | ৪:৪৫ অপরাহ্ণ

দেশে কয়লা/ডলার সংকট হবে তা মোটেও আনপ্রিডেক্টেবল হওয়ার কথা নয়। জুন মাসের আগে-পরে বকেয়া পাওনার জন্য কয়লা বন্ধ করে দেবে সাপ্লায়ার, তা মোটেও অজানা থাকার কথা নয়। জানি না, সে জানাটাও ব্যর্থতায় পর্যবসিত হয়ে গেছে কিনা।

পায়রা বন্ধ হয়ে গেলে সেটার বিকল্প বাঁশখালি এস আলম কয়লা বিদ্যুৎ সাথে সাথেই পূর্ণ ক্ষমতায় বিদ্যুৎ সরবরাহ করতে পারবে না, তা মোটেই অজানা থাকার কথা নয়। তারা মাত্র ট্র‍্যায়াল রান করছে।

পায়রার পাওনা ডলার পরিশোধের জন্য মারাত্মক ডলার ক্রাইসিস কালে অন্য অপ্রয়োজনীয় বা কম গুরুত্বপূর্ণ ব্যয় আপাতত কমিয়ে সেটা পাওনা পরিশোধের কাজে লাগানো যেত।

এরকম প্রচণ্ড তাপদাহ বা গরম পড়বে এবার, সেটা হয়ত অজানা। কিন্তু চরম সংকট এবং তা থেকে উত্তরণের উপায় সংক্রান্ত ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা অজানা থাকার কথা নয়।

বিদ্যুতের ব্যবহার কারো করুণা বা দান নয়, তা, জনগণের অধিকার। ২৫ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উদপাদন সক্ষমতা তৈরি করার পিছনে জগনগণের ঘামঝরা টাকা জড়িত রয়েছে। আকাশ থেকে টাকা আসেনি বা কারো ভিক্ষার দান নয়।

কাজেই প্রয়োজনের সময় চাহিদা অনুযায়ী বিদ্যুৎ পাওয়া জনগণের বৈধ অধিকার। বিদ্যুৎ সরবরাহ করতে বাধ্য আমরা। কিভাবে তা হবে, সেটা জনগণের মাথা ব্যথা নয়।

অর্থ পাচার আর দুর্নীতি বর্তমান ডলার সংকট এবং অর্থনৈতিক সংকটের জন্য কতটুকু দায়ী, সেটা অবশ্যই বিবেচনাযোগ্য।

বিদ্যুতের সাথে নেই পানি। বিদ্যুতের বিকল্প হাত পাখা আছে, উদোম গায়েও চড়ে বেড়ানো যায়। কিন্তু পানির বিকল্প কী?

জনজীবনে শান্তি নিশ্চিত করা সরকারে দায়িত্ব। জনগণের নয়।

লেখক: মাহবুব কবির মিলন, অতিরিক্ত সচিব (পিআরএল), লেখাটি ফেসবুক থেকে নেয়া। 

 

পূর্বকোণ/এসি

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট