চট্টগ্রাম রবিবার, ১৬ জুন, ২০২৪

ফাইল ছবি

শ্রম আইন লঙ্ঘন: ৪ জুলাই পর্যন্ত জামিনে থাকবেন ড. ইউনূস

অনলাইন ডেস্ক

২৩ মে, ২০২৪ | ৩:০৯ অপরাহ্ণ

গ্রামীণ টেলিকমের চেয়ারম্যান ও নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদ প্রফেসর ড. মুহাম্মদ ইউনূসসহ চার জনের বিরুদ্ধে শ্রম আইন লঙ্ঘনের অভিযোগে দায়ের করা মামলায় স্থায়ী জামিনের আবেদন না মঞ্জুর করেছেন আদালত। তবে আগামী ৪ জুলাই পর্যন্ত তার জামিন বাড়ানো হয়েছে।

 

বৃহস্পতিবার (২৩ মে) শ্রম আপিল ট্রাইব্যুনালের বিচারক এম এ আউয়ালের আদালতে মামলাটি আপিল শুনানি ও আসামিদের জামিন শুনানির দিন ধার্য ছিল। গত ১৬ এপ্রিল ড. ইউনূসসহ চার জনকে ২৩ মে পর্যন্ত জামিন দিয়েছিলেন শ্রম আপিল ট্রাইব্যুনাল। আজ জামিনের মেয়াদ শেষ হওয়ায় নতুন করে জামিন নিতে সকাল ১১টার দিকে রাজধানীর কাকরাইলে শ্রম আপিল ট্রাইব্যুনালে আসেন তারা। তাদের পক্ষে আইনজীবী স্থায়ী জামিন চেয়ে আবেদন করেন। তবে আদালত তাদের স্থায়ী জামিনের আবেদন নামঞ্জুর করে ৪ জুলাই পর্যন্ত জামিনের আদেশ দেন।

 

ড. ইউনূসের আইনজীবী ব্যারিস্টার আবদুল্লাহ আল মামুন এ সব তথ্য জানান।

 

গত ১ জানুয়ারি শ্রম আইন লঙ্ঘনের মামলায় ড. মুহাম্মদ ইউনূসসহ চার জনকে ৬ মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড, ৩০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড দেন আদালত। তবে আপিল করার শর্তে আসামিদের এক মাসের জামিন দেওয়া হয়। ঢাকার শ্রম আদালতের বিচারক শেখ মেরিনা সুলতানা এ রায় দেন।

 

কারাদণ্ডপ্রাপ্ত অপর তিন আসামি হলেন– গ্রামীণ টেলিকমের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. আশরাফুল হাসান, পরিচালক নুরজাহান বেগম ও মো. শাহজাহান।

 

জানা গেছে, ২০২১ সালের ৯ সেপ্টেম্বর ঢাকার তৃতীয় শ্রম আদালতে কল-কারখানা ও প্রতিষ্ঠান অধিদফতরের শ্রম পরিদর্শক আরিফুজ্জামান বাদী হয়ে ড. ইউনূসসহ চার জনের বিরুদ্ধে ওই মামলা করেন। মামলায় শ্রমিক কল্যাণ ফাউন্ডেশনে নির্দিষ্ট লভ্যাংশ জমা না দেওয়া, শ্রমিকদের চাকরি স্থায়ী না করা, গণছুটি নগদায়ন না করায় শ্রম আইনের ৪-এর ৭, ৮, ১১৭ ও ২৩৪ ধারায় অভিযোগ আনা হয়।

পূর্বকোণ/পিআর

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট