চট্টগ্রাম বৃহষ্পতিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারী, ২০২৪

সর্বশেষ:

ফাইল ছবি

যুক্তরাষ্ট্রের বক্তব্যে আমরা সামান্যতম অস্বস্তিতে নেই: কাদের

অনলাইন ডেস্ক

১৯ জানুয়ারি, ২০২৪ | ৯:১৩ অপরাহ্ণ

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন অবাধ ও সুষ্ঠু হওয়া প্রশ্নে যুক্তরাষ্ট্রের বক্তব্য নিয়ে সরকার কোনও অস্বস্তিতে নেই বলে দাবি করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, এ বিষয়ে আমরা সামান্যতম অস্বস্তিতে নেই। আমরা স্বস্তিতেই আছি।

শুক্রবার (১৯ জানুয়ারি) ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভাপতির কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন তিনি।

ওবায়দুল কাদের বলেন, পিটার হাস তো প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন। পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করে তিনি সম্পর্ক আরও নিবিড় করার কথা বলেছেন। কাজেই একটা বক্তব্যের ওপর একটা দেশের বা সরকারের নীতিমালা একই রকম না-ও হতে পারে। যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে আমাদের সম্পর্ক আছে। ভালো সম্পর্ক আরও ভালো করার জন্য আমরাও যথেষ্ট ধৈর্যশীল।

দেশের সমস্যার সমাধান এই মুহূর্তে সরকারের অগ্রাধিকার উল্লেখ করে তিনি বলেন, সামনে রমজান মাস। জিনিসপত্রের দাম মানুষের ক্রয়ক্ষমতার মধ্যে রাখাটা জরুরি হয়ে পড়েছে। দেশের সমস্যা নিয়েই এখন শেখ হাসিনার সরকারের সব ভাবনা। আমরা যে রাজনৈতিক সংকট অতিক্রম করে এসেছি, সেটা নিয়ে ক্ষেপণ করার সময় আমাদের নেই।

 

এক প্রশ্নের জবাবে কাদের বলেন, নানা বাধা ও প্রতিকূলতার মুখে দেশের জনগণ সারা দেশে যে ‘টার্ন আউট’ (ভোটের হার), সেটা অনেকেই ভাবতে পারেননি। এত অপপ্রচারের পরও ৪১ দশমিক ৮ শতাংশ ভোট কাস্ট হয়েছে।

 

তিনি বলেন, আমাদের এখানে অগণতান্ত্রিক পন্থায় কাউকে ক্ষমতায় বসানোর দেশি-বিদেশি অপতৎপরতা ছিল। এখনও যে নেই, সেটা বলা যায় না। দেশের জনগণ গণতন্ত্রের অকৃত্রিম পাহারাদার হিসেবে অগণতান্ত্রিক কিছু মেনে নেয়নি, ভবিষ্যতেও মেনে নেবে না।

বিএনপির চুপ থাকা প্রসঙ্গে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, এখন যে সহিংসতা বন্ধ আছে, এটাকে পার্মানেন্ট বলা যায় না। এখন হয়তো তারা প্রস্তুত হচ্ছে বড় ধরনের সহিংসতা করার জন্য। ভেতরে ভেতরে প্রস্তুতি নিচ্ছে, বাইরে কথা বলছে। তারা শক্তি সঞ্চয় করছে বড় ধরনের সহিংসতার। তবে তাদের প্রতি নতুন করে আর কোনও আহ্বান নেই। তারা নেতিবাচক রাজনীতি থেকে ইতিবাচক রাজনীতিতে ফিরে আসুক, এটাই চাই।

দলের নেতাকর্মীদের উদ্দেশ করে তিনি বলেন, মূল সংকট আমরা নির্বাচনের মাধ্যমে পেরিয়ে এসেছি। প্রাকৃতিক যে সংকট, তার ইতি কোথায় আমরা জানি না। আমাদের সবার ধৈর্য ধারণ করা উচিত। দায়িত্বশীল যারা, তাদের দায়িত্ব নিয়ে কথা বলা উচিত। এখন দেশের সব সমস্যা নিয়েই শেখ হাসিনা সরকারের ভাবনা।

তিনি আরও বলেন, আজ প্রধান নির্বাচন কমিশনার একটা বক্তব্য দিয়েছেন। আমরা তার বক্তব্যের সমালোচনা করবো না। নির্বাচন কমিশন একটা স্বাধীন কমিশন হিসেবে সংকটে একটা দায়িত্ব পালন করেছে।

 

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. আবদুল মঈন খানের সমালোচনা করে সেতুমন্ত্রী বলেন, তিনি (মঈন খান) বলেছেন, নির্বাচনকে বিশ্ববাসী সাজানো নাটক বলছে। কোন দেশ বলেছে? বরং ইউরোপীয় ইউনিয়ন ও প্রতিবেশী দেশগুলো প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে অভিনন্দন জানিয়েছে। খুব নিচু স্তরের সমালোচনা হচ্ছে, এগুলো নিয়ে মাথা ঘামালে আমরা সামনে এগোতে পারবো না।

পূর্বকোণ/আরআর/পারভেজ

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট