চট্টগ্রাম শনিবার, ১৫ জুন, ২০২৪

বিমানবন্দরে আটক ৩ রোহিঙ্গা নাগরিকের পেটে ৬ হাজার পিস ইয়াবা

অনলাইন ডেস্ক

৩ নভেম্বর, ২০২৩ | ৮:২৪ অপরাহ্ণ

রাজধানীর হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে আটক রোহিঙ্গা নাগরিকদের মধ্যে তিন জনের পাকস্থলী থেকে ৬ হাজার ২৭৫ পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার (২ নভেম্বর) সন্ধ্যায় আটকের পর ঢাকা মেডিকেল কলেজে চিকিৎসকের তত্ত্বাবধায়নে তাদের পাকস্থলী থেকে ইয়াবাগুলো উদ্ধার করা হয়। ঘটনাটি নিশ্চিত করেছেন এয়ারপোর্ট আর্মড পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জিয়াউল হক। 

 

তিনি জানান, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা সাতটার দিকে নভো এয়ারের কক্সবাজার ফ্লাইটে ঢাকায় এসে পৌঁছায় ছয় সদস্যের একটি রোহিঙ্গা পরিবার। বিমানবন্দরে অবতরণের পর এই পরিবারের আচরণ সন্দেহজনক মনে হলে এয়ারপোর্ট আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়নের (এপিবিএন) সদস্যরা তাদের আটক করে। 

 

পরে ওই পরিবারের চার সদস্যকে বিমানবন্দর সংলগ্ন উত্তরার একটি প্যাথলজি সেন্টারে পরীক্ষার জন্য নিয়ে যাওয়া হয়। এসময় ডাক্তারি পরীক্ষায় শিশু রুবেল (১৫), তার ফুফু আছিয়া বেগম (২৫) ও চাচি জোহুরা বেগমের (৩০) পাকস্থলীতে অস্বাভাবিক বস্তুর উপস্থিতি সম্পর্কে নিশ্চিত হওয়া যায়। রাতেই তাদের ঢাকা মেডিকেল কলেজে নিয়ে যাওয়া যায়। সেখানে তাদের পাকস্থলী থেকে মোট ১৩০টি ইয়াবার প্যাকেট উদ্ধার করে চিকিৎসকরা। 

 

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জিয়াউল আরও জানান, প্যাকেটগুলোতে ছয় হাজার ২৭৫ পিস ইয়াবা পাওয়া যায়। এর মধ্যে শিশু মো. রুবেলের পাকস্থলীতে ৪০ প্যাকেটে এক হাজার ৯৩০ পিস, আছিয়ার পাকস্থলীতে ৫২ প্যাকেটে দুই হাজার ৫১১ পিস ও জহুরা বেগমের পাকস্থলীতে ৩৮ প্যাকেটে এক হাজার ৮৩৪ পিস ইয়াবা পাওয়া যায়। অভিযুক্ত সবাই মিয়ানমার থেকে আসা রোহিঙ্গা। তারা সবাই কক্সবাজার টেকনাফের লেদা ক্যাম্পের অধিবাসী বলে জানা গেছে। 

ইয়াবা বহনের মূল পরিকল্পনাকারীর বিষয়ে জানতে চাইলে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জিয়াউল হক বলেন, মূল পরিকল্পনাকারী আছিয়া বেগমের স্বামী আলী আহমদ (২৮)। এসময় আছিয়া বেগমের দুগ্ধপোষ্য শিশু উমায়ের হোসেন (সাত মাস) ও জহুরা বেগমের দুগ্ধপোষ্য শিশু উম্মে ছালমাও (১০ মাস) তাদের সঙ্গে ছিল। এ ঘটনায় তাদের বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে বিমানবন্দর থানায় মামলার প্রক্রিয়া চলছে।

 

পূর্বকোণ/আরআর/পারভেজ

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট