চট্টগ্রাম শনিবার, ১৫ জুন, ২০২৪

স্বাধীন ফিলিস্তিন রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠাই সবচেয়ে জরুরি: ইউনূস

অনলাইন ডেস্ক

২২ অক্টোবর, ২০২৩ | ১১:১৮ অপরাহ্ণ

চলমান সংঘাতের মধ্যে স্বাধীন ফিলিস্তিন রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠাতেই সংকটের সমাধান দেখছেন নোবেল বিজয়ী মুহাম্মদ ইউনূস; তিনি মনে করেন, এক্ষেত্রে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে পারে যুক্তরাষ্ট্র।

 

রবিবার (২২ অক্টোবর) এক বিবৃতিতে তিনি বলেছেন, দুটি আলাদা রাষ্ট্র গঠনের জাতিসংঘের দীর্ঘ-উপেক্ষিত সিদ্ধান্তটি বাস্তবায়নই এখন আমাদের সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার হওয়া উচিত।

 

নতুবা পরিস্থিতি আমাদের কোথায় নিয়ে যাবে তা কেউ জানে না। বর্তমান পরিস্থিতি পুরো অঞ্চলে আগুন ধরিয়ে দিতে পারে, যা দ্রুত ছড়িয়ে পড়তে পারে গোটা পৃথিবীতে।

 

ইসরায়েলি বাহিনীর হামলায় ফিলিস্তিনে হাজারো মানুষের প্রাণহানির ঘটনায় বাংলাদেশে রাষ্ট্রীয় শোক পালনের পরদিন গ্রামীণ ব্যাংকের সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচালকের এ বিবৃতি এল।

 

ইউনূস বলেন, একটি ফিলিস্তিন রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা এখন সবচেয়ে জরুরি বিষয়। আর এটি প্রতিষ্ঠায় সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে পারে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র।

 

এ কাজে যুক্তরাষ্ট্র দ্রুত অগ্রসর হলে অন্যরাও তাকে অনুসরণ করবে। বাইডেন প্রশাসনকে অবিলম্বে এই অত্যন্ত জরুরি ও গুরুত্বপূর্ণ ইস্যুটিতে বিশ্বকে নেতৃত্ব দিতে হবে।

 

গত ৭ অক্টোবর হামাসের আক্রমণের পর থেকে গাজায় পাল্টা হামলা চালিয়ে আসছে ইসরায়েল। এখন পর্যন্ত ইসরায়েলের হামলায় সাড়ে ৩ হাজার মানুষের প্রাণ গেছে। বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও পানির সরবরাহ বন্ধ করে দেওয়ায় গাজায় তীব্র মানবিক সংকট তৈরি হয়েছে।

 

সবশেষ রবিবার ভোরে ইসরায়েলের বিমান বাহিনী অধিকৃত পশ্চিম তীরে একটি মসজিদ প্রাঙ্গণে হামলা চালিয়েছে। ইসরায়েলের হামলার নিন্দা জানিয়ে ফিলিস্তিনের পাশে থাকার কথা জানিয়েছে বাংলাদেশ।

 

ইউনূস বলেন, আমি এই বিরোধের সাথে সংশ্লিষ্ট সকল পক্ষকে অবিলম্বে বৈরিতা অবসানের আহ্বান জানাচ্ছি এবং এই ভয়ঙ্কর সংকটের মধ্যে নিপতিত নিরাপরাধ শিশু ও বেসামরিক মানুষদের নিরাপত্তা ও কল্যাণের সুরক্ষা দিতে সংশ্লিষ্ট সকলকে অনুরোধ করছি।

 

দুর্দশাগ্রস্ত জনসাধারণের নিকট জরুরি মানবিক সহায়তা পৌঁছে দেওয়া এখন অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। মানুষের জীবন রক্ষা, মর্যাদার সুরক্ষা এবং সমস্যার একটি স্থায়ী সমাধানের জন্য কাজ করার উপর আমাদের সম্পূর্ণ দৃষ্টি নিবদ্ধ করতে হবে।

 

ইসরায়েলি বাহিনীর হামলায় ফিলিস্তিনে হাজারো মানুষের প্রাণহানির ঘটনায় শনিবার শোক জানিয়েছে জাতীয় সংসদ। আগের দিন দেশের সব সরকারি, আধা-সরকারি ও স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠান এবং বিদেশে বাংলাদেশ মিশনগুলোতে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত রেখে রাষ্ট্রীয় শোক পালন করা হয়।

 

আর শুক্রবার জুমার নামাজের পর ফিলিস্তিনে নিহতদের আত্মার শান্তি ও আহতদের সুস্থতার জন্য বাংলাদেশের সব মসজিদে বিশেষ দোয়া এবং অন্যান্য ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানে বিশেষ প্রার্থনা করা হয়।

 

ফিলিস্তিন রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠায় ‘দ্রুততম সময়ে’ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার আহ্বান জানিয়ে শান্তিতে নোবেল জয়ী মুহাম্মদ ইউনূস বলেন, এই যুগে আমাদের সকলেরই সম্মিলিতভাবে এই বোধোদয় হওয়া উচিত যে, যুদ্ধ ও রক্তপাত আধুনিক সভ্যতার মূল্যবোধ ও অগ্রগতির সাথে একেবারেই সঙ্গতিপূর্ণ নয়।

 

হত্যা ও ধ্বংসের এই অর্থহীন তাণ্ডবলীলা সারা বিশ্ব ব্যথিত হয়ে দেখছে এবং ফিলিস্তিন ও ইসরাইলের মধ্যে শান্তি, সংহতি, সহযোগিতা ও বন্ধুত্বপূর্ণ সহাবস্থানের একটি ভবিষ্যত তৈরির জন্য কাজ করা- এখন আমাদের সকলের সম্মিলিত দায়িত্ব।

 

পূর্বকোণ/জেইউ/পারভেজ

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট