চট্টগ্রাম মঙ্গলবার, ১৮ জুন, ২০২৪

সর্বশেষ:

১ লাখ ৬০ হাজার মেট্রিক টন সার কিনছে সরকার

অনলাইন ডেস্ক

১১ অক্টোবর, ২০২৩ | ৯:৪০ অপরাহ্ণ

১ লাখ ৬০ হাজার মেট্রিক টন সার আমদানিসহ ১৫ প্রস্তাব অনুমোদন দিয়েছে সরকার। এতে ব্যয় হবে ১ হাজার ৪৮৭ কোটি টাকা। বুধবার সরকারি অর্থনৈতিক বিষয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠকে এ প্রস্তাব অনুমোদন দেওয়া হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। সংশ্লিষ্ট সূত্রে পাওয়া গেছে এ তথ্য।

 

সৌদি আরব থেকে ৩০ হাজার মেট্রিক টন ইউরিয়া সার আমদানি করা হবে। এতে মোট ব্যয় হবে ১২৮ কোটি টাকা। বাংলাদেশ কেমিক্যাল ইন্ডাস্ট্রিজ করপোরেশন (বিসিআইসি) এ সার আমদানি করবে। এছাড়া বিসিআইসি ৩০ হাজার মেট্রিক টন ইউরিয়া সার কিনবে কর্ণফুলী ফার্টিলাইজার কোম্পানি লিমিটেড (কাফকো) থেকে। এতে মোট ব্যয় হবে ১২৯ কোটি টাকা।

 

পৃথক প্রস্তাবে বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন করপোরেশনকে (বিএডিসি) রাষ্ট্রীয় পর্যায়ে চুক্তির আওতায় সৌদি আরব থেকে ৪০ হাজার মেট্রিক টন ডিএপি সার আমদানি করার অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। এতে ব্যয় হবে ২৫৫ কোটি টাকা। এছাড়া মরক্কোর ওসিপি ও এসএ থেকে আরও ৬০ হাজার মেট্রিক টন টিএসপি সার আমদানির সিদ্ধান্ত হয়। এতে ব্যয় ধরা হয় প্রায় ২৫৪ কোটি টাকা। বিএডিসি এ সার আমদানি করবে। 

 

এ ছাড়াও টিসিবি স্থানীয়ভাবে উন্মুক্ত দরপত্র পদ্ধতিতে ৬ হাজার মেট্রিক টন মসুর ডাল কিনবে বসুন্ধরা ফুড অ্যান্ড বেভারেজ লিমিটেড থেকে। এতে ব্যয় হবে ৬৭ কোটি ১১ লাখ টাকা। আর একই পদ্ধতিতে ৫০ লাখ লিটার সয়াবিন কিনবে বসুন্ধরা মাল্টি ফুড প্রোডাক্টস লিমিটেড থেকে। এতে ব্যয় হবে ৭৭ কোটি ৩৫ লাখ টাকা। দুটি প্রস্তাব বৈঠকে অনুমোদন দেওয়া হয়। এছাড়া সাড়ে ১২ হাজার টন মসুর ডাল আমদানি করবে টিসিবি। এতে ব্যয় হবে ১১৮ কোটি টাকা। 

 

বৈঠকে ‘মাতারবাড়ী কয়লা নির্ভর বিদ্যুৎ উৎপাদন কেন্দ্র নির্মাণ’ প্রকল্পের পূর্ত কাজের ভেরিয়েশন বাবদ অতিরিক্ত ২৭৫ কোটি টাকা ব্যয় বৃদ্ধির ক্রয় প্রস্তাব অনুমোদন দেওয়া হয়। এদিকে ‘ঘোনাপাড়া থেকে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সমাধিসৌধ (শেখ লুৎফর রহমান সেতু এপ্রোচসহ) সড়কাংশের মান ও প্রশস্ততায় উন্নীতকরণ’ প্রকল্পের পূর্ত কাজের প্রস্তাব অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। যৌথভাবে কাজটি করবে রিলাইবল বিল্ডার্স লিমিডেট ও কহিনুর এন্টারপ্রাইজ। এতে ব্যয় হবে প্রায় ১৩৭ কোটি টাকা।

 

এছাড়া ‘আখাউড়া থেকে লাকসাম পর্যন্ত ডুয়েলগেজ ডাবল রেললাইন এবং বিদ্যমান রেললাইনকে ডুয়েলগেজে রূপান্তর’ প্রকল্পের পূর্ত কাজের ভেরিয়েশন বাবদ অতিরিক্ত ৪৪৬ কোটি টাকা বৃদ্ধির ক্রয় প্রস্তাব অনুমোদন দেওয়া হয়। 

 

পূর্বকোণ/আরআর/পারভেজ

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট