চট্টগ্রাম শুক্রবার, ২৬ জুলাই, ২০২৪

সর্বশেষ:

জুলাইয়ে ৫০৫টি সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৫৭৬ জন

অনলাইন ডেস্ক

৫ আগস্ট, ২০২৩ | ১১:৩৭ অপরাহ্ণ

জুলাই মাসে ৫০৫টি সড়ক দুর্ঘটনা ঘটেছে। এতে ৫৭৬ জন নিহত এবং এক হাজার ৫৫ জন আহত হয়েছেন। একই সময় রেলপথে ৪৭টি দুর্ঘটনা ঘটে। এতে ৪৮ জন নিহত এবং পাঁচ জন আহত হন। নৌ-পথে ১৬টি দুর্ঘটনায় ২১ জন নিহত, ১৫ আহত এবং নিখোঁজ রয়েছেন ৩৮ জন। সড়ক, রেল ও নৌ-পথে ৫৬৮টি দুর্ঘটনায় ৬৪৪ জন নিহত এবং এক হাজার ৭৫ জন আহত হয়েছেন।

 

শনিবার (৫ আগস্ট) বাংলাদেশ যাত্রী কল্যাণ সমিতির দুর্ঘটনা মনিটরিং সেলের পর্যবেক্ষণ প্রতিবেদনে এসব তথ্য উঠে এসেছে। সংগঠনটির মহাসচিব মোজাম্মেল হক চৌধুরী সই করা এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বিষয়টি জানানো হয়।

 

দেশের জাতীয়, আঞ্চলিক ও অনলাইন সংবাদপত্রে প্রকাশিত সড়ক, রেল ও নৌ পথের দুর্ঘটনার সংবাদ মনিটরিং করে প্রতিবেদনটি তৈরি করা হয়েছে। এতে বলা হয়, জুলাইয়ে ১৮০টি মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় ১৯৫ জন নিহত, ১২২ জন আহত হয়েছেন, যা মোট দুর্ঘটনার ৩৫ দশমিক ৬৪ শতাংশ, নিহতের ৩৮ দশমিক ৬১ শতাংশ এবং আহতের ২৪ দশমিক ১৫ শতাংশ।

 

জুলাইয়ে সবচেয়ে বেশি সড়ক দুর্ঘটনা সংঘঠিত হয়েছে ঢাকা বিভাগে। এ বিভাগে ১৫৭টি সড়ক দুর্ঘটনায় ১৭৩ জন নিহত এবং ২৭১ জন আহত হয়েছেন। সবচেয়ে কম সড়ক দুর্ঘটনা সংঘঠিত হয়েছে বরিশাল বিভাগে। ২৩টি সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৩৮ এবং আহত হয়েছেন ১৩৮ জন।

 

সড়কে দুর্ঘটনায় আক্রান্ত ব্যক্তিদের মধ্যে ১০ জন আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য, ১৫৪ জন চালক, ৮৯ জন পথচারী, ৪২ জন পরিবহন শ্রমিক, ৩৬ জন শিক্ষার্থী, আট জন শিক্ষক, ১১৭ জন নারী, ৬৪ জন শিশু, একজন সাংবাদিক এবং ১০ জন বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতাকর্মীর পরিচয় মিলেছে। তাদের মধ্যে নিহত হয়েছেন একজন সেনাবাহিনীর সদস্য, তিন পুলিশ সদস্য, একজন নৌ বাহিনীর সদস্য, একজন বিজিবি সদস্য, একজন ফায়ার সার্ভিসকর্মী, ১১৯ জন বিভিন্ন পরিবহনের চালক, ৭৭ জন পথচারী, ৮২ জন নারী, ৪২ জন শিশু, ২৯ জন শিক্ষার্থী, ১৭ জন পরিবহন শ্রমিক, সাত জন শিক্ষক এবং সাত জন বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতাকর্মী।

 

এ সময় সড়ক দুর্ঘটনার কবলে পড়া ৭৩১টি যানবাহনের পরিচয় মিলেছে। এতে দেখা যায়, ২৫ দশমিক ৯৯ শতাংশ মোটরসাইকেল, ২২ দশমিক ৮৪ শতাংশ ট্রাক-পিকাপ-কাভার্ডভ্যান ও লরি, ১৮ দশমিক ৭৪ শতাংশ বাস, ১৫ দশমিক ৩২ শতাংশ ব্যাটারিচালিত রিকশা ও ইজিবাইক, ৫ দশমিক ৭৪ শতাংশ সিএনজিচালিত অটোরিকশা, ৪ দশমিক ৫১ শতাংশ নছিমন-করিমন-মাহিন্দ্রা-ট্রাক্টর ও লেগুনা, ৬ দশমিক ৮৩ শতাংশ কার-জিপ-মাইক্রোবাস সড়কে দুর্ঘটনার কবলে পড়েছে।

 

মোট দুর্ঘটনার ৫৪ দশমিক ৫ শতাংশ গাড়ি চাপা দেওয়ার ঘটনা, ২৬ দশমিক ৭৩ শতাংশ মুখোমুখি সংঘর্ষ, ১৩ দশমিক ৬ শতাংশ নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে খাদে পড়ে, ৫ দশমিক ৫৪ শতাংশ বিবিধ কারণে, শূন্য দশমিক ৩৯ শতাংশ গাড়ির চাকায় ওড়না পেঁচিয়ে এবং শূন্য দশমিক ১৯ শতাংশ ট্রেন-যানবাহন সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

 

দুর্ঘটনার ধরন বিশ্লেষণে দেখা যায়, এ মাসে সংঘঠিত মোট দুর্ঘটনার ৩৮ দশমিক ৬১ শতাংশ জাতীয় মহাসড়কে, ৩০ দশমিক ৬৯ শতাংশ আঞ্চলিক মহাসড়কে, ২৪ দশমিক ১৫ শতাংশ ফিডার রোডে সংঘটিত হয়েছে। এছাড়াও সারা দেশে সংঘটিত মোট দুর্ঘটনার ৫ দশমিক ৩৪ শতাংশ ঢাকা মহানগরীতে, শূন্য দশমিক ৩৯ শতাংশ চট্টগ্রাম মহানগরীতে এবং শূন্য ৭৯ শতাংশ রেলক্রসিংয়ে সংঘঠিত হয়েছে।

 

পূর্বকোণ/জেইউ/পারভেজ

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট