চট্টগ্রাম মঙ্গলবার, ১৮ জুন, ২০২৪

নির্বাচন সামনে রেখে তৎপর পুলিশ প্রশাসন : রিজভী

অনলাইন ডেস্ক

৮ মে, ২০২৩ | ৮:২০ অপরাহ্ণ

পুলিশ প্রশাসনকে জাতীয় নির্বাচন সামনে রেখে ‘সাজানোর’ অভিযোগ তুলেছেন বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী।

নয়া পল্টনে বিএনপির কার্যালয়ে সোমবার এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, “নির্বাচন সামনে রেখে পুলিশ প্রশাসনের দলবাজ হোমরা-চোমড়া অফিসাররা আবারো ২০১৪ ও ২০১৮ সালের মত রাজধানীর নিউ ইস্কাটনের বিয়াম ভবনসহ এখানে-সেখানে ভোট ডাকাতির কলা-কৌশল ও মাঠ সাজানেো নিয়ে ‍গুপ্ত বৈঠক শুরু করেছেন, আমরা বিভিন্ন গণমাধ্যমে এই সংবাদ পাচ্ছি।”

তিনি বলেন, “দ্বাদশ জাতীয় সংসদের নির্বাচনে আওয়ামী লীগকে বিজয়ী করার প্যাকেজ খরচ হিসেবে ১২২৬ কোটি টাকার বাজেট দিয়েছে পুলিশ। এরমধ্যে নির্বাচনের আগে বিরোধীদলের নেতাকর্মীদের দমনে ১৫৮ কোটি টাকা অস্ত্র ও গোলা বারুদ কেনাকাটায় ব্যয় হবে। 

“সংঘর্ষ ও ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া ঠেকাতে ৫৪০ কোটি টাকার যন্ত্রপাতি ও সরঞ্জামাদি ক্রয়ের প্রস্তাব রয়েছে তাদের বাজেটে। তথ্য প্রযুক্তি সরঞ্জামাদি, কম্পিউটার ও সফটওয়্যার কিনতে মোট ব্যয় হবে ২০ কোটি টাকা। সর্বশেষ ৮ নম্বর খাতে বলা হয়েছে, রাজনৈতিক কর্মসূচি বৃদ্ধির ফলে পুলিশের গতিও বাড়াতে হবে।” নির্বাচন সামনে রেখে ‘দলীয় পরিচয় দেখে’ পুলিশের পদায়ন করা হচ্ছে বলেও অভিযোগ করেন রিজভী। কারামুক্ত হওয়ার পর এদিনই প্রথম আনুষ্ঠানিক সংবাদ সম্মেলনে আসেন রিজভী। 

নিজের কারাবাসের কথা তুলে ধরে তিনি বলেন, “প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার স্বেচ্ছাচারিতার শিকার হয়ে বেশ কয়েক মাস কারাগারে কাটাতে হয়েছে আমাকে। অন্যায়ভাবে বন্দী হাজার হাজার মানুষ কারামুক্তির প্রহর গুণছে, একইভাবে কোটি কোটি গণতন্ত্রকামী মানুষ দেশে রচিত বৃহত্তর কারাগারে ক্ষমতাসীনদের গণতন্ত্রহীন অন্ধকার থেকে মুক্তি চাইছে।” 

অন্যদের মধ্যে বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা কাউন্সিলের সদস্য আবুল খায়ের ভুঁইয়া, যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন, কেন্দ্রীয় নেতা আবদুস সালাম আজাদ, মীর সরাফত আলী সপু, আসাদুল করীম শাহিন, মুনির হোসেন, শামীমুর রহমান শামীম, মীর নেওয়াজ আলী, সেলিমুজ্জামান সেলিম, আমিরুল ইসলাম খান আলিম সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন।

 

পূর্বকোণ/রাজীব/পারভেজ

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট