চট্টগ্রাম শনিবার, ২০ এপ্রিল, ২০২৪

সর্বশেষ:

জানুয়ারিতে সাত বছরের মধ্যে সর্বোচ্চ বায়ুদূষণ

নিজস্ব প্রতিবেদক

১১ ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ | ১১:০৩ অপরাহ্ণ

গত এক সপ্তাহে প্রায় প্রতিদিনই বায়ু দূষণের শীর্ষ অবস্থানে উঠে এসেছে ঢাকা। ২০২৩ সালের প্রথম মাসেই অতিরিক্ত অস্বাস্থ্যকর বা দুর্যোগপূর্ণ দিন ছিল ১০ দিন, যা গত সাত বছরের জানুয়ারি মাসের তুলনায় সবচেয়ে বেশি।

এয়ার কোয়ালিটি ইনডেক্সে (একিউআই) শনিবার (১১ ফেব্রুয়ারি) সন্ধ্যা ৭টায় আবারও দূষিত বাতাসের শীর্ষ অবস্থানে উঠে আসে ঢাকা। এসময় ঢাকার বায়ুমান ছিল ১৯৮।

শনিবার সকাল থেকে ঢাকার অবস্থান ছিল কখনও তৃতীয়, আবার কখনও চতুর্থ। এর আগে বৃহস্পতিবার সকালে ঢাকার বায়ুমান ছিল ২২৫, আর শুক্রবার ছিল ১৯৫। বায়ুর মান হিসেবে এই সবগুলো অবস্থানের মানে হলো, বাতাসের পরিস্থিতি অস্বাস্থ্যকর।

 

শুষ্ক মৌসুমে যত্রতত্র রাস্তা খোঁড়া, গাড়ির কালো ধোঁয়া আর নির্মাণ কাজের কারণে সবচেয়ে বেশি দূষিত হচ্ছে ঢাকা।

বাংলাদেশে অবস্থিত আমেরিকান দূতাবাস থেকে প্রাপ্ত ২০১৭ সাল থেকে ২০২৩ সাল পর্যন্ত সাত বছরে ঢাকার বায়ুমান সূচক বা AQI এর তথ্য বিশ্লেষণ করেছে বায়ুমণ্ডলীয় দূষণ অধ্যয়ন কেন্দ্র (ক্যাপস)। তারা জানান, গত সাত বছরের জানুয়ারি মাসের ২০৯ দিনের মধ্যে ৩৫ দিন দুর্যোগপূর্ণ এবং ১৪৫ দিন খুবই অস্বাস্থ্যকর দিন ছিল।

 

গত সাত বছরে জানুয়ারি মাসে ঢাকার মানুষের এক দিনের জন্যও ভালো বায়ু সেবন করার সৌভাগ্য হয়নি। শতকরা ৯৯ দশমিক শূন্য ৪ ভাগ দিনই বায়ুমান পরিস্থিতি ‘অস্বাস্থ্যকর’ থেকে ‘বিপজ্জনক’ বা অত্যন্ত অস্বাস্থ্যকর অবস্থায় ছিল।

সেই সঙ্গে গত সাত বছরে জানুয়ারি মাসে ঢাকার বায়ু মানের দিক থেকে ২০১৭ সালে ৫ দিন, ২০১৮ সালে ৪ দিন, ২০১৯ সালে ৪ দিন, ২০২০ সালে ৪ দিন, ২০২১ সালে ৭ দিন, ২০২২ সালে মাত্র ১ দিন অতিরিক্ত অস্বাস্থ্যকর বা দুর্যোগপূর্ণ অবস্থায় ছিল। সেইখানে ২০২৩ সালে অতিরিক্ত অস্বাস্থ্যকর বা দুর্যোগপূর্ণ দিন ছিল ১০ দিন।

 

তারা আরও জানায়, ২০২২ সালে জানুয়ারি মাসে ১৮ দিন খুবই অস্বাস্থ্যকর অবস্থায় ঢাকার বায়ুমান অবস্থান করেছে। ২০২৩ সালের জানুয়ারি মাসের ২১ দিনই ঢাকার বায়ুমান ছিল এর চেয়েও খারাপ বা ‘খুবই অস্বাস্থ্যকর’।

স্ট্যামফোর্ড বায়ুমণ্ডলীয় দূষণ অধ্যয়ন কেন্দ্রের (ক্যাপস) প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক অধ্যাপক ড. আহমদ কামরুজ্জামান মজুমদার বলেন, সরকার বেশ কিছু উদ্যোগ নিলেও নানা কারণেই দূষণ নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে গেছে। শুষ্ক মৌসুম শুরুর আরও আগে থেকেই বেশ কিছু পদক্ষেপ নেওয়া গেলে হয়তো দূষণ কম হতো। আমাদের গবেষণায় যে মাত্রা পাওয়া গেছে, তাতে গত সাত বছরের মধ্যে সবচেয়ে অস্বাস্থ্যকর বাতাস এবার জানুয়ারি মাসে সেবন করেছে ঢাকাবাসী। যা বিপদজনক মাত্রায় বেড়েই চলেছে।

 

এদিকে বায়ু দূষণের বিরুদ্ধে অভিযান করেই যাচ্ছে পরিবেশ অধিদফতর। গত এক সপ্তাহে মোট ৫ দিনে অর্থাৎ ৫ থেকে ৯ ফেব্রুয়ারির মধ্যে পরিচালিত অভিযানে মোট ১০ লাখ ৯০ হাজার ৮০০ টাকা জরিমানা করে তারা।

পরিবেশ অধিদপ্তরের পরিচালক (এনফোর্সমেন্ট) মোহাম্মদ মাসুদ পাটোয়ারী জানান, পরিবেশ অধিদফতরের মনিটরিং অ্যান্ড এনফোর্সমেন্ট উইং ও জেলা প্রশাসনের যৌথ উদ্যোগে ঢাকার আশেপাশে বায়ুদূষণ বিরোধী অভিযান অব্যাহত থাকবে।

 

পূর্বকোণ/মামুন/পারভেজ

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট