চট্টগ্রাম বৃহষ্পতিবার, ২৯ সেপ্টেম্বর, ২০২২

সর্বশেষ:

৮ আগস্ট, ২০২২ | ৯:২৮ অপরাহ্ণ

অনলাইন ডেস্ক

গণপরিবহন ও সংশ্লিষ্ট স্থানে মাসে ধর্ষণের শিকার অন্তত ৫ নারী

দেশের গণপরিবহনসহ বিভিন্ন বাহন এবং বাসস্ট্যান্ড-ট্রেন স্টেশনে প্রতিমাসে ৫ জনের বেশি নারী ধর্ষণের শিকার হন। একই সঙ্গে প্রতিমাসে নির্যাতনের শিকার হন ৭৬ জনের বেশি নারী। আজ সোমবার সেভ দ্য রোডের এক প্রতিবেদনে এসব তথ্য উঠে এসেছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ২০১৭-২০২২ সালের ৭ আগস্ট পর্যন্ত গণপরিবহন, অন্যান্য বাহন, বাসস্ট্যান্ড ও ট্রেন স্টেশনে চার হাজার ৬০১ জন নারী নির্যাতনের শিকার হয়েছেন। এছাড়া ধর্ষণের শিকার হয়েছেন ৩৫৭ জন ও খুন হয়েছেন ২৭ জন। সে হিসেবে প্রতিমাসে ৫ জনের বেশি ধর্ষণ ও ৭৬ জনের বেশি নারী নির্যাতনের শিকার হয়েছেন।

সেভ দ্য রোড’র মহাসচিব শান্তা ফারজানা বলেন, ৩১টি জাতীয় দৈনিক, বিভিন্ন সংবাদ সংস্থা ও টিভি চ্যানেলে প্রকাশিত তথ্য পাশাপাশি দেশের বিভিন্ন জেলা-উপজেলায় সক্রিয় সেভ দ্য রোডের স্বেচ্ছাসেবকদের তথ্যের ভিত্তিতে এ প্রতিবেদন তৈরি করা হয়েছে।

মহাসচিব বলেন, বাসস্ট্যান্ডগুলো স্বাস্থ্য সম্মত ও নিরাপদ না হওয়ার সুযোগকে কাজে লাগিয়ে এক শ্রেণির কুরুচিপূর্ণ মানুষ নারীদের পোশাক ও চলাফেরা নিয়ে যেমন বিভিন্নভাবে কটূক্তি করে, তেমনি নির্যাতন-নিপীড়ন করতেও পিছপা হয় না। পিছিয়ে নেই ট্রেন, লঞ্চঘাট বা বিমান বন্দরও। গণপরিবহন, বাসস্ট্যান্ড ও ট্রেন স্টেশনসহ বিভিন্ন পথে নির্যাতন-নিপীড়ন,ধর্ষণ ও খুনের নেপথ্য কারণ পুরুষদের হীন মানসিকতা এবং বিচারহীনতার সংস্কৃতিকেই দায়ী করেছে সংগঠনটি। পাশাপাশি তিনটি সুপারিশ তুলে ধরা হয়েছে প্রতিবেদনে। 

সুপারিশে সেভ দ্য রোড বলছে, রাষ্ট্রীয়ভাবে নারীর প্রতি সর্বোচ্চ সম্মান প্রদর্শনে সব শ্রেণি পেশার মানুষকে উদ্বুদ্ধ করতে ‘নারীর প্রতি সম্মান’ শীর্ষক সচেতনতা তৈরি করা। সেখানে ধর্মীয় অনুশাসন, নীতি, আদর্শ, সভ্যতার আলোকে বিভিন্ন বিষয় তুলে ধরতে হবে এবং তা বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রচার ও প্রথম শ্রেণি থেকে স্নাতকোত্তর শ্রেণির পাঠ্যবইতে সংযুক্ত করতে হবে। মালিক, চালক, হেলপার, সুপারভাইজারসহ সংশ্লিষ্টদের অবশ্যই যাত্রীদের প্রতি আচরণ প্রশিক্ষণ এবং অসদাচরণ করলে শাস্তির ঘোষণা দিতে হবে। এছাড়া প্রতি ৫ কিলোমিটার অন্তর পুলিশ বুথ স্থাপন, সব সড়ক, মহাসড়ক ও সেতুতে সিসিটিভি ক্যামেরার আওতায় আনতে সুপারিশ করা হয়।

 

পূর্বকোণ/রাজীব/পারভেজ

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট