চট্টগ্রাম শনিবার, ০৩ ডিসেম্বর, ২০২২

২৭ এপ্রিল, ২০১৯ | ৩:৫৫ পূর্বাহ্ণ

আরফাতুল মজিদ , কক্সবাজার

সংবাদ সম্মেলনে জাতিসংঘের প্রতিনিধি দল

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন কখন তা পরিস্থিতির উপর নির্ভরশীল

আরাকান আর্মির সাথে চলমান সংঘর্ষের কারণে মিয়ানমারে উত্তপ্ত পরিবেশ বিরাজমান। এই পরিবেশ রোহিঙ্গাদের জন্য নিরাপদ নয়। তাই রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন কখন হবে সেটা পরিস্থিতির উপর নির্ভরশীল।
গতকাল শুক্রবার বিকেলে কক্সবাজারের একটি তারকা হোটেলে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে একথা বলেন জাতিসংঘের শরণার্থী বিষয়ক হাইকমিশনার ফিলিপ্পো গ্র্যান্ডি।
গত বৃহস্পতিবার উখিয়ায় অবস্থিত রোহিঙ্গা শরণার্থী শিবির পরিদর্শনের জন্য কক্সবাজার আসেন জাতিসংঘের শরণার্থী বিষয়ক হাইকমিশনার ফিলিপ্পো গ্র্যান্ডি, জাতিসংঘের ইআরসি এবং ওকা’র প্রধান মার্ক লুকোক ও আইওএম এর মহাপরিচালক অ্যান্তোনিও ভিতোরিনো। শুক্রবার সকালে তারা রোহিঙ্গা শিবির পরিদর্শন করেন। পরে বিকেলে সাংবাদিকদের ব্রিফিং দেন।
ওকা’র প্রধান মার্ক লুকোক বলেন, মিয়ানমারের সাথে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনের জন্য যে চুক্তি হয়েছে, সেই অনুযায়ী কাজ করছে না মিয়ানমার। বিভিন্ন অজুহাত দেখিয়ে তারা প্রত্যাবাসন প্রক্রিয়া দীর্ঘায়িত করছে। তবে আমরা বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীকে আশ^স্ত করেছি দ্রুত রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে আমাদের সহযোগিতা অব্যাহত থাকবে। এজন্য আমরা কৌশলগতভাবে কার্যক্রম এগিয়ে নিচ্ছি।
তিনি আরও বলেন, বিপুল সংখ্যক রোহিঙ্গা বাংলাদেশে আসার কারণে স্থানীয় জনগণ নানাভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। তাই স্থানীয়দের জীবনমান উন্নয়নেও কাজ করা হবে।
আইওএম এর মহাপরিচালক অ্যান্তোনিও ভিতোরিনো বলেন, রোহিঙ্গাদের কারণে স্থানীয়দের সমস্যা হচ্ছে, এটা বুঝতে পেরেছি। এই সমস্যার সমাধান হবে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনের মাধ্যমে। তাই জাতিসংঘ চেষ্টা করছে দ্রুত রোহিঙ্গাদের স্বেচ্ছায় প্রত্যাবাসন শুরু করার।
ভাসানচরে রোহিঙ্গাদের স্থানান্তর নিয়ে অ্যান্তোনিও ভিতোরিনো বলেন, ভাসানচরে রোহিঙ্গাদের স্থানান্তরের বিষয়টি সম্পূর্ণ বাংলাদেশ সরকারের উপর নির্ভর করে। তবে বর্ষা মৌসুমসহ যেকোন প্রাকৃতিক দুর্যোগে এই দ্বীপটা বাসযোগ্য করে তোলা প্রয়োজন।
এর আগের দিন বৃহস্পতিবার বিকেল তিনটার দিকে ঢাকা থেকে কক্সবাজার বিমানবন্দরে পৌঁছান ২০ সদস্যের প্রতিনিধি দল। এরপর তারা প্রথমে জেলা প্রশাসক (ভারপ্রাপ্ত) আশরাফুল আবছার ও পরে ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশনার আবুল কালামের সাথে বৈঠক করেন। শুক্রবার সকালে ২০ সদস্যের প্রতিনিধি দল রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শন করেছেন।

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট