চট্টগ্রাম শনিবার, ২০ এপ্রিল, ২০২৪

একুশের চেতনায় বিকাশ বাঙালি জাতীয়তাবাদের

নিজস্ব প্রতিবেদক

১২ ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ | ১১:০৩ পূর্বাহ্ণ

আত্মত্যাগ, অহংকার, চেতনা আর গৌরবের মাস ফেব্রুয়ারি। মায়ের ভাষার অধিকার আদায়ে ১৯৫২ সালের এ মাসে তৎকালীন শাসকগোষ্ঠীর বিরুদ্ধে দুর্বার আন্দোলন গড়ে তুলেছিল বাঙালি। ভাষার জন্য এমন আত্মত্যাগ পৃথিবীর ইতিহাসে বিরল। পাকিস্তান শাসকগোষ্ঠীর সব চক্রান্ত রুখে দিয়ে সেদিন বীর বাঙালি অধিকার আদায় করেছিল। বাঙালির অনেক দাবি ও অর্জন ভাষা আন্দোলনের মাধ্যমেই।

 

১৯৪৭ সালের ১৪ আগস্ট পাকিস্তান প্রতিষ্ঠার পর থেকেই নতুন রাষ্ট্রের দুই খণ্ডে দুই ভিন্ন ভাষা-সংস্কৃতির মানুষদের একই সুতোয় বেঁধে রাখার কৃত্রিম প্রচেষ্টা শুরু হয়। পাকিস্তানের শাসকগোষ্ঠী রাষ্ট্রভাষা উর্দু করার সিদ্ধান্ত নিলে বাঙালি তা প্রত্যাখ্যান করে। শিক্ষিত সমাজে প্রতিক্রিয়া প্রবল হয়।

 

বাংলা ভাষাকে অন্যতম রাষ্ট্রভাষা করার দাবিতে ছাত্রসমাজ সোচ্চার হয় এবং আন্দোলনে নেমে পড়ে। প্রথম ভাষা আন্দোলন শুরু হয় ১৯৪৭ সালের ৬ ডিসেম্বর এবং প্রত্যক্ষ সংগ্রামে রূপ নেয় ১৯৪৮ সালের ১১ মার্চ। ভাষা আন্দোলনের বিস্ফোরণ ঘটে ১৯৫২ সালের ২১ ফেব্রুয়ারি। ভাষা আন্দোলনের শহীদদের তাজা রক্তে রাজপথ যখন রঞ্জিত হয় তখন এ দেশের মানুষ মাতৃভাষাকে নতুনভাবে অর্জন করে। এ অর্জন দিয়েছিল অদম্য সাহস, যুগিয়েছিল সীমাহীন প্রেরণা।

 

২১ ফেব্রুয়ারি একুশ নামে পরিচিত হলো। একুশ থেকে সৃষ্টি হয় ২১ দফা। এই ২১ দফা একটি ঐতিহাসিক দলিল। ২১ দফার চারটি দফা ছিল ভাষা ও একুশ সংক্রান্ত। ২১ দফা যুক্তফ্রন্টের নির্বাচনী ইশতেহার হিসেবে জনমনে এতই আলোড়ন সৃষ্টি করেছিল যে, ১৯৫৪ সালের প্রাদেশিক নির্বাচনে মুসলিম লীগের ভরাডুবি হয় এবং যুক্তফ্রন্ট ক্ষমতায় আসে। ১৯৫৫ সালের ৩ ডিসেম্বর বর্ধমান হাউসে বাংলা একাডেমি প্রতিষ্ঠিত হয়। এই একাডেমি বাংলা ভাষা, সাহিত্য সংস্কৃতির বিকাশে উল্লেখযোগ্য অবদান রাখতে শুরু করে। ধীরে ধীরে একুশের চেতনায় বাঙালি জাতীয়তাবাদের বিকাশ ঘটে।

 

 

 

 

পূর্বকোণ/জেইউ

শেয়ার করুন