চট্টগ্রাম বৃহষ্পতিবার, ১৮ এপ্রিল, ২০২৪

জাফির শাফি চৌধুরীর বাবা

আজ আমার খুশির দিন

ডা. জামাল উদ্দিন চৌধুরী

২৭ মে, ২০২২ | ৫:৩৪ পূর্বাহ্ণ

এশিয়ার চার হাজার সম্ভাবনাময় তরুণ থেকে বাছাই করা সেরা তিনশ জনের তালিকায় আমার ছেলে ও তার বন্ধু স্থান পেয়েছে। বিশ্ববিখ্যাত সাময়িকী ফোর্বস এর তালিকায় ছবিসহ ছেলের নাম দেখে আমি ভীষণ খুশি। আজ আমার খুশির দিন। আমি নিজে ডাক্তার। আমার স্ত্রী এবং মেয়েও ডাক্তার। আমরা চেয়েছিলাম জাফির শাফি চৌধুরীও ডাক্তার হোক। কিন্তু চিকিৎসাবিজ্ঞান পড়তে তার সায় ছিলো না। নতুন প্রযুক্তি উদ্ভাবনে আগ্রহ ছিলো। এ কারণে সে বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বুয়েট) ভর্তি হয়।
বুয়েটে দ্বিতীয় বর্ষে পড়ার সময় জাফির বন্ধুদের নিয়ে বন্ডস্টেইন টেকনোলজিস প্রতিষ্ঠা করে। বিভিন্ন ইলেক্ট্রনিক্স ট্র্যাকিং ডিভাইস নিয়ে তারা কাজ করে। এ সময় মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষার প্রশ্ন জেলা শহরে নিয়ে যাওয়ার সময় ট্রাংক খুলে প্রশ্ন ফাঁস হচ্ছে বলে খবর প্রকাশিত হয়।
এ বিষয়ে সামাধান কী জানতে চাইলে- জাফির ট্রাংক ট্র্যাকিং ডিভাইস উদ্ভাবন করে। তাদের উদ্ভাবিত প্রযুক্তি ব্যবহারের পর থেকে মেডিকেলে প্রশ্ন ফাঁসের খবর আর পাওয়া যায়নি। এখন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, শাহজালার বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়সহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান তাদের প্রযুক্তি ব্যবহার করছে।
এছাড়াও রিমোট মনিটরিং সলিউশন, ড্রাইভমার্ক, ভিহিকল ট্র্যাক, হালখাতাসহ নানা বিষয়ে নতুন সফটওয়্যার উদ্ভাবন করেছে জাফিরদের প্রতিষ্ঠান বন্ডস্টেইন টেকনোলজিস। এশিয়া প্যাসিফিক আইওটিতে বাংলাদেশকে চ্যাম্পিয়ন করা ছাড়াও আন্তর্জাতিক নানা প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়ে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল করেছে জাফির ও তার বন্ধুরা।
তরুণদের হাত ধরে দেশকে এগিয়ে নিতে চান বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আশা করি জাফিরের মতো তরুণদের উদ্ভাবন চতুর্থ শিল্প বিপ্লবে দেশকে এগিয়ে নিতে বিশাল অবদান রাখবে। আল্লাহর কাছে দোয়া করি আমার ছেলের পরিশ্রম কাজে আসুক। দেশকে উন্নত বিশ্বের কাতারে নিয়ে যেতে সে আরও ভালো ভালো কাজ করুক।
জাফিরের বাবা ডা. জামাল উদ্দিন চৌধুরী বাংলাদেশ মেডিকেল এসোসিয়েশনের (বিএমএ) কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য এবং স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদের (স্বাচিপ) সহ-সভাপতি।

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট